মূলত পরিষ্কার, তাপমাত্রা ২১.১ °C
 
১০ ডিসেম্বর ২০১৬, ২৬ অগ্রহায়ণ ১৪২৩, শনিবার, ঢাকা, বাংলাদেশ
শীর্ষ সংবাদ

ফোরকান মল্লিকের বিরুদ্ধে পাঁচ অভিযোগ গঠন

প্রকাশিত : ১৯ ডিসেম্বর ২০১৪
  • যুদ্ধাপরাধী বিচার

স্টাফ রিপোর্টার ॥ একাত্তরের মুক্তিযুদ্ধের সময় মানবতাবিরোধী অপরাধের অভিযোগে অভিযুক্ত পটুয়াখালীর রাজাকার বিএনপি নেতা ফোরকান মল্লিকের বিরুদ্ধে হত্যা, গণহত্যা, লুটপাট, ধর্মান্তরিত, ধর্ষণ, অপহরণ দেশত্যাগে বাধ্যকরণসহ পাঁচটি অভিযোগ গঠন করেছে ট্রাইব্যুনাল। অভিযোগ গঠনের মধ্য দিয়ে ফোরকান মল্লিকের বিরুদ্ধে আনুষ্ঠানিকভাবে বিচার শুরু হলো। প্রসিকিউশন পক্ষের সূচনা বক্তব্য ও সাক্ষী গ্রহণের জন্য দিন নির্ধারণ করা হয়েছে। অন্যদিকে স্কাইপি সংলাপে বিচারপতিদের সম্পর্কিত তথ্য জানতে চাওয়ায় বিএনপি নেতা মৃত্যুদ-প্রাপ্ত আসামি সাকা চৌধুরীর আইনজীবী ব্যারিস্টার ফখরুল ইসলামের বিরুদ্ধে আদালত অবমাননার অভিযোগের বিষয়ে আদেশ দানের দিন পিছিয়ে আগামী বছরের ১৮ ফেব্রুয়ারি পুনর্র্নির্ধারণ করা হয়েছে। মানবতাবিরোধী মামলায় বাগেরহাটের তিন রাজাকার শেখ সিরাজুল ইসলাম ওরফে সিরাজ মাস্টার, আব্দুল লতিফ তালুকদার ও খান আকরাম হোসেনের বিরুদ্ধে প্রসিকিউশন পক্ষের অষ্টম সাক্ষী আনন্দ লাল দাসের অসমাপ্ত জেরা পিছিয়ে রবিবার পুনর্নির্ধারণ করা হয়েছে। বৃহস্পতিবার আন্তর্জাতিক অপরাধ ট্রাইব্যুনাল-১ ও ২ এ আদেশগুলো প্রদান করেছে।

পটুয়াখালীর রাজাকার ফোরকান মল্লিকের বিরুদ্ধে মানবতাবিরোধী অপরাধের পাঁচটি অভিযোগ গঠন করা হয়েছে। ১৯ জানুয়ারি তার বিরুদ্ধে প্রসিকিউশন পক্ষকে সূচনা বক্তব্য ও সাক্ষী দেয়ার জন্য দিন নির্ধারণ করা হয়েছে। চেয়ারম্যান বিচারপতি ওবায়দুল হাসান শাহীনের নেতৃত্বে তিন সদস্যবিশিষ্ট আন্তর্জাতিক অপরাধ ট্রাইব্যুনাল-২ বৃহস্পতিবার এ আদেশ প্রদান করেছে। ট্রাইব্যুনালে অন্য দু’সদস্য ছিলেন বিচারপতি মোঃ মুজিবুর রহমান মিয়া ও বিচারপতি মোঃ শাহিনুর ইসলাম। এ সময় প্রসিকিউশন পক্ষে উপস্থিত ছিলেন সংশ্লিষ্ট মামলার প্রসিকিউটর মোখলেসুর রহমান বাদল ও প্রসিকিউটর সাবিনা ইয়াসমিন খান মুন্নি।

ফোরকান মল্লিককে কারাগার থেকে ট্রাইব্যুনালে হাজির করা হয়। তাকে দোষী না নির্দোষ জিজ্ঞাসা করা হলে তিনি নিজেকে নির্দোষ দাবি করেন। তদন্ত সংস্থা চলতি বছরের ২৭ অক্টোবর চূড়ান্ত প্রতিবেদন প্রকাশ করে। এর পর ১৭ নবেম্বর পটুয়াখালীর রাজাকার বিএনপি নেতা ফোরকান মল্লিকের বিরুদ্ধে আনুষ্ঠানিক অভিযোগ ট্রাইব্যুনালে দাখিল করেন প্রসিকিউশন পক্ষ। আসামির বিরুদ্ধে তদন্তের চূড়ান্ত প্রতিবেদনে ৫টি মানবতাবিরোধী অপরাধের অভিযোগ আনা হয়েছিল। এ প্রতিবেদনের ভিত্তিতে প্রসিকিউশন আটটি অভিযোগ দাখিল করে ট্রাইব্যুনালে। ট্রাইব্যুনাল এ অভিযোগ থেকে তিনটি অভিযোগ এক সঙ্গে সংযুক্ত করে পুনরায় পাঁচটি অভিযোগ গঠন করেছেন। এ অভিযোগগুলোর (চার্জ) মধ্যে রয়েছেÑ

চার্জ-১ : সুবিদখালী বাজার ও গৃহে লুটপাট, আটক, হত্যা, গণহত্যা। চার্জ-২ : সুবিদখালী বাজারে আটক, ধর্মান্তরিত, দেশ ত্যাগে বাধ্য করা। চার্জ-৩ : ভিকটিম গোলাপী রানীকে অপহরণ, আটক, ধর্ষণ, হত্যা। চার্জ-৪ : শোভারানী সুষমা রানীকে অপহরণ আটক ধর্ষণ ও দেশত্যাগে বাধ্য করা। চার্জ-৫ : কাকড়াবুনিয়া বাজার, গ্রামে অপহরণ, আটক, নির্যাতন, লুণ্ঠন, অগ্নিসংযোগ, ধর্ষণ হত্যা ও গণহত্যা।

৯ ডিসেম্বর ফোরকান মল্লিকের বিরুদ্ধে অভিযোগ গঠনের পক্ষে শুনানি করেন প্রসিকিউটর মোখলেসুর রহমান বাদল। বিপক্ষে শুনানি করেন ফোরকান মল্লিকের আইনজীবী আব্দুস সালাম খান। গত ২ ডিসেম্বর ফোরকান মল্লিকের বিরুদ্ধে প্রসিকিউশনের দাখিল করা আনুষ্ঠানিক অভিযোগ আমলে নেন ট্রাইব্যুনাল। গত ২৭ অক্টোবর ফোরকান মল্লিকের বিরুদ্ধে তদন্তের চূড়ান্ত প্রতিবেদন প্রকাশ করেন তদন্ত সংস্থা। ২৮ অক্টোবর এ প্রতিবেদন প্রসিকিউশনের কাছে জমা দেয়া হয়। দীর্ঘদিন পলাতক থাকার পর গোপন সংবাদের ভিত্তিতে গত ২৫ জুন সকালে পটুয়াখালী গোয়েন্দা শাখার একটি দল বরিশালের রুপাতলী বাসস্ট্যান্ড এলাকা থেকে ফোরকান মল্লিককে গ্রেফতার করতে সক্ষম হয়।

ফোরকান মল্লিকের বিরুদ্ধে মোট একশ ২ পৃষ্ঠার মূল প্রতিবেদনসহ পাঁচটি অভিযোগে তার বিরুদ্ধে আট জনকে হত্যা ও গণহত্যা, চার জনকে ধর্ষণ, তিন জনকে ধর্মান্তর, ১৩টি পরিবারকে দেশান্তর ৬৪টি ঘর ও দোকান লুট করে আগুন ধরানোর কথা বলা হয়। ফোরকানের বিরুদ্ধে মোট ৩৪ জন সাক্ষী রয়েছে।

আদালত অবমাননা ॥ স্কাইপি সংলাপে বিচারপতিদের সম্পর্কিত তথ্য জানতে চাওয়ায় ব্যারিস্টার ফখরুল ইসলামের বিরুদ্ধে আদালত অবমাননার অভিযোগের বিষয়ে আদেশ দানের দিন পিছিয়ে আগামী বছরের ১৮ ফেব্রুয়ারি পুনর্র্নির্ধারণ করেছে ট্রাইব্যুনাল। চেয়ারম্যান বিচারপতি এম ইনায়েতুর রহিমের নেতৃত্বাধীন আন্তর্জাতিক অপরাধ ট্রাইব্যুনাল-১ বৃহস্পতিবার এ আদেশ প্রদান করেছে।

প্রকাশিত : ১৯ ডিসেম্বর ২০১৪

১৯/১২/২০১৪ তারিখের খবরের জন্য এখানে ক্লিক করুন

শেষের পাতা



ব্রেকিং নিউজ: