মূলত পরিষ্কার, তাপমাত্রা ২১.১ °C
 
১০ ডিসেম্বর ২০১৬, ২৬ অগ্রহায়ণ ১৪২৩, শনিবার, ঢাকা, বাংলাদেশ
শীর্ষ সংবাদ

আন্তর্জাতিক মেরিটাইম প্রদর্শনীতে অংশ নিতে বানৌজা আবু বকরের যাত্রা

প্রকাশিত : ১৩ মার্চ ২০১৫

আগামী ১৭ হতে ২২ মার্চ পর্যন্ত মালয়েশিয়ার লংকাউইয়ে অনুষ্ঠিতব্য ‘লংকাউই ইন্টারন্যাশনাল মেরিটাইম এ্যান্ড এ্যারোস্পেস এক্সিবিশন (লিমা) ২০১৫’-এ অংশগ্রহণের উদ্দেশ্যে চট্টগ্রাম নৌ জেটি ত্যাগ করেছে বাংলাদেশ নৌবাহিনীর যুদ্ধজাহাজ ‘আবু বকর’। বৃহস্পতিবার দুপুরে নৌ জেটি ত্যাগের সময় জাহাজটিকে বিদায় জানান চট্টগ্রাম নৌ অঞ্চলের আঞ্চলিক কমান্ডার রিয়ার এডমিরাল এম আখতার হাবীবসহ স্থানীয় নৌ কর্মকর্তা, প্রদর্শনীতে গমনকারী নৌ কর্মকর্তা ও নাবিকদের পরিবারবর্গ।

ছয় দিনব্যাপী বৃহৎ এই সমরাস্ত্র প্রদর্শনী ও মহড়ায় বাংলাদেশ, যুক্তরাষ্ট্র, রাশিয়াসহ বিশ্বের বিভিন্ন দেশের নৌবাহিনীর জাহাজ, যুদ্ধবিমান এবং সামরিক ব্যক্তিবর্গ অংশগ্রহণ করবেন। প্রদর্শনীতে মেরিটাইম ও মহাকাশ বিষয়ক সেমিনার এবং ফ্লিট রিভিউ অনুষ্ঠিত হবে। বানৌজা ‘আবু বকর’-এর অধিনায়ক ক্যাপ্টেন এম মাহমুদুল মালেকের নেতৃত্বে ১৭ কর্মকর্তা, ১১ প্রশিক্ষণার্থী কর্মকর্তা এবং ১৭২ নাবিকসহ মোট ২০০ জন এই আন্তর্জাতিক প্রদর্শনীতে যোগদান করবেন। মালয়েশিয়ায় লিমা-২০১৫ এ অংশগ্রহণ শেষে দেশে ফেরার পথে বানৌজা ‘আবু বকর’ মিয়ানমারের ইয়াঙ্গুন বন্দরে দুইদিনের শুভেচ্ছা সফরে যাবে। সফর শেষে জাহাজটি আগামী ৩১ মার্চ দেশে প্রত্যাবর্তন করবে।

নৌবাহিনী পরিবার কল্যাণ সংঘের প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী ॥ বিভিন্ন আনুষ্ঠানিকতার মধ্য দিয়ে নৌবাহিনীর সকল নৌ অঞ্চলে বাংলাদেশ নৌবাহিনীর পরিবার কল্যাণ সংঘের (বিএনএফডব্লিউএ) ৩৯তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী পালিত হয়েছে। এ উপলক্ষে বৃহস্পতিবার ঢাকার মিরপুর-১৪ তে নাবিক কলোনি শহীদ মোয়াজ্জম হলে নাবিকদের সহধর্মিণীদের সঙ্গে মতবিনিময় ও বিশেষ মোনাজাত অনুষ্ঠিত হয়। অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন নৌ পরিবার কল্যাণ সংঘের প্রেসিডেন্ট বেগম হাফিজা হাবিব। এছাড়া অন্যান্যের মধ্যে বিএনএফডব্লিউএর কেন্দ্রীয় কমিটি, বিএনএফডব্লিউএ ঢাকা শাখা ও লেডিস ক্লাব ঢাকার সদস্যবৃন্দসহ উর্ধতন নৌ কর্মকর্তাদের সহধর্মিণীরা উপস্থিত ছিলেন। Ñআইএসপিআর

বিমানবাহিনীর কমান্ড সেফটি সম্মেলন অনুষ্ঠিত

ঢাকায় বাংলাদেশ বিমানবাহিনীর দিনব্যাপী ৩৮তম বার্ষিক কমান্ড সেফটি সম্মেলন বিমানবাহিনী ফ্যালকন হলে বৃহস্পতিবার অনুষ্ঠিত হয়েছে। বিমানবাহিনী প্রধান এয়ার মার্শাল মোহাম্মদ ইনামুল বারী সম্মেলনে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত থেকে বক্তব্য রাখেন এবং ফ্লাইট সেফটি ট্রফি বিতরণ করেন। প্রধান অতিথি তাঁর বক্তব্যে বলেন, নিরাপত্তা একটি বিকাশমান প্রক্রিয়া যার মাধ্যমে বিমানবাহিনী ও বিমান পরিচালনা সংস্থাসমূহ তাদের উদ্ভাবনী ধারা ও প্রক্রিয়ার উন্নয়নের মাধ্যমে বিমান দুর্ঘটনা রোধ করে থাকে।

তিনি আরও বলেন, ২০১৪ সালে জাতিসংঘ শান্তিরক্ষা মিশনে বাংলাদেশ বিমানবাহিনীর পরিবহন বিমান সি -১৩০, এমআই-১৭ এবং বেল-২১২ হেলিকপ্টারের মাধ্যমে ঝুঁকিপূর্ণ মিশন এলাকায় সফলতার সঙ্গে নিরাপদে ৪৭৫৪:১৩ ঘণ্টা উড্ডয়ন সম্পন্ন করে। ২০১৪ সালের উড্ডয়ন নিরাপত্তায় অসাধারণ সাফল্য অর্জনের জন্য বাংলাদেশ বিমানবাহিনী ঘাঁটি বাশার আন্তঃঘাঁটি ফ্লাইট সেফটি ট্রফি এবং ১১নং বহর আন্তঃস্কোয়াড্রন খাদেমুল বাশার ফ্লাইট সেফটি ট্রফি লাভ করে।

অনুষ্ঠানে প্রতিরক্ষা মন্ত্রণালয়, বেসামরিক বিমান ও পর্যটন মন্ত্রণালয়, সেনাবাহিনী, নৌবাহিনী, বাংলাদেশ ইউনিভার্সিটি অব প্রফেশনাল, ডিফেন্স সার্ভিসেস কমান্ড এ্যান্ড স্টাফ কলেজ, মিলিটারি ইনস্টিটিউট অব সায়েন্স এ্যান্ড টেকনোলজি, বেসামরিক বিমান চলাচল কর্তৃপক্ষ, র‌্যাপিড এ্যাকশন ব্যাটালিয়ন (র‌্যাব), বাংলাদেশ বিমান এবং বেসামরিক বিমান পরিবহন সংস্থাসমূহের প্রতিনিধিসহ বিমান সদর ও ঘাঁটিসমূহের উর্ধতন কর্মকর্তাগণ উপস্থিত ছিলেন।-আইএসপিআর

প্রকাশিত : ১৩ মার্চ ২০১৫

১৩/০৩/২০১৫ তারিখের খবরের জন্য এখানে ক্লিক করুন


ব্রেকিং নিউজ: