মূলত পরিষ্কার, তাপমাত্রা ২১.১ °C
 
১০ ডিসেম্বর ২০১৬, ২৬ অগ্রহায়ণ ১৪২৩, শনিবার, ঢাকা, বাংলাদেশ
শীর্ষ সংবাদ

স্যাটেলাইট জগতে প্রবেশের অপেক্ষায় ‘বঙ্গবন্ধু-১’

প্রকাশিত : ১৪ ডিসেম্বর ২০১৪
  • প্রকৃতি ও বিজ্ঞান ডেস্ক

মহাকাশে স্যাটেলাইট বা কৃত্রিম উপগ্রহ পাঠাতে আগ্রহী বাংলাদেশ। এজন্য বেশ কয়েক বছর ধরে চলছে কার্যক্রম। ‘বঙ্গবন্ধু-১’ নামে দেশের প্রথম স্যাটেলাইট উৎক্ষেপণের দায়িত্বে আছে বাংলাদেশ টেলিযোগাযোগ নিয়ন্ত্রক সংস্থা বিটিআরসি। বহুল প্রত্যাশিত ‘বঙ্গবন্ধু স্যাটেলাইট উৎক্ষেপণ’ শীর্ষক প্রকল্পের জন্য রাশিয়ার কাছ থেকে নেয়া অরবিটাল সøট লিজের প্রস্তাবে নীতিগত অনুমোদন দিয়েছে অর্থনৈতিক বিষয় সংক্রান্ত মন্ত্রিসভা কমিটি।

এ প্রকল্পের আওতায় ১১৯ দশমিক ১ ডিগ্রি পূর্ব দ্রাঘিমাংশ অরবিটাল সøট রাশিয়ার ইন্টারস্পুটনিকের (রহঃবৎংঢ়ঁঃহরশ) কাছ থেকে সরাসরি (একটি উৎস থেকে) লিজ নেবে বাংলাদেশ টেলিযোগাযোগ নিয়ন্ত্রণ কমিশন (বিটিআরসি)।

ভারত, চীন, জাপান, ইরান ও দক্ষিণ কোরিয়া স্বাধীন ও সফলভাবে নিজেদের স্যাটেলাইট উৎক্ষেপণ করেছে। বাংলাদেশও এই দলে শামিল হতে আগ্রহী। সফল তরঙ্গ সমন্বয় সাপেক্ষে বাংলাদেশ, সার্কভুক্ত দেশ, ইন্দোনেশিয়া, ফিলিপাইন ও এসটিএএনভুক্ত দেশের অংশবিশেষ কভারেজের আওতায় আসবে। প্রাথমিক কারিগরি নির্দেশ অনুযায়ী, স্যাটেলাইটে ৪০টি ট্রান্সপন্ডার থাকবে, যার মধ্যে ১৬টি সি-ব্যান্ড ও ২৪টি কেইউ ব্যান্ড ট্রান্সপন্ডার থাকবে। ২০১৭ সালের মধ্যে এ প্রকল্প বাস্তবায়নের লক্ষ্যমাত্রা নির্ধারণ করা হয়েছে।

প্রকল্পটিতে মোট ব্যয় হবে ২ হাজার ৯৬৭ কোটি ৯৫ লাখ টাকা। প্রকল্পের ৬টি কমপোনেন্টের মধ্যে শুধুমাত্র অরবিটাল সøট ক্রয়ের প্রস্তাবটি অনুমোদন দেয়া হয়েছে। সরাসরি ক্রয় পদ্ধতিতে রাশিয়ার ইন্টারস্পুটনিকের কাছ থেকে অরবিটাল সøট লিজ-ইন নেয়া হবে।

দেশের টেলিযোগাযোগ, ব্রডকাস্টিংসহ গবেষণা ও উন্নয়ন ক্ষেত্রে স্যাটেলাইটের চাহিদা বেড়েছে। ক্রমবর্ধমান তথ্যপ্রযুক্তি নির্ভর সেবা যেমন, ই-লার্নিং, ই-এডুকেশন, টেলিমেডিসিনসহ বিভিন্ন চাহিদা বৃদ্ধি পাচ্ছে।

এছাড়া দুর্যোগপূর্ণ সময়ে স্যাটেলাইট যোগাযোগ ব্যবস্থা বিদ্যমান টেরেস্ট্রিয়াল অবকাঠামোর বিকল্প একটি নিরবচ্ছিন্ন যোগাযোগ মাধ্যম হিসেবে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখতে পারে।

প্রকাশিত : ১৪ ডিসেম্বর ২০১৪

১৪/১২/২০১৪ তারিখের খবরের জন্য এখানে ক্লিক করুন


ব্রেকিং নিউজ: