আংশিক মেঘলা, তাপমাত্রা ২২.২ °C
 
৭ ডিসেম্বর ২০১৬, ২৩ অগ্রহায়ণ ১৪২৩, বুধবার, ঢাকা, বাংলাদেশ
শীর্ষ সংবাদ

যুদ্ধাপরাধী বিচার ॥ সিরাজ মাস্টার আমার বাবাসহ ৯ জনকে গুলি করে হত্যা করে

প্রকাশিত : ১১ ডিসেম্বর ২০১৪
  • সমেন্দ্র চন্দ্র পালের জবানবন্দী

স্টাফ রিপোর্টার ॥ একাত্তরের মুক্তিযুদ্ধের সময় মানবতাবিরোধী অপরাধের অভিযোগে পলাতক পটুয়াখালীর রাজাকার কমান্ডার হাসান আলীর বিরুদ্ধে প্রসিকিউশনের দ্বিতীয় সাক্ষী সমেন্দ্র চন্দ্র পাল জবানবন্দীতে বলেন, আসামি সিরাজ মাস্টার তার হাতের রাইফেল দিয়ে গুলি করে আমার বাবাসহ ৯ জনকে হত্যা করে।

সাক্ষীর জবানবন্দী শেষে রাষ্ট্রপক্ষ নিয়োজিত আইনজীবী তাকে জেরা করেন। আজ নতুন সাক্ষীর জবানবন্দীর জন্য দিন নির্ধারণ করা হয়েছে। অন্যদিকে একই মামলায় গ্রেফতারকৃত বাগেরহাটের কসাই সিরাজ মাষ্টারসহ তিন রাজাকারের বিরুদ্ধে প্রসিকিউশনের ষষ্ঠ সাক্ষী নন্দ লাল দাস জবানবন্দী দিয়েছেন। রবিবার পরবর্তী সাক্ষীর জন্য দিন নির্ধারণ করা হয়েছে। চেয়ারম্যান বিচারপতি এম ইনায়েতুর রহিমের নেতৃত্বে তিন সদস্যবিশিষ্ট আন্তর্জাতিক অপরাধ ট্রাইব্যুনাল-১ এ আদেশ প্রদান করেছেন। ট্রাইব্যুনালে অন্য দুই সদস্য ছিলেন বিচারপতি জাহাঙ্গীর হোসেন সেলিম ও বিচারপতি আনোয়ারুল হক।

মানবতাবিরোধী অপরাধের অভিযোগে পলাতক পটুয়াখালীর রাজাকার কমান্ডার হাসান আলীর বিরুদ্ধে প্রসিকিউশনের দ্বিতীয় সাক্ষী সমেন্দ্র চন্দ্র পাল জবানবন্দীতে বলেন, আসামি সিরাজ মাস্টার তার হাতের রাইফেল দিয়ে গুলি করে আমার বাবাসহ ৯ জনকে হত্যা করে। জবানবন্দী শেষে সাক্ষীকে জেরা করেন রাষ্ট্র কর্তৃক নিয়োজিত আইনজীবী। সাক্ষী তার জেরায় বলেন, আমার নাম সমেন্দ্র চন্দ্র পাল। আমার বর্তমান বয়স আনুমানিক ৫৭-৫৮ বছর। আমার ঠিকানা গ্রাম- শিমুলহাটি (পূর্বপাড়া, পালপাড়া হিসেবে পরিচিত)। থানা- তারাইল, জেলা- কিশোরগঞ্জ।

জবানবন্দীতে তিনি বলেন, ১৯৭১ সালের ৯ সেপ্টেম্বর বেলা ১টার দিকে দুইটি নৌকা পূর্ব-দক্ষিণ দিকে থেকে এসে একটি নৌকা আমাদের পাড়ার পূর্ব পাশের মথুর ভৌমিকের বাড়ির ঘাটে ও অপর নৌকাটি নিতিশ ডাক্তারের বাড়ির ঘাটে ভিড়ায়। আমি সে সময় মথুর ভৌমিকের বাড়ির ঘাটের কাছাকাছি ছিলাম। সে সময় দেখি মথুর ভৌমিকের বাড়ির ঘাটে ভিড়ানো নৌকা থেকে ৮-১০ জন লোক যাদের পরনে খাকি পোশাক ও হাতে রাইফেল ছিল তারা নৌকা থেকে লাফিয়ে নামছিল। তাদের মধ্যে একজনের গালে খোঁচা খোঁচা দাড়ি ও মাথায় টুপি ছিল। মাথায় সাদা টুপিওয়ালা লোকটি ঘাটে নেমেই চিৎকার করে বলতে থাকে ধর ধর মালাউনদের ধর, ধরে খতম কর।

সিরাজ মাস্টার ॥ মানবতাবিরোধী অপরাধের মামলায় গ্রেফতারকৃত বাগেরহাটের কসাই সিরাজ মাস্টারসহ তিন রাজাকারের বিরুদ্ধে প্রসিকিউশনের ষষ্ঠ সাক্ষী নন্দ লাল দাস জবানবন্দী দিয়েছেন। রবিবার পরবর্তী সাক্ষীর জন্য দিন নির্ধারণ করা হয়েছে। চেয়ারম্যান বিচারপতি এম ইনায়েতুর রহিমের নেতৃত্বে তিন সদস্যবিশিষ্ট আন্তর্জাতিক অপরাধ ট্রাইব্যুনাল-১ এ আদেশ প্রদান করেছেন।

প্রকাশিত : ১১ ডিসেম্বর ২০১৪

১১/১২/২০১৪ তারিখের খবরের জন্য এখানে ক্লিক করুন

শেষের পাতা



ব্রেকিং নিউজ: