রৌদ্রজ্জ্বল, তাপমাত্রা ২৩.৯ °C
 
৮ ডিসেম্বর ২০১৬, ২৪ অগ্রহায়ণ ১৪২৩, বৃহস্পতিবার, ঢাকা, বাংলাদেশ
শীর্ষ সংবাদ

ধাওয়ান ধামাকা

প্রকাশিত : ২৩ ফেব্রুয়ারী ২০১৫

স্পোর্টস রিপোর্টার ॥ বিশ্বকাপে নিজেদের প্রথম ম্যাচেই সেঞ্চুরির দেখা পান বিরাট কোহলি। বিশ্বকাপের ইতিহাসে পাকিস্তানের বিপক্ষে সেটিই ছিল ভারতীয় কোন ব্যাটসম্যানের প্রথম শতরানের মাইলফলক। আর সেই ম্যাচে সেঞ্চুরির সুবাস পাচ্ছিলেন শিখর ধাওয়ানও। কিন্তু শেষ পর্যন্ত তাকে থামিয়ে দেন পাকিস্তানের অধিনায়ক মিসবাহ-উল হক। ব্যক্তিগত ৭৩ রানে থেমে যায় ধাওয়ানের ইনিংস। তবে দ্বিতীয় ম্যাচেই বিশ্বকাপের প্রথম সেঞ্চুরি তুলে নিলেন ভারতের এই উদ্বোধনীয় ক্রিকেটার। রবিবার শক্তিশালী দক্ষিণ আফ্রিকার বিপক্ষে ১৩৭ রানের ঝলমলে এক ইনিংস উপহার দেন তিনি। দক্ষিণ আফ্রিকার বিপক্ষে করা এই সেঞ্চুরি বিশ্বকাপের প্রথম হলেও শিখর ধাওয়ানের ক্যারিয়ারের সপ্তম।

প্রকৃতপক্ষে মেলবোর্ন ক্রিকেট গ্রাউন্ডে রবিবার ছিল শুধুই ধাওয়ানেরই দিন। মনে হয়েছিল প্রোটিয়াদের চার পেসার আর এক স্পিনার ভারতীয়দের খুব ভোগাবে। কিন্তু তেমন কিছুই হয়নি ভারতীয়দের সতর্কতায়। অবশ্য দলের ৯ রানের সময়ই দুর্ভাগ্যের শিকার হন রোহিত শর্মা। দ্রুত সিঙ্গেল নিতে গিয়েছিলেন তিনি। কিন্তু কাভার থেকে ছোড়া এবি ডি ভিলিয়ার্সের থ্রোতে উইকেট ভেঙ্গে যায়। সেই সঙ্গে কপালও পুড়ে তার। শূন্য রানেই ড্রেসিং রুমে ফিরতে হয় তাকে। ব্যাটিংয়ের পরের অংশটা যেন ঠিক পাকিস্তানের বিপক্ষে ম্যাচেরই পুনরাবৃত্তি। রোহিতের দ্রুত বিদায়ের পর উইকেটে জুটি বাঁধেন শিখর ধাওয়ান ও বিরাট কোহলি। প্রোটিয়া বোলারদের দেখেশুনে সাবধানেই ব্যাট চালিয়েছেন তারা। বলকে পুরনো হতে দিয়েছেন। সুযোগ সুবিধা মতো আক্রমণ শাণিয়েছেন দলের সেরা দুই তারকা ব্যাটসম্যান। তবে কোহলির চেয়ে ধাওয়ানের ব্যাটই চলেছে বেশি। ফিফটি করেছেন, জুটি পাকা করেছেন। দলও পায় শক্তিশালী ভিত। এরপর ১৩৬ রানে দ্বিতীয় উইকেটের পতন। কোহলি মিড উইকেটে বল তুলে দিয়ে ৪৬ রান করে সাজঘরে ফিরেন। তারপরও একপাশ আগলে রেখেছেন শিখর ধাওয়ান। তার সঙ্গে জুটি বাঁধে আজিঙ্কা রাহানে। তবে ওয়েন পার্নেলের ৪৩ ওভারের চতুর্থ বলে আউট হওয়ার আগেই ক্যারিয়ারের সপ্তম সেঞ্চুরি তুলে নেন ধাওয়ান। দক্ষিণ আফ্রিকার বিপক্ষে অসাধারণ এই ইনিংসটি সাজাতে ১৪৬ বল খেলেন ধাওয়ান। যেখানে ১৬ চার ও ২ ছক্কার মার ছিল। তবে শিখর ধাওয়ান আউট হওয়ার পর ভারতও খুব বেশি এগোতে পারেনি। মাত্র ৩০৭ রানেই থেমে যায় তাদের ইনিংস। শিখর ধাওয়ানের পর দ্বিতীয় সর্বোচ্চ ৭৯ রান করেন আজিঙ্কা রাহানে।

সৌরভ-দ্রাবিড় আর কিংবদন্তি শচীন টেন্ডুলকর এখন ভারতীয় ক্রিকেটের অতীত ইতিহাস। তবে তাদের সেই অভাব মোটেও বুঝতে দিচ্ছেন না বিরাট কোহলি এবং শিখর ধাওয়ানরা। ধাওয়ানের ব্যাটিংয়ের মুগ্ধ দর্শক কপিল দেব। তার সম্পর্কে বছর খানিক আগে ভারতকে বিশ্বকাপ এনে দেয়া প্রথম অধিনায়ক কপিল দেব বলেছিলেন, ‘এ ছেলেটা অসাধারণ এক ব্যাটসম্যান।

প্রকাশিত : ২৩ ফেব্রুয়ারী ২০১৫

২৩/০২/২০১৫ তারিখের খবরের জন্য এখানে ক্লিক করুন

খেলার খবর



ব্রেকিং নিউজ: