মূলত পরিষ্কার, তাপমাত্রা ২১.১ °C
 
১১ ডিসেম্বর ২০১৬, ২৭ অগ্রহায়ণ ১৪২৩, রবিবার, ঢাকা, বাংলাদেশ
শীর্ষ সংবাদ

মনজুর আলমের নির্বাচনী ইশতেহার ঘোষণা ॥ চট্টগ্রামের উন্নয়নের অঙ্গীকার

প্রকাশিত : ২৪ এপ্রিল ২০১৫

স্টাফ রিপোর্টার, চট্টগ্রাম অফিস ॥ চট্টগ্রাম সিটি নির্বাচনে বিএনপি সমর্থিত মেয়র প্রার্থী এম মনজুর আলম বৃহস্পতিবার ৫৪ দফা নির্বাচনী ইশতেহার ঘোষণা করেছেন। এ সময় তিনি বলেছেন, বর্তমান সরকারের সহযোগিতা নিয়ে অতীতে চট্টগ্রাম নগরীর উন্নয়ন করেছি। আগামীতেও এ সরকারের সহযোগিতা নিয়ে বিএনপির নয় চট্টগ্রামের মেয়র হিসেবে এ নগরীর সমস্যা ও উন্নয়নে কাজ করে যাব। তাঁর পক্ষে নির্বাচনী জোয়ার বইছে বলে দাবি করে বিএনপি সমর্থিত এ প্রার্থী বলেন, চট্টগ্রামকে একবিংশ শতাব্দীর একটি বাসযোগ্য শহর হিসেবে গড়ে তুলতে প্রয়োজন চট্টগ্রামের সচেতন ভোটারদের সঠিক সিদ্ধান্ত। আর তা হচ্ছে চট্টগ্রাম শহর আগামী দিনে সন্ত্রাসী, চাঁদাবাজ, দলবাজের অভয়ারণ্য হবে, না নিরাপদ, সন্ত্রাসমুক্ত জনপদ হবে। এ সিদ্ধান্ত সম্মানিত ভোটারদের। তিনি বলেন, আগামী ২৮ এপ্রিল নগরবাসীর সুচিন্তিত মতামত ও ভোটের মাধ্যমে এ শহরকে একটি শান্তিময় দুর্নীতিমুক্ত আবাস হিসেবে গড়ে তোলার বৃহৎ ও মহৎ স্বপ্নের সহযাত্রী হওয়ার সুযোগ এসেছে। বৃহস্পতিবার স্থানীয় একটি কমিউনিটি সেন্টারে চট্টগ্রাম উন্নয়ন আন্দোলনের মেয়র প্রার্থী এম মনজুর আলম তাঁর নির্বাচনী ইশতেহার ঘোষণার সময় এসব কথা বলেন।

মেয়র প্রার্থী মনজুর আলম বলেন, মেয়র হিসেবে আমি কোন দলের ছিলাম না। সিটি কর্পোরেশনকে দলীয়করণ করিনি। যখন চেয়ারে বসব তখন আমি সকলের মেয়র। বিএনপি সমর্থিত প্রার্থী হিসেবে মেয়র নির্বাচিত হলে নগরীর উন্নয়নে সরকারী সহযোগিতা কম পাওয়া যাবে বলে যে প্রচার রয়েছে সে প্রসঙ্গে জানতে চাইলে মনজুর আলম বলেন, প্রধানমন্ত্রী যদি আমাকে অপছন্দ করতেন তাহলে আমি ২৯৭ কোটি টাকার বরাদ্দ পেতাম না, ৫শ’ কোটি টাকার এডিপি পেতাম না। আমি চট্টগ্রামের মেয়র পরিচয়েই প্রধানমন্ত্রীর কাছে গেছি, তিনি আমাকে যথেষ্ট সহায়তা করেছেন। আবারও নির্বাচিত হলে চট্টগ্রামের মেয়র হিসেবেই সরকারের কাছে সহযোগিতা চাইব। নির্বাচনী ইশতেহার ঘোষণার সময় উপস্থিত ছিলেন বিএনপির কেন্দ্রীয় ভাইস চেয়ারম্যান আবদুল্লাহ আল নোমান, এলডিপি সভাপতি কর্নেল (অব) অলি আহমদ বীরবিক্রম, নগর বিএনপি সভাপতি আমীর খসরু মাহমুদ চৌধুরী, বিএনপি চেয়ারপার্সনের উপদেষ্টা মীর মোহাম্মদ নাসির উদ্দিন, দলের কেন্দ্রীয় নেতা সৈয়দ ওয়াহিদুল আলম, গোলাম আকবর খন্দকার, নগর বিএনপি নেতা শামসুল আলমসহ নেতৃবৃন্দ। ইশতেহার পাঠ করেন চট্টগ্রাম উন্নয়ন আন্দোলনের চেয়ারম্যান আবুল কালাম আজাদ।

সন্ত্রাসমুক্ত নগর, ফরমালিনমুক্ত খাবার ও উন্নত চট্টগ্রাম গড়ার প্রতিশ্রুতি ব্যক্ত করা এ ইশতেহারে স্থান পায় নগরীর জীবনযাত্রার মানোন্নয়ন, ব্যবসাবান্ধব পরিবেশ সৃষ্টি, শিক্ষা ও স্বাস্থ্যসহ বিভিন্ন ক্ষেত্রে উন্নয়ন সাধনের পরিকল্পনা। মেয়র প্রার্থী এম মনজুর আলমের ৫৪ দফার মধ্যে এবারও গুরুত্ব দেয়া হয়েছে নগরীকে জলাবদ্ধতা থেকে সম্পূর্ণ মুক্ত রাখার বিষয়টি। এরজন্য তিনি জোয়ারের পানি প্রবেশ রোধে স্লুইচগেট নির্মাণ, চট্টগ্রাম বন্দর গৃহীত ড্রেজিং প্রকল্প বাস্তবায়নের পদক্ষেপের কথা উল্লেখ করেন। নির্বাচনী ইশতেহারে আরও বলা হয়Ñ নগরবাসীর জন্য সুপেয় পানি, নগরীকে পরিচ্ছন্ন রাখতে বর্জ্য ব্যবস্থাপনা ও বর্জ্য প্যাকেট ও এডিবির অর্থায়নে আবর্জনা অপসারণের সেকেন্ডারি ট্রান্সফার স্টেশন স্বল্প সময়ের মধ্যে চালু করা হবে। তথ্য প্রযুক্তির সমন্বয় ঘটিয়ে চট্টগ্রামে একটি ডিজিটাল পাঠাগার ও গবেষণাগার স্থাপন করা হবে। বিদেশী পর্যটক আকর্ষণ ও নগরীর অর্থনৈতিক ভিত্তি সুদৃঢ় করার লক্ষ্যে মীরসরাই পর্যন্ত সমুদ্র সৈকত উন্নয়ন ও দেশী-বিদেশী সহায়তায় পিপিপির আওতায় বিভিন্ন গ্রহণ ও বিনোদন কেন্দ্র নির্মাণ করা হবে। চট্টগ্রামে বিশ্বমানের অন্তত একটি চিকিৎসা কেন্দ্র প্রতিষ্ঠার ক্ষেত্রে সহযোগিতা করা হবে।

প্রকাশিত : ২৪ এপ্রিল ২০১৫

২৪/০৪/২০১৫ তারিখের খবরের জন্য এখানে ক্লিক করুন


ব্রেকিং নিউজ: