আংশিক মেঘলা, তাপমাত্রা ২২.২ °C
 
৮ ডিসেম্বর ২০১৬, ২৪ অগ্রহায়ণ ১৪২৩, বৃহস্পতিবার, ঢাকা, বাংলাদেশ
শীর্ষ সংবাদ

স্বাস্থ্য টিপস

প্রকাশিত : ১০ মার্চ ২০১৫
  • কফি কি হার্ট এ্যাটাক রোধ করে?

একটি গবেষক দল ২৫ হাজার নারী-পুরুষের ওপর গবেষণা চালান। নারী-পুরুষের গড় বয়স ছিল ৪১ বছর। তাদের কারোরই আগে হৃদরোগ ছিল না।

২৫ হাজার নারী-পুরুষের কফি পানের পরিমাণ ছিল- দিনে ১ কাপও না, দিনে ১ কাপ, দিনে ১ থেকে ৩ কাপ, ৩ থেকে ৫ কাপ দিনে এবং দিনে ৫ কাপের উর্ধে।

গবেষকরা দেখলেন, যারা দিনে ৩ থেকে ৫ কাপ কফি পান করেছে, তাদের শরীরে হৃদরোগের চিহ্ন খুব কম।

সিওলের ক্যাংবুক স্যামসাং হাসপাতালে গবেষণাটি পরিচালিত হয়। গবেষণায় এই বলে উপসংহার টানা হয়, কফি পান বেশি করলে হৃদরোগ কম হয়। অবশ্য এ ব্যাপারে আরও গবেষণা প্রয়োজন, এ কথাও উল্লেখ করা হয়েছে। গবেষকরা দেখেছিলেন : নর-নারীদের শিরা-উপশিরায় দৃশ্যমান ক্যালসিয়াম জমা হতো। এই ক্যালসিয়াম জমাটই হৃদরোগের চিহ্ন বলে মনে করা হয়। কফি পান এই দৃশ্যমান ক্যালসিয়াম জমা কমিয়ে দেয়।

প্যারাসিটামল বড়ি বেশি খাবেন না

প্যারাসিটামল বড়ি তথা নাপা, এইচ ইত্যাদি বেশি খাবেন না। কারণ প্যারাসিটামাল সেবন হৃদরোগ ও কিছু জটিলতা সৃষ্টি করে এবং মৃত্যুর হার বেড়ে যায়।

প্যারাসিটামল ব্যাথার জন্য যারা প্রায়ই খাচ্ছেন, তাঁরা সাবধান। দেখা গেছে ব্যাথার ডোজেই প্যারাসিটামল মৃত্যুঝুঁকি বাড়িয়ে দেয় হৃদরোগ, পরিপাকতন্ত্র , মূত্রনালী ও কিডনিজনিত জটিলতার কারণে।

গবেষণাটি চালিয়েছে ব্রিটেনের লিড ইনস্টিটিউট অব মেডিসিন।

লেবুর শরবতের উপকারিতা

ক্স প্রতিদিন লেবুর শরবত খেলে ভিটামিন ‘সি’র পর্যাপ্ত প্রাপ্তি ঘটে।

ক্স আপনার চোখকে বার্ধক্য তথা জরাগ্রস্ততা থেকে দূরে রাখে।

ক্স লিভার উত্তেজক ইরিটেবিল বাওয়েল সিনড্রম নামক রোগ প্রতিরোধ করে।

ক্স বদহজম দূর করে। শরীরে পানির পরিমাণ ঠিক রাখে।

ক্স শরীরের রোগ প্রতিরোধ ব্যবস্থাকে জোরালো করে।

ক্স শরীরের সুগারের পরিমাণ নিয়ন্ত্রণ করে।

ক্স কলেরা রোগ প্রতিরোধক হিসেবে কাজ করে।

বিভিন্ন অসুখ সারিয়ে তুলতে যে খাদ্যগুলো সাহায্য করে

কলা : আপনার স্ট্রোক ও দুশ্চিন্তা সারিয়ে দেয়।

ইউগার্ট : কোষ্ট্যকাঠিন্য দূর করে, গ্যাস বৃদ্ধি রোধ করে।

দারুচিনি : ব্লাড প্রেসারকে বাড়তে দেয় না।

এ্যাপ্রিকট: মূত্রনালী ও থলির পাথর হতে দেয় না।

আদা চা : বমি বমিস ভাব দূর করে।

নাশপাতি : কোলেস্টেরল বাড়তে দেয় না।

আলু : মাথার যন্ত্রণা কমায়।

কমলার রস : অবসন্নতা দূর করে।

পাতাকপি : আলসার রোধ করে।

রসুন : ইনফেকশন দূর করে।

চোখ দুটোকে কাজে-অকাজে ভাল রাখুন

ক্স কম্পিউটার থেকে কিছুক্ষণ পর পর বিরতি দিন।

ক্স মনে রাখুন ২০-২০-২০ নিয়ন অর্থাৎ প্রতি ২০ মিনিট পর পর আাপনার চোখ স্ক্রীন থেকে দূরে রাখুন। কোন কিছুতে ২০ সেকেন্ড ধরে অবলোকন করুন। ২০ সেমি দূর থেকে।

ক্স আপনার অফিসের বা বাসার চারিদিকের আলোর তুলনায় আপনার মনিটর বেশি উজ্জ্বল বা বেশি অন্ধকার হবে না।

ক্স এন্টি গ্লেয়ার স্ক্রিন ফিল্টার ব্যবহার করুন।

ক্স মাঝে মাঝে চোখের পলক আপনার চোখকে ধুয়ে দিয়ে থাকে।

স্তন ক্যান্সার প্রতিরোধ

প্রতি ৮ জনের ১ জন মহিলা স্তন ক্যান্সারে ভুগে থাকে। ডা. ক্রিস্টি ফাঙ্ক ৫টি প্রতিরোধ টিপস দিয়েছেন স্তন ক্যান্সারের।

৫. অ্যালকোহল পান কমিয়ে দিন। প্রতিদিন ১ রকমের মদ্যপান স্তন ক্যান্সারের ঝুঁকি ১০% বাড়িয়ে দেয় এবং ককটেল মদ্যপান স্তন ক্যান্সারের ঝুঁকি ৩০% বাড়িয়ে দেয়।

৪. শাকসবজি-ফলমূল বেশি খেতে হবে ব্রোকলি, স্পিনাক, গাজর, টমেটোতে প্রচুর ক্যান্সার প্রতিরোধী উপাদান আছে। কিন্তু তাপ দিলে এই ক্যান্সার প্রতিরোধ উপাদান বিনষ্ট হয়। তাই কাঁচা খেলেই ভাল।

৩. সচল থাকতে হবে। প্রতিদিন নিয়মিত ব্যায়াম ক্যান্সার প্রতিরোধী। প্রতিদিন ১১ মিনিটের হাঁটা ক্যান্সারের ঝুঁকি ১৮% কমিয়ে দেয়।

২. ঘি, বাটারওয়েল, মার্জারিন ক্যান্সারের ঝুঁকি বাড়ায়। পরিবর্তে ভেজিটেবল ওয়েল, ওলিভ ওয়েল ক্যান্সারের ঝুঁকি কমায়।

১. ৪০ বছর বয়স থেকে মেমোগ্রাম নিয়মিত প্রতিবছর করুন। মেমোগ্রামে শনাক্ত স্তন ক্যান্সার ৯৮% প্রতিরোধযোগ্য।

গোসলখানায় প্রতি সপ্তাহে হাত দিয়ে নিজ স্তন পরীক্ষা করুন

প্রকাশিত : ১০ মার্চ ২০১৫

১০/০৩/২০১৫ তারিখের খবরের জন্য এখানে ক্লিক করুন


ব্রেকিং নিউজ: