মূলত পরিষ্কার, তাপমাত্রা ২১.১ °C
 
১০ ডিসেম্বর ২০১৬, ২৬ অগ্রহায়ণ ১৪২৩, শনিবার, ঢাকা, বাংলাদেশ

২১ আগস্ট গ্রেনেড হামলা মামলায় সাক্ষ্য দিলেন ডাঃ প্রাণ গোপাল

প্রকাশিত : ২৩ এপ্রিল ২০১৫

কোর্ট রিপোর্টার ॥ ২১ আগস্ট গ্রেনেড হামলা মামলায় সাক্ষ্য দিলেন বঙ্গবন্ধু মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালের (পিজি) নাক, কান ও গলা বিভাগের বিভাগীয় প্রধান ডাঃ প্রাণ গোপাল দত্ত। পুরান ঢাকার কেন্দ্রীয় কারাগারের সামনে স্থাপিত ঢাকার এক নম্বর দ্রুতবিচার ট্রাইব্যুনালের অস্থায়ী এজলাসে বর্তমান প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার গ্রেনেড বিস্ফোরণের শব্দে ডান কানে যে সমস্যা হয়েছে সে সম্পর্কে বুধবার তিনি সাক্ষ্য দেন।

প্রয়াত রাষ্ট্রপতি জিল্লুর রহমানের স্ত্রী আইভি রহমানের সুরতহালের সাক্ষী রোকেয়া বেগমও সাক্ষ্য দিয়েছেন। এ নিয়ে মামলাটিতে ১২৮ জনের সাক্ষ্যগ্রহণ শেষ হলো। বিচারক মোঃ শাহেদ নূর উদ্দিন আগামী ৪ ও ৫ মে পরবর্তী সাক্ষ্যগ্রহণের দিন ধার্য করেছেন।

এদিকে আগামী ধার্য তারিখে আওয়ামী লীগের প্রচার সম্পাদক ড. হাসান মাহমুদ ও বর্তমান প্রধানমন্ত্রীর তৎকালীন নিরাপত্তারক্ষী সৈয়দ আহমেদ তরিকুল্লাহ এবং ওই ঘটনায় নিহত আইভি রহমানের ছেলে বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ডের সভাপতি নাজমুল হাসান পাপনকে সাক্ষ্য দিতে আসতে সমন জারি করা হয়েছে।

এ মামলায় রাষ্ট্রপক্ষের প্রধান আইনজীবী সৈয়দ রেজাউর রহমান। তাঁর সহকারী আইনজীবী আকরাম উদ্দিন শ্যামল জানান, ড. হাসান মাহমুদ ও সৈয়দ আহমেদ তরিকুল্লাহ ওইদিন ঘটনাস্থলে উপস্থিত ছিলেন। ঘটনা যা দেখেছেন ওই সম্পর্কে তারা সাক্ষ্য দেবেন। অন্যদিকে নাজমুল হাসান পাপন মা আইভি রহমানের সুরতহালের সাক্ষী হওয়ায় তিনি ওই সম্পর্কেই সাক্ষ্য দেবেন।

এদিকে সাক্ষীর জবানবন্দীতে ডাঃ প্রাণ গোপাল দত্ত বলেন, ২০০৪ সালের ২১ আগস্ট বঙ্গবন্ধু এভিনিউয়ে গ্রেনেড হামলার ঘটনার পর তৎকালীন বিরোধীদলীয় নেত্রী বর্তমান প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা কানে কম শুনছিলেন বিধায় ২৩ আগস্ট তিনি (প্রাণ গোপাল) শেখ হাসিনার তৎকালীন বাসায় যান।

তিনি শেখ হাসিনার কান পরীক্ষা করে দেখতে পান যে, ডান কানের ভেতর রক্ত জমা হয়ে আছে। এরপর তিনি কানের পরীক্ষা-নিরীক্ষা করে বুঝতে পারেন যে, গ্রেনেড বিস্ফোরণের শব্দে ডান কানের পর্দা ফেটে এমনি হয়েছে। তাই তিনি শেখ হাসিনাকে উন্নত চিকিৎসার জন্য বিদেশে যাওয়ার পরামর্শ দেন। এরপর প্রধানমন্ত্রী বিদেশ গিয়ে কানের চিকিৎসা করালেও তা সম্পূর্ণ ঠিক হয়নি। ওই কারণে এখনও তিনি ডান কানে কম শোনেন। তাই তিনি এখন ডান কানে হিয়ারিং এইড ব্যবহার করেন। সাক্ষ্যগ্রহণকালে সাবেক মন্ত্রী জামায়াত নেতা আলী আহসান মুহাম্মদ মুজাহিদ, সাবেক স্বরাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী লুৎফুজ্জামান বাবর, হুজি নেতা মুফতি আবদুল হান্নানসহ এ মামলায় কারাগারে আটক আসামিদের আদালতে হাজির করা হয়।

প্রকাশিত : ২৩ এপ্রিল ২০১৫

২৩/০৪/২০১৫ তারিখের খবরের জন্য এখানে ক্লিক করুন


ব্রেকিং নিউজ: