মূলত পরিষ্কার, তাপমাত্রা ২১.১ °C
 
১০ ডিসেম্বর ২০১৬, ২৬ অগ্রহায়ণ ১৪২৩, শনিবার, ঢাকা, বাংলাদেশ

জিয়ার মৃত্যুবার্ষিকী পালনের মাধ্যমে নেতাকর্মীদের সক্রিয় করতে চায় বিএনপি

প্রকাশিত : ২৪ মে ২০১৫, ০১:৪৬ এ. এম.

স্টাফ রিপোর্টার ॥ কোন কর্মসূচী না থাকায় নিষ্ক্রিয় হয়ে পড়ছে বিএনপির নেতাকর্মীরা। তাই আপাতত জিয়াউর রহমানের মৃত্যুবার্ষিকী পালনের মধ্য দিয়ে ঝিমিয়েপড়া নেতাকর্মীদের সক্রিয় করতে চায় বিএনপি। এ জন্য হাতে নেয়া হয়েছে ১৫ দিনের কর্মসূচী। এ কর্মসূচী সফল করতে দলের সর্বস্তরের নেতাকর্মীদের বিএনপি চেয়ারপার্সন খালেদা জিয়ার পক্ষ থেকে নির্দেশনা দেয়া হয়েছে।

উল্লেখ্য, টানা অবরোধ কর্মসূচী চলাকালে ৯২ দিন পর গুলশান কার্যালয় ছেড়ে বিএনপি চেয়ারপার্সন খালেদা জিয়া বাসায় ফিরে যাওয়ার পর থেকে আর কোন কর্মসূচী পালন করছে না বিএনপি। ৩ সিটি কর্পোরেশন নির্বাচনে অংশ নেয়ার মধ্য দিয়ে দলের নেতাকর্মীদের চাঙ্গা করার চেষ্টা করে দলটি। কিন্তু নির্বাচন বর্জন করায় বিএনপির সে কৌশলও ব্যর্থ হয়। এতে দলের সর্বস্তরের নেতাকর্মীদের মধ্যে নেমে আসে হতাশা। সম্প্রতি বিএনপি চেয়ারপার্সন খালেদা জিয়া দলের গঠনতন্ত্রের ক্ষমতাবলে একক সিদ্ধান্তে কেন্দ্রীয় কমিটিতে ২ নেতাকে নিয়োগ দেন। এ ঘটনাকে নিয়ে ভেতরে ভেতরে বিএনপি নেতাদের মধ্যে চরম দ্বন্দ্ব দেখা দেয়। যদিও বিএনপির পক্ষ থেকে দলের ভাইসচেয়ারম্যান সেলিমা রহমান সংবাদ সম্মেলন করে কেন্দ্রীয় কমিটিতে ২ নেতার নিয়োগ নিয়ে দলে কোন সমস্যা হয়নি বলে জানিয়েছেন। সেলিমা রহমানের সংবাদ সম্মেলনের পর দিন বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য ব্যারিস্টার মওদুদ আহমদ ও নজরুল ইসলাম খানকে দিয়ে গুলশান কার্যালয়ে সংবাদ সম্মেলন করে জিয়ার মৃত্যুবার্ষিকী উপলক্ষে ১৫ দিনব্যাপী কর্মসূচী পালনের ঘোষণা দেওয়ান চেয়ারপার্সন খালেদা জিয়া। দলের নিষ্ক্রিয় নেতাকর্মীদের সক্রিয় করতেই এই লম্বা কর্মসূচী দেয়া হয়েছে বলে সংশ্লিষ্ট সূত্রে জানা গেছে।

জানা যায়, প্রতিবছর বিএনপির প্রতিষ্ঠাতা সাবেক রাষ্ট্রপতি প্রয়াত জিয়াউর রহমানের মৃত্যুবার্ষিকী উপলক্ষে ১০ দিনের কর্মসূচী গ্রহণ করা হয়। কিন্তু এবার বিএনপি ১৫ দিনব্যাপী কর্মসূচী পালনের ঘোষণা দিয়েছে। টানা অবরোধ ও দফায় দফায় হরতাল কর্মসূচী ব্যর্থ হওয়ার পর অন্য কোন কর্মসূচী না থাকায় এবার জিয়াউর রহমানের মৃত্যুবার্ষিকীর কর্মসূচী বাড়িয়ে দেয়া হয়েছে।

২৭ মে অঙ্গ সংগঠন মহিলা দলের আলোচনা সভার মধ্য দিয়ে জিয়ার ৩৪তম মৃত্যুবার্ষিকী উপলক্ষে বিএনপির ১৫ দিনের কর্মসূচী শুরু হবে। ২৮ মে খালেদা জিয়ার উপস্থিতিতে বিএনপি কেন্দ্রীয়ভাবে রাজধানীর ইঞ্জিনিয়ার্স ইনস্টিটিউশন মিলনায়তনে আলোচনা সভা, ২৯ মে সারাদেশের সব মহানগর, জেলা ও উপজেলা পর্যায়ে বিএনপি ও এর অঙ্গ-সহযোগী সংগঠন আয়োজিত আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হবে। ৩০ মে খালেদা জিয়ার নেতৃত্বে জিয়ার মাজারে সর্বস্তরের নেতাকর্মীদের পুষ্পস্তবক অর্পণ, সারাদেশে দলীয় কার্যালয়গুলোতে দলীয় পতাকা উত্তোলন, কালোব্যাচ ধারণ, শোক র‌্যালি এবং ওলামা দলের আয়োজনে দোয়া মাহফিল ছাড়াও থাকছে ডক্টরস এ্যাসোসিয়েশন অব বাংলাদেশ (ড্যাব) আয়োজিত স্বেচ্ছায় রক্তদান কর্মসূচী। এর পাশাপাশি ৩০ মে থেকে ১ জুন পর্যন্ত তিন দিন দেশব্যাপী গরিব-দুস্থদের মাঝে খাবার বিতরণ করবে বিএনপি। রাজধানীতে এ কর্মসূচী পালন করবে ঢাকা মহানগর বিএনপি। ৩০ মে ঢাকা মহানগর দক্ষিণে এবং ৩১ মে ঢাকা মহানগর উত্তরে দুস্থদের মাঝে খাবার বিতরণ কর্মসূচীতে অংশ নেবেন বিএপির চেয়ারপার্সন খালেদা জিয়া। এছাড়াও ১ জুন থেকে ১০ জুন পর্যন্ত বিএনপির বিভিন্ন অঙ্গ ও সহযোগী সংগঠন জিয়াউর রহমানের কর্মময় জীবনের ওপর আলোচনা সভা আয়োজন করবে।

জামিন পেলে আজ থেকে জনসম্মুখে আসবেন মির্জা আব্বাস ॥ আদালতের নিষেধাজ্ঞা থাকায় বাসায় অবস্থান করলেও দীর্ঘদিন ধরে জনসম্মুখে আসতে পারেননি বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য মির্জা আব্বাস। এমনকি ঢাকা দক্ষিণ সিটি কর্পোরেশন নির্বাচনে মেয়র প্রার্থী হলেও প্রচারে নামতে পারেননি তিনি। তার পক্ষে তার স্ত্রী আফরোজা আব্বাস নির্বাচনী প্রচারে মাঠে ছিলেন। আজ রবিবার মির্জা আব্বাসের নাশকতার দুই মামলায় জামিন নেয়ার জন্য হাইকোর্টে হাজির হওয়ার কথা রয়েছে। জামিন পেলে তিনি আজ থেকেই জনসম্মুখে আসবেন বলে জানা গেছে। এ ছাড়া জামিন পেলে দ্রুতই তিনি ঢাকা মহানগর বিএনপির বিভিন্ন কর্মকা- নিয়ে সক্রিয় হবেন এমনটিই জানিয়েছেন তার ঘনিষ্ঠজনরা।

প্রকাশিত : ২৪ মে ২০১৫, ০১:৪৬ এ. এম.

২৪/০৫/২০১৫ তারিখের খবরের জন্য এখানে ক্লিক করুন


ব্রেকিং নিউজ: