কুয়াশাচ্ছন্ন, তাপমাত্রা ২২.২ °C
 
৫ ডিসেম্বর ২০১৬, ২১ অগ্রহায়ণ ১৪২৩, সোমবার, ঢাকা, বাংলাদেশ
শীর্ষ সংবাদ

কেরানীগঞ্জে তৈরি পোশাক শিল্পে নেমেছে ধস

প্রকাশিত : ২১ ফেব্রুয়ারী ২০১৫
  • ১ হাজারের বেশি কারখানা ও শোরুম ক্ষতিগ্রস্ত

নিজস্ব সংবাদদাতা, কেরানীগঞ্জ ॥ রাজনৈতিক অস্থিরতা, হরতাল-অবরোধ ও সহিংসতায় নাজুক হয়ে উঠেছে কেরানীগঞ্জের তৈরি পোশাক শিল্পের অবস্থা। এখানে রয়েছে ১০ সহস্রাধিক কারখানা ও শো-রুম। গত ২ মাস আগেও তৈরি পোশাক কারখানাগুলোতে সকাল থেকে গভীর রাত পর্যন্ত চলত পোশাক তৈরির কাজ। শো-রুমগুলোতে ছিল বেশ ভাল বেচাকেনা। চলমান রাজনৈতিক অস্থিরতা কেরানীগঞ্জের তৈরি পোশাক শিল্পে নেমেছে ধস।

কেরানীগঞ্জ তৈরি পোশাক সমিতির সভাপতি আব্দুল আজিজ বলেন, চলমান রাজনৈতিক সঙ্কট, পোশাক শিল্পে অস্থিতরা, মফঃস্বলের পাইকারদের অর্ডার বাতিলসহ বন্ধ হয়ে গেছে পণ্য পরিবহন। সামগ্রিক অস্থিরতায় কারখানা মালিকেরা কাজের অর্ডার পাচ্ছে না। এ সময়ের মধ্যে অধিকাংশ কারখানার কার্যক্রম একেবারেই বন্ধ হয়ে গেছে। পোশাক শ্রমিকদের জীবন চলছে অতি কষ্টে ও অনাহারে। তিনি বলেন, দেশে চলমান অস্থিতিশীল রাজনীতির কারণে কারখানা মালিকরা তাদের মজুতকৃত পণ্য সরবরাহ করতে পারছে না। রাজনৈতিক সহিংসতার কারণে মফঃস্বলের ক্রেতারা ব্যবসার পরিধি কমিয়ে আনছে। ফলে ক্রমেই ক্রেতাদের অর্ডার বাতিল হয়ে যাচ্ছে।

কেরানীগঞ্জ তৈরি পোশাক মালিক সমিতির সাধারণ সম্পাদক মিজানুর রহমান জানান, নতুন বছরের জানুয়ারি মাস থেকে শুরু করে এখন পর্যন্ত প্রতিদিন উৎপাদন ব্যাহত হচ্ছে দেড়শ’ কোটি টাকা। এছাড়া পণ্যবাহী ট্রাক, কাভার্ডভ্যানের চালকরা অবরোধের কারণে নিরাপত্তার ভয়ে গাড়ি চালাতে চাচ্ছে না। তবে পুলিশি নিরাপত্তায় কিছু পণ্য সরবরাহ করলেও চাহিদার তুলনায় অনেক কম। আবার তাতে হচ্ছে কয়েকগুণ বাড়তি খরচ। ১৫ হাজার টাকার ট্রাক ভাড়া পুলিশী নিরাপত্তায় ৩০ থেকে ৪৫ হাজার টাকা দিতে হচ্ছে মালিকদের। এতে উৎপাদন খরচ কয়েকগুণ বেড়ে গেছে বলে অভিযোগ মালিকদের। আবার কারখানাগুলোতে নাশকতার আশঙ্কায় উদ্বিগ্ন মালিকসহ সংশ্লিষ্টরা। ইতোমধ্যে কেরানীগঞ্জ তৈরি পোশাক ও দোকান মালিক সমিতির সদস্যরা চলমান রাজনৈতিক অস্থিরতা বন্ধের দাবিতে মানববন্ধনসহ বিভিন্ন কর্মসূচী গ্রহণ করেছে। তারা হরতাল-অবরোধকারীদের গ্রেফতার ও উপযুক্ত শাস্তির দাবি করেন।

প্রকাশিত : ২১ ফেব্রুয়ারী ২০১৫

২১/০২/২০১৫ তারিখের খবরের জন্য এখানে ক্লিক করুন

দেশের খবর



ব্রেকিং নিউজ: