মূলত পরিষ্কার, তাপমাত্রা ২১.১ °C
 
১১ ডিসেম্বর ২০১৬, ২৭ অগ্রহায়ণ ১৪২৩, রবিবার, ঢাকা, বাংলাদেশ
শীর্ষ সংবাদ

পুঁজিবাজারে সূচকের বৃদ্ধি অব্যাহত

প্রকাশিত : ১৮ জুন ২০১৫
  • বস্ত্র খাতের প্রাধান্য

অর্থনৈতিক রিপোর্টার ॥ দেশের পুঁজিবাজারে সূচকের উত্থান অব্যাহত রয়েছে। বস্ত্র খাতের নতুন কোম্পানির লেনদেন শুরুর দিনে প্রধান বাজার ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জে বিনিয়োগকারীদের অংশগ্রহণ বেড়েছে। সেখানে সারাদিনে ৪৪৭ কোটি ১৫ লাখ টাকার শেয়ার লেনদেন হয়েছে। দীর্ঘদিন পরে বাজারে বস্ত্র খাতের কোম্পানিগুলোর প্রাধান্য দেখা গেছে। একইভাবে অপর বাজার চট্টগ্রাম স্টক এক্সচেঞ্জেও (সিএসই) সূচক ও লেনদেন বেড়েছে।

বাজার পর্র্যালোচনায় দেখা গেছে, সকালে সূচকের ইতিবাচক প্রবণতা দিয়ে শুরুর পরে পুঁজিবাজারে সূচক ও লেনদেন বাড়তে থাকে। যদিও বস্ত্র খাতের নতুন তালিকাভুক্ত কোম্পানিটিকে ঘিরেই সারাদিনে লেনদেন সম্পন্ন হয়েছে। বুধবার ডিএসইতে আগের দিনের তুলনায় ৩৬ কোটি ৫৬ লাখ টাকা বা ৯ শতাংশ বেশি লেনদেন হয়েছে। আগের দিন এ বাজারে লেনদেন হয়েছিল ৪১০ কোটি ৫৯ লাখ টাকার শেয়ার।

ডিএসইতে লেনদেনে অংশ নেয় ৩১৬ কোম্পানি ও মিউচুয়াল ফান্ড। এর মধ্যে দর বেড়েছে ২০০, কমেছে ৮৫ এবং অপরিবর্তিত রয়েছে ৩১টির শেয়ার দর।

বুধবারে প্রধান বাজারে বেশিরভাগ কোম্পানির দর বাড়ার কারণে সূচক বাড়ছিল। দিনশেষে ডিএসইএক্স বা প্রধান মূল্যসূচক ২০ পয়েন্ট বেড়ে ৪ হাজার ৫২৭ পয়েন্টে অবস্থান করছে। ডিএসইএস বা শরীয়াহ্ সূচক ২ পয়েন্ট বেড়ে অবস্থান করছে এক হাজার ১০৪ পয়েন্টে। ডিএস৩০ সূচক ৪ পয়েন্ট বেড়ে দাঁড়িয়েছে এক হাজার ৭৪৬ পয়েন্টে।

বাজার পর্যালোচনায় দেখা গেছে, নতুন কোম্পানি তালিকাভুক্তির দিনে চাহিদার শীর্ষে ছিল বস্ত্র খাত। খাতটির মোট লেনদেনের পরিমাণ দাঁড়ায় ৭৫ কোটি ৮৬ লাখ টাকা, অর্থাৎ মোট লেনদেনের ১৯ দশমিক ৪৭ ভাগ দখল করেছে। দ্বিতীয় অবস্থানে ছিল মোট জ্বালানি ও শক্তি খাতটি। খাতটির মোট লেনদেনের পরিমাণ দাঁড়ায় ৬৩ কোটি টাকা, যা মোট লেনদেনের ১৬ দশমিক ২৮ ভাগ। তৃতীয় অবস্থানে ছিল ওষুধ এবং রসায়ন খাতের কোম্পানিগুলো। সারাদিনে খাতটির মোট লেনদেনের পরিমাণ দাঁড়ায় ৫৪ কোটি ৭৫ লাখ টাকা, যা মোট লেনদেনের ১৪ দশমিক ০৫ ভাগ।

ডিএসইতে লেনদেনের শীর্ষে থাকা দশ কোম্পানি হচ্ছে- তসরিফা ইন্ডাস্ট্রিজ লিমিটেড, গ্রামীণফোন, ইউনাইটেড এয়ারওয়েজ, খুলনা পাওয়ার কোম্পানি, ফ্যামিলি টেক্স, বেক্সিমকো, সামিট পাওয়ার, এমজেএলস বিডি, ফার কেমিক্যাল এবং স্কয়ার ফার্মা।

দর বৃদ্ধির সেরা কোম্পানিগুলো হলো- আলহাজ টেক্সটাইল, প্রাইম লাইফ, গোল্ডেন হার্ভেস্ট, এটলাস বাংলাদেশ, দেশ গার্মেন্টস, এ্যাপোলো ইস্পাত, বিএসআরএস লিমিটেড, ন্যাশনাল টিউবস, লিগ্যাসি ফুটওয়্যার ও জিকিউ বলপেন।

দর হারানোর সেরা কোম্পানিগুলো হলো- সাভার রিফ্যাক্টরিজ, ৭ম আইসিবি, ইবিএল এনআরবি মিউচুয়াল ফান্ড, স্ট্যান্ডার্ড ইন্স্যুরেন্স, অগ্রণী ইন্স্যুরেন্স, ২য় আইসিবি, দুলা মিয়া কটন, মেঘনা পেট, স্ট্যান্ডার্ড সিরামিক ও রহিমা ফুড।

বুধবার চট্টগ্রাম স্টক এক্সচেঞ্জে (সিএসই) ৪৩ কোটি টাকার শেয়ার লেনদেন হয়েছে। এদিন সিএসই সার্বিক সূচক ৭২ পয়েন্ট বেড়ে দাঁড়িয়েছে ১৩ হাজার ৯২৭ পয়েন্টে। সিএসইতে মোট লেনদেন হয়েছে ২২৯ কোম্পানি ও মিউচুয়াল ফান্ডের শেয়ার। এর মধ্যে দর বেড়েছে ১৪৫, কমেছে ৫৮ এবং অপরিবর্তিত রয়েছে ২৬টির।

সিএসইর লেনদেনের সেরা কোম্পানিগুলো হলো- তসরিফা ইন্ডাস্ট্রিজ, হিডেলবার্গ সিমেন্ট, এসিআই ফর্মূলেশন, ইউনাইটেড এয়ার, বার্জার পেইন্টস, বেক্সিমকো, বিএসআরএম লিমিটেড, লাফার্জ সুরমা সিমেন্ট, মবিল যমুনা বাংলাদেশ ও ফ্যামিলি টেক্স।

প্রকাশিত : ১৮ জুন ২০১৫

১৮/০৬/২০১৫ তারিখের খবরের জন্য এখানে ক্লিক করুন


ব্রেকিং নিউজ: