মূলত পরিষ্কার, তাপমাত্রা ২১.১ °C
 
১১ ডিসেম্বর ২০১৬, ২৭ অগ্রহায়ণ ১৪২৩, রবিবার, ঢাকা, বাংলাদেশ
শীর্ষ সংবাদ

ফতুল্লা টেস্ট: বৃষ্টি বাধায় দিনের শেষ সেশন

প্রকাশিত : ১২ জুন ২০১৫, ০৪:০৪ পি. এম.

অনলাইন ডেস্ক ॥ টাইগার বোলারদের গর্জন শুরু হলে আবারো ফতুল্লার আকাশে বর্ষণ শুরু হয়েছে। মধ্যাহ্ন বিরতির পর সফরকারীদের চেপে ধরেছে টাইগার বোলাররা। দুপুর ২টা ৫০ মিনিটে ফের বৃষ্টি নামলে ম্যাচের আম্পায়াররা খেলা বন্ধ করতে বাধ্য হন। শেষ খবর অনুযায়ী ভারী বর্ষণ শুরু হয়েছে ফতুল্লায়।

এ রিপোর্ট লেখা অবধি ভারতের সংগ্রহ ৬ উইকেট হারিয়ে ৪৬২ রান। ব্যাটিং উইকেটে রয়েছেন হরভজন সিং এবং রবীচন্দ্রন অশ্বিন।

তৃতীয় দিনের প্রথম সেশন শেষে বৃষ্টির আশংকা কাটিয়ে মাঠে নামে বাংলাদেশ-ভারত। ৯৭.১ ওভার খেলা হওয়ার পর দুপুর ২.১০ মিনিটে আবারো বৃষ্টি নামলে আম্পায়াররা দ্বিতীয় সেশনের খেলা বন্ধ রাখার ঘোষণা দেন। ১৫ মিনিট পরে বৃষ্টি থেমে গেলে ফের মাঠে নামেন ক্রিকেটাররা।

১১৪ রানের পার্টনারশিপ গড়ে দলকে টেনে নিয়ে যাচ্ছিলেন বিজয় ও রাহানে। তবে, বৃষ্টি থেমে যাওয়ার পর তৃতীয় বলের মাথায় (ইনিংসের ৯৭.৪ ওভার) সাকিবের ঘূর্ণিতে এলবি’র ফাঁদে পড়েন বিজয়। আউট হওয়ার আগে তিনি ১৫০ রান করেন। ২৭২ বলে ১২টি চার আর একটি ছয়ে বিজয় তার ইনিংসটি সাজান।

ফতুল্লার আকাশে গর্জন থেমে গেলেও শুরু হয় টাইগার বোলারদের গর্জন। সাকিবের চতুর্থ আর জুবায়েরের দ্বিতীয় শিকারের পর ভারত তাদের ষষ্ঠ উইকেট হারায়। সাকিবের চতুর্থ শিকারে সাজঘরে ফেরেন শতক থেকে দুই রান দূরে থাকা রাহানে।

দলীয় ৪২৪ রানের মাথায় সাকিবের তৃতীয় শিকারে সাজঘরে ফেরেন মুরালি বিজয়। বিজয়ের বিদায়ে ব্যাটিং করতে নামেন ঋদ্ধিমান সাহা। জুবায়ের হোসেনের করা দলীয় ১০১তম ওভারের শেষ বলে বোকা বনে গিয়ে সরাসরি বোল্ড হন সাহা। অসাধারণ এক গুগলিতে সাহাকে বোল্ড করেন জুবায়ের।

এর আগে দ্বিতীয় সেশনের প্রথম থেকেই হাত খুলে খেলার চেষ্টা করেন ভারতের দুই অপরাজিত ব্যাটসম্যান মুরালি বিজয় আর অজিঙ্কা রাহানে। কৌশলগত ভাবেই দ্রুত রান তুলে ইনিংস ঘোষণা করার দিকে এগুতে থাকে টিম ইন্ডিয়া।

তৃতীয় দিনের মধ্যাহ্ন বিরতির পর শুরু হয় বৃষ্টি। কিছুক্ষণ খেলা বন্ধ থাকার পর আবারও মাঠে নামে বাংলাদেশ ও ভারত। মুরালি বিজয় ও অজিঙ্কা রাহানের ব্যাটে ভর করে বড় সংগ্রহের পথে এগুতে থাকে সফরকারীরা।

শুক্রবার (১২ জুন) ফতুল্লার খান সাহেব ওসমান আলী স্টেডিয়ামে তৃতীয় দিনের খেলা শুরু হয় সকাল সাড়ে ৯টায়।

প্রথম দিনের বিনা উইকেটে ২৩৯ রান নিয়ে তৃতীয় দিন (দ্বিতীয় দিনের খেলা পরিত্যক্ত) ব্যাটিংয়ে নামে সফরকারী ভারত। ক্যারিয়ারের ষষ্ঠ টেস্ট শতক তুলে নেন বিজয়।

ভারতের ওপেনিং জুটি ভাঙেন সাকিব আল হাসান। ডাবল সেঞ্চুরির আক্ষেপ নিয়ে ব্যক্তিগত ১৭৩ রানে কট এন্ড বোল্ড হয়ে প্যাভিলিয়নে ফেরেন শিখর ধাওয়ান। শিখর ধাওয়ান ও বিজয় ওপেনিং জুটিতে ২৮৩ রান করে শক্ত ভিত গড়ে দেন। ওয়ান ডাউনে নামা রোহিত শর্মা বিশ্বসেরা অলরাউন্ডার সাকিবের বলেই ক্লিন বোল্ড হয়ে সাজঘরে ফেরেন।

সাকিবের পর উইকেটের খাতায় নাম লেখান জুবারের হোসেন। ভারতীয় অধিনায়ক বিরাট কোহলি (১৪) এই লেগ স্পিনারের বলে বোল্ড হয়ে মাঠ ছাড়েন। তিন উইকেটের পতন ঘটলেও রানের খাতা সচল রাখেন বিজয় ও রাহানে।

এর আগে প্রবল বৃষ্টিপাতের কারণে দ্বিতীয় দিনে একটি বলও মাঠে গড়ায়নি। প্রথম দিনেও বৃষ্টি বাগড়া দেয়। ফলে, ৫৬ ওভার ব্যাট করার সুযোগ পায় টস জেতা ভারত। দ্বিতীয় দিনের খেলা পরিত্যক্ত হয়।

এ ম্যাচে বাংলাদেশের হয়ে ৭৭তম টেস্ট ক্রিকেটার হিসেবে অভিষেক হয় উইকেটরক্ষক-ব্যাটসম্যান লিটন কুমার দাসের। দলে জায়গা হয়নি নাসির হোসেনের। ইনজুরি আক্রান্ত মাহমুদুল্লাহ রিয়াদের জায়গায় সুযোগ পেলেও তাকে প্রথম একাদশে রাখা হয়নি। অন্যদিকে, দীর্ঘদিন পর ভারতের টেস্ট স্কোয়াডে সুযোগ পেয়েছেন অভিজ্ঞ স্পিনার হরভজন সিং।

প্রকাশিত : ১২ জুন ২০১৫, ০৪:০৪ পি. এম.

১২/০৬/২০১৫ তারিখের খবরের জন্য এখানে ক্লিক করুন


ব্রেকিং নিউজ: