কুয়াশাচ্ছন্ন, তাপমাত্রা ২২.২ °C
 
৩ ডিসেম্বর ২০১৬, ১৯ অগ্রহায়ণ ১৪২৩, শনিবার, ঢাকা, বাংলাদেশ
শীর্ষ সংবাদ

রোবটের জন্য কবিতা

প্রকাশিত : ১৩ জুন ২০১৫

১৯৮৯ সালে আমেরিকান লেখক নর্ম্যান কাজিন তাঁর একটি লেখায় দাবি করেছিলেন, একমাত্র কবিতাই হয়ত মানুষ এবং রোবটের মধ্যে পার্থক্য সৃষ্টি করবে। তিনি লিখেছিলেন, কবিরাই পারবে মানুষকে অনেক বেশি ভাবাতে, অনেক অনুপ্রেরণা জোগাতে। প্রযুক্তির কাছে হয়ত অধরাই থেকে যাবে মানুষের অনুভূতিগুলো।ব্রিটিশ গণমাধ্যম দ্য গার্ডিয়ান থেকে জানা যায়, ২৬ বছর পর যুক্তরাষ্ট্রের গবেষকরা ঠিক এই ধারণা নিয়েই গবেষণা শুরু করেছেন। তাঁরা গবেষণার প্রথম ভাগে কাজ করছেন সার্চ ইঞ্জিন এবং অনলাইন ছবির ডাটাবেজ নিয়ে। কোন রূপক শব্দ কিংবা উপমা সার্চ করলে সার্চইঞ্জিন বেশির ভাগ ক্ষেত্রেই ভুল তথ্য দেয়। যেমন ধরা যাক কেউ যদি গুগলে ‘বিষাদ’ লিখে সার্চ বাটনে ক্লিক করে তবে হয়ত একজন ক্রন্দনরত মানুষের ছবি পর্দায় আসবে। কিন্তু মানুষের কাছে বিষাদের অনুভূতির প্রকাশ শুধু কান্নার ভেতরেই আটকে থাকে না। কেউ হয়ত বিষাদের অনুভূতি প্রকাশ করবে শূন্য এক বনভূমিতে কিংবা কুয়াশাচ্ছন্ন কোন সমুদ্রতীরের মাধ্যমে। সার্চ ইঞ্জিন মূলত ইন্টারনেটে ছড়িয়ে

থাকা

বিভিন্ন

ডিজিটাল

মাধ্যম থেকে

নির্দিষ্ট ছকে

বাধা

প্রোগ্রামিংয়ের

সাহায্যে

সবচেয়ে

গ্রহণযোগ্য একটি উত্তর বাছাইয়ের কাজ করে। এই প্রক্রিয়া মানুষের মস্তিষ্ক থেকে বেশ ভিন্ন। ‘পোয়েট্রি ফর রোবট’ নামের এই প্রজেক্ট চেষ্টা করবে রোবট তথা কম্পিউটারকে মানুষের মতো করে ভাবতে শেখাতে। গবেষকরা এ জন্য ১২০টি ছবি তাদের ওয়েবসাইটে আপলোড করেছেন। যে কেউ সেসব ছবি থেকে তাঁদের মনে সৃষ্টি হওয়া কাব্য কিংবা উপমা লিখে নিয়ে আসতে পারবেন সেখানে। আর কবিতা কিংবা উপমা থেকে কম্পিউটারের জন্য বোধগম্য করে প্রোগ্রাম সাজাবেন তাঁরা! নিওলজিক ল্যাব, ওয়েবভিশন এবং এ্যারিজোনা স্টেট ইউনিভার্সিটির যৌথ উদ্যোগে পরিচালিত হচ্ছে এ প্রজেক্ট। তারপরও যাদের মনে খটকা লাগছে আসলেই কি কম্পিউটারের চিপে কাব্যরসের জন্ম হবে? তাদের অপেক্ষা করতে হবে আর দুই মাস। আগামী সেপ্টেম্বরে যুক্তরাষ্ট্রের শিকাগোতে অনুষ্ঠিত হবে ওয়েবভিশনের টেকনোলজি কনফারেন্স। সেখানেই সবকিছু সম্পর্কে বিস্তারিত জানাবেন গবেষকরা।

সূত্র : এনটিভি নিউজ

প্রকাশিত : ১৩ জুন ২০১৫

১৩/০৬/২০১৫ তারিখের খবরের জন্য এখানে ক্লিক করুন


ব্রেকিং নিউজ: