মূলত পরিষ্কার, তাপমাত্রা ২১.১ °C
 
১০ ডিসেম্বর ২০১৬, ২৬ অগ্রহায়ণ ১৪২৩, শনিবার, ঢাকা, বাংলাদেশ
শীর্ষ সংবাদ

রিজার্ভ বাড়ছে বাংলাদেশের

প্রকাশিত : ২৮ জুন ২০১৫

বাংলাদেশের বৈদেশিক মুদ্রার রিজার্ভ ২৫ বিলিয়ন ডলারের মাইলফলক ছুঁয়েছে। গত বছর যেখানে এই সময়ে বৈদেশিক মুদ্রার রিজার্ভ ছিল ২১ দশমিক ৩৭ বিলিয়ন ডলার, তা এখন ১৭ শতাংশ বৃদ্ধি এ মাইলফলক অর্জন করেছে। চলতি বছরের ২৯ এপ্রিল রিজার্ভ ২৪ বিলিয়ন ডলারের মাইলফলক ছোঁয়। এরপর দু’মাসের কম সময়ের মধ্যেই এক বিলিয়ন ডলার রিজার্ভে যোগ হয়েছে। বর্তমানে যে রিজার্ভ আছে, তা দিয়ে সাত মাসের ব্যয় মেটানো সম্ভব। রেমিট্যান্স প্রাপ্তির পরিমাণ বৃদ্ধি, রফতানির প্রবৃদ্ধি এবং আমদানি ব্যয় কমা রিজার্ভ বৃদ্ধিতে ভূমিকা পালন করেছে। এছাড়া বিশ্ববাজারে তেলের দাম কমাও রিজার্ভ বৃদ্ধিতে সহায়ক হয়েছে। বিগত পাঁচ বছরে যে হারে রিজার্ভ বেড়ে চলছে, তা যদি অব্যাহত থাকে তাহলে আগামী পাঁচ বছরের মধ্যে রিজার্ভ ৫০ বিলিয়ন ডলার ছাড়িয়ে যাবে বলে বিশেষজ্ঞরা মনে করছেন।

কমছে উন্নয়নশীল দেশের রিজার্ভ

উন্নয়নশীল দেশগুলোর রিজার্ভের পরিমাণ ক্রমাগত কমে যাচ্ছে বলে জানিয়েছে আন্তর্জাতিক মুদ্রা তহবিল (আইএমএফ)। আইএমএফের হিসাব মতে, উন্নয়নশীল বিশ্বের রিজার্ভের পরিমাণ ১৯৯৯ সালের ৬১০ দশমিক ৬ বিলিয়ন ডলার থেকে গত বছরের জুনে সর্বোচ্চ ৮ দশমিক ১ ট্রিলিয়ন ডলারে উন্নীত হয়। কিন্তু এরপর থেকে রিজার্ভের পরিমাণ কমতে থাকে। সংস্থাটির দেয়া তথ্যমতে, চলতি বছরের প্রথম প্রান্তিকে উন্নয়নশীল দেশগুলোর সম্মিলিত রিজার্ভের পরিমাণ ২২২ বিলিয়ন ডলার কিংবা ৩ শতাংশ কমে ৭ দশমিক ৫ ট্রিলিয়ন ডলারে নেমে এসেছে। রিজার্ভ কমে যাওয়ায় অনেক দেশ ঝুঁকির মুখে পড়েছে। বিশেষ করে তুরস্ক, দক্ষিণ আফ্রিকা, ইন্দোনেশিয়া ও মালয়েশিয়া। রিজার্ভ পতনের অন্যতম কারণ ডলারের মানের উর্ধগতি। শক্তিশালী ডলারের কারণে রিজার্ভে থাকা ইয়েন, ইউয়ান, ইউরোসহ অন্যান্য মুদ্রার মান কমে যায়। এতে বিনিয়োগ প্রবাহ নিয়ে উদ্বেগের সৃষ্টি হয়েছে।

অর্থনীতি ডেস্ক

প্রকাশিত : ২৮ জুন ২০১৫

২৮/০৬/২০১৫ তারিখের খবরের জন্য এখানে ক্লিক করুন


ব্রেকিং নিউজ: