কুয়াশাচ্ছন্ন, তাপমাত্রা ২২.২ °C
 
৪ ডিসেম্বর ২০১৬, ২০ অগ্রহায়ণ ১৪২৩, রবিবার, ঢাকা, বাংলাদেশ
শীর্ষ সংবাদ

চ্যাম্পিয়ন ম্যানচেস্টার সিটির গোলবন্যা

প্রকাশিত : ২৩ ফেব্রুয়ারী ২০১৫

স্পোর্টস রিপোর্টার ॥ ইংলিশ প্রিমিয়ার লীগ ফুটবলে প্রতিপক্ষকে গোলবন্যায় ভাসিয়ে জয় পেয়েছে ম্যানচেস্টার সিটি। শনিবার অনুষ্ঠিত ম্যাচে ম্যানসিটি ৫-০ গোলে পরাজিত করে নিউক্যাসল ইউনাইটেডকে। ইতিহাদ স্টেডিয়ামে স্বাগতিকদের হয়ে জোড়া গোল করেন ডেভিড সিলভা। একটি করে গোল করেন সার্জিও এ্যাগুয়েরো, নামির নাসরি ও এডিন জেকো।

বর্তমান চ্যাম্পিয়ন ম্যানসিটি বড় জয় পেলেও হোঁচট খেয়েছে চেলসি। নিজেদের মাঠ স্টামফোর্ড ব্রিজে দুর্বল প্রতিপক্ষ বার্নলির সঙ্গে ১-১ গোলে ড্র করে দ্য ব্লুজরা। অন্যদিকে আবারও হারের তেতো স্বাদ পেয়েছে ম্যানচেস্টার ইউনাইটেড। এ্যাওয়ে ম্যাচে স্বাগতিক সোয়ানসি সিটির কাছে ২-১ গোলে নতি স্বীকার করে রেড ডেভিলসরা। ম্যানইউর এই হারে ক্রিস্টাল প্যালেসকে ২-১ গোলে হারিয়ে পয়েন্ট তালিকার তিন নম্বরে উঠে এসেছে আর্সেনাল।

২৬ ম্যাচে ৪৮ পয়েন্ট ভা-ারে গানার্সদের। সমান ম্যাচে ৪৭ পয়েন্ট নিয়ে চার নম্বরে ম্যানইউ। পয়েন্ট হারালে ৬০ পয়েন্ট নিয়ে শীর্ষে চেলসি। দারুণ জয়ে ব্লুজদের সঙ্গে পয়েন্টের ব্যবধান কমিয়েছে সিটি। ৫৫ পয়েন্ট নিয়ে দ্বিতীয় স্থানে আসরের বর্তমান চ্যাম্পিয়নরা। হঠাৎ করেই ছন্দপতন ঘটেছিল ম্যানসিটির। চার ম্যাচের মধ্যে তিনটিতে ড্র ও একটি হার মানে তারা। এরপর প্রায় এক মাসের বাজে সময় কাটানোর পর গত সপ্তাহে স্টোক সিটিকে ৪-১ গোলে হারিয়ে জয়ের ধারায় ফেরে বর্তমান চ্যাম্পিয়নরা। পরশু রাতে আরও একটি দাপুটে জয় পেয়েছে ম্যানুয়েল পেলেগ্রিনির দল।

ঘরের মাঠে ম্যাচের শুরুতেই এগিয়ে যায় স্বাগতিকরা। প্রথম মিনিটেই নিউক্যাসলের মিডফিল্ডার ভারনন আনিটা নিজেদের ডি বক্সে প্রতিপক্ষের এডিন জেকোকে ফাউল করলে পেনাল্টি পায় সিটি। স্পট কিক থেকে দ্বিতীয় মিনিটে গোল করেন হিগুয়াইন। ১২ মিনিটে ব্যবধান দ্বিগুণ করেন সামির নাসরি। বসনিয়ার তারকা জেকোর পাস থেকে গোলটি করেন ফরাসী এই ফুটবলার। ২১ মিনিটে ব্যবধান ৩-০ করে জয় অনেকটা নিশ্চিত করে ফেলে স্বাগতিকরা। গোল করেন জেকো। বিরতির পর শুরুতে দুই মিনিটের ব্যবধানে দুই গোল করে স্কোরলাইন ৫-০ করেন ডেভিড সিলভা। ৫১ মিনিটে আড়াআড়ি শটে গোল করেন সিলভা। দুই মিনিট পর কোনাকুণি শটে গোল করেন স্প্যানিশ মিডফিল্ডার। এবারের লীগে এ নিয়ে নয় গোল করলেন সিলভা।

বার্নলির বিরুদ্ধে এগিয়ে যেয়েও ম্যাচের শেষ দিকে গোল খেয়ে মূল্যবান দুই পয়েন্ট খুইয়েছে চেলসি। স্টামফোর্ড ব্রিজে ১৪ মিনিটে এগিয়ে যায় চেলসি। ইডেন হ্যাজার্ডের কাছ থেকে পাওয়া বল পোস্টের খুব কাছাকাছি থেকে বার্নলির জালে জড়ান সার্বিয়ার ডিফেন্ডার ব্রানিসøাভ ইভানোভিচ। এগিয়ে থেকেই বিরতিতে যায় স্বাগতিকরা। দ্বিতীয়ার্ধে বড় একটা ধাক্কা খায় চেলসি। ৭০ মিনিটে নেমাঞ্জা মাটিচ লালকার্ড দেখলে ১০ জনের দলে পরিণত হয় স্বাগতিকরা। এই সুযোগে ৮১ মিনিটে স্বাগতিক সমর্থকদের স্বস্তির হাসি কেড়ে নেয় বার্নলি। চেলসি গোলরক্ষক থিবো কোর্টোয়াকে পরাস্ত করে দলকে সমতায় ফেরান বেনমি।

সোয়ানসি সিটির কাছে হারের বদলা নেয়া হয়নি ম্যানচেস্টার ইউনাইটেডের। উল্টো ওয়েলসের ক্লাবটির কাছে ইপিএলে দ্বিতীয়বারের মতো হারের লজ্জায় ডুবতে হয়েছে আসরের সর্বোচ্চ ২০ বারের চ্যাম্পিয়নদের।

সোয়ানসির মাঠে আক্রমণ পাল্টা আক্রমণে শুরু থেকেই লড়াই জমে ওঠে। ২৮ মিনিটে ইউনাইটেডকে এগিয়ে দেন স্প্যানিশ মিডফিল্ডার আন্ডের হেরেরা। এ্যাঞ্জেল ডি মারিয়ার পাস থেকে গোল করেন তিনি। দুই মিনিট পরই সমতা ফেরায় সোয়ানসি। স্বাগতিকদের হয়ে গোল করেন কি সুং-ইউয়েং। বাঁ প্রান্ত থেকে ইংলিশ মিডফিল্ডার জঞ্জো শেলভির দারুণ ক্রসে আলতোভাবে পা ছুঁইয়ে বল জালে পাঠান দক্ষিণ কোরিয়ান এই মিডফিল্ডার। ৭৩ মিনিটে সোয়ানসির জয় নিশ্চিত করা গোলটি করেন গোমিস।

তৃতীয় স্থানে উঠে আসা ম্যাচে আর্সেনালের হয়ে গোল করেন সান্টি ক্যাজোরলা ও অলিভিয়ের জিরুড।

ক্রিস্টালের হয়ে ম্যাচের শেষ মিনিটে একটি গোল পরিশোধ করেন মারে।

প্রকাশিত : ২৩ ফেব্রুয়ারী ২০১৫

২৩/০২/২০১৫ তারিখের খবরের জন্য এখানে ক্লিক করুন

খেলার খবর



ব্রেকিং নিউজ: