কুয়াশাচ্ছন্ন, তাপমাত্রা ২২.২ °C
 
৩ ডিসেম্বর ২০১৬, ১৯ অগ্রহায়ণ ১৪২৩, শনিবার, ঢাকা, বাংলাদেশ
শীর্ষ সংবাদ

গৌরনদীতে ব্যবসায়ীদের অনির্দিষ্টকালের ধর্মঘট

প্রকাশিত : ২০ মার্চ ২০১৫

স্টাফ রিপোর্টার, বরিশাল ॥ অনির্দিষ্টকালের জন্য ব্যবসা প্রতিষ্ঠান বন্ধ রেখে ও কালো পতাকা উত্তোলনের মাধ্যমে ব্যবসায়ীদের শান্তিপূর্ণ প্রতিবাদে র‌্যাব-৮ ও থানা পুলিশের সদস্যরা বৃহস্পতিবার সকালে বাঁধা প্রদান করেছে বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে। এ সময় ব্যবসা প্রতিষ্ঠান না খোলায় বিপ্লব বিশ্বাস নামের এক ব্যবসায়ীকে পিটিয়ে আহত করা হয়। ঘটনাটি ঘটেছে বৃহস্পতিবার সকাল সাড়ে নয়টার দিকে বরিশাল-ঢাকা মহাসড়কের পার্শ্ববর্তী গৌরনদী উপজেলার মাহিলাড়া বাজারে। অনির্দিষ্টকালের জন্য দোকানপাট বন্ধ রেখে ধর্মঘটের প্রথম দিনেই চরম বিপাকে পড়েছে ওই অঞ্চলের সাধারণ মানুষ। কাছাকাছি কোন বাজার বা হাট না থাকায় বাজার করতে গিয়ে চরম দুর্ভোগের শিকার হচ্ছেন তাঁরা।

মাহিলাড়া হাট-বাজার ব্যবসায়ী কমিটির সভাপতি রেজাউল করিম হারুন বয়াতী জানান, ঠিকাদারি কাজের বিরোধকে কেন্দ্র করে গত ১৭ মার্চ দুপুরে গৌরনদী পৌরসভার মেয়র হারিছুর রহমানের নেতৃত্বে ৭০-৮০ জন সশস্ত্র অবস্থায় অতর্কিতভাবে হামলা চালিয়ে মাহিলাড়া ইউনিয়ন পরিষদ কার্যালয়, ডিগ্রী কলেজ, মসজিদ, ক্লাব, মাহিলাড়া বাজারের দশটি ব্যবসায়িক প্রতিষ্ঠান, তিনটি পরিবহন কাউন্টারে হামলা চালিয়ে ব্যাপক ভাংচুর ও লুটপাট করে। এ ঘটনার প্রতিবাদে মাহিলাড়া বাজারের প্রায় ৫ শতাধিক ব্যবসায়ী জরুরী সভা করে উল্লেখিত হামলা, ভাংচুর ও লুটপাটকারীদের গ্রেফতারপূর্বক দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি ও আটককৃতদের অনতিবিলম্বে মুক্তির দাবিতে বৃহস্পতিবার সকাল থেকে অনির্দিষ্টকালের জন্য ব্যবসা প্রতিষ্ঠান বন্ধ রেখে ধর্মঘটের আহ্বান করে।

ব্যবসায়ীকে মারধরের অভিযোগ অস্বীকার করে গৌরনদী থানার ওসি মোঃ সাজ্জাদ হোসেন বলেন, বাজার কমিটির নেতৃবৃন্দরা সাধারণ ব্যবসায়ীদের হুমকি দিয়ে দোকানপাট বন্ধ রেখেছে।

মানিকগঞ্জ আদালতে বোমাতঙ্ক ॥ বিচার কার্যক্রম সাময়িক স্থগিত

নিজস্ব সংবাদদাতা, মানিকগঞ্জ, ১৯ মার্চ ॥ মানিকগঞ্জ আদালতে বোমা হামলার হুমকিতে সব ধরনের বিচারিক সাময়িকভাবে কার্যক্রম স্থগিত রাখা হয়। বৃহস্পতিবার বেলা সাড়ে ১১টা থেকে আদালতে বিচারিক কার্যক্রম বন্ধ রাখা হয়।

সিনিয়র সহকারী পুলিশ সুপার (ডিএসবি) শাহীনুর আলম খান জানান, বেলা পৌনে ১১টার দিকে পুলিশ সুপার বিধান ত্রিপুরার সরকারী মোবাইল নম্বরে একটি অজ্ঞাত ব্যক্তির নম্বর থেকে এসএমএস আসে। ম্যাসেজে লেখাছিল ‘আদালতে টাইম বোমা রাখা আছে, বিচারকদের বাঁচান। এ খবর পাওয়া মাত্রই পুলিশ সুপার জেলা জজকে অবহিত করেন। পরে আদালত চত্বরে জেলা পুলিশ বোমার সন্ধানে ব্যাপক তল্লাশি চালায়। তবে ওই চত্বরে কোন বোমা পাওয়া যায়নি। ঘটনার পর থেকেই আদালত চত্বরে নিরাপত্তা ব্যবস্থা জোরদার করা হয়েছে।

প্রকাশিত : ২০ মার্চ ২০১৫

২০/০৩/২০১৫ তারিখের খবরের জন্য এখানে ক্লিক করুন

দেশের খবর



ব্রেকিং নিউজ: