রৌদ্রজ্জ্বল, তাপমাত্রা ২৩.৯ °C
 
৮ ডিসেম্বর ২০১৬, ২৪ অগ্রহায়ণ ১৪২৩, বৃহস্পতিবার, ঢাকা, বাংলাদেশ
শীর্ষ সংবাদ

মালবাহী জাহাজের ধাক্কায় ট্যাঙ্কারডুবি, শ্যালা নদীতে ভাসছে তেল

প্রকাশিত : ১০ ডিসেম্বর ২০১৪
  • জলজপ্রাণী ও বৃক্ষরাজি ধ্বংসের আশঙ্কা

স্টাফ রিপোর্টার, বাগেরহাট ও মংলা সংবাদদাতা ॥ পূর্ব সুন্দরবনের শরণখোলা ও চাঁদপাই রেঞ্জের মধ্যবর্তী শ্যালা নদীর মৃগামারী এলাকায় মালবাহী জাহাজের ধাক্কায় তলা ফেটে ‘এমভি ওটি সাউদার্ন স্টার সেভেন’ নামে একটি তেলবাহী অয়েল ট্যাংকার ডুবে গেছে। মঙ্গলবার ভোরে এ দুর্ঘটনা ঘটে। ডুবে যাওয়া ট্যাঙ্কারে থাকা তিন লাখ ৫৭ হাজার লিটার তেল ছড়িয়ে পড়ছে। এতে সুন্দরবনের ম্যানগ্রোভ গাছের শ্বাসমূলে তেলের আস্তরণ পড়ছে। যেখানে জাহাজটি ডুবেছে, সেই এলাকায় বিলুপ্তপ্রায় ইরাবতী ডলফিনসহ ছয় প্রজাতির ডলফিনের অভয়াশ্রম। পানিতে তেল ছড়িয়ে পড়ায় ডলফিন ও সুন্দরবনের মৎস্য ভা-ারসহ অন্য জলজ প্রাণী ও গাছপালা ক্ষতির আশঙ্কা দেখা দিয়েছে।সূত্র জানায়, মঙ্গলবার ভোর চারটার দিকে ঘন কুয়াশায় পেছন থেকে ‘এমভি টোটাল’ নামে অপর একটি ট্যাঙ্কার ধাক্কা দিলে নোঙর করা ওই তেলভর্তি ট্যাঙ্কারটি ডুবে যায়। এ ঘটনায় ট্যাঙ্কারের সাতজন সাঁতরে কূলে উঠলেও মাস্টার মোকলেসুর রহমান নিখোঁজ রয়েছেন। পুলিশ ও বনবিভাগ দুর্ঘটনার জন্য দায়ী ‘এমভি টোটাল’ জাহাজটি আটকের চেষ্টা চালাচ্ছে বলে শরণখোলা থানা পুলিশ জানায়।

বাংলাদেশ নৌযান শ্রমিক ফেডারেশনের যুগ্ম-সম্পাদক আবুল কাশেম মাস্টার জানান, মেসার্স হারুন এ্যান্ড কোং-এর মালিকানাধীন তেলবাহী এই জাহাজটি গত সোমবার খুলনার খালিশপুর ডিপো থেকে তিন লাখ ৫৭ হাজার ৬৬৮ লিটার তেল ভর্তি করে গোপালগঞ্জের একটি পাওয়ার প্লান্টের উদ্দেশে রওনা হয়। পথিমধ্যে সুন্দরবনের শ্যালা নদীর মৃগমারী এলাকায় যাত্রা বিরতি করে। মঙ্গলবার ভোর চারটার দিকে নোঙর করে থাকা তেলভর্তি জাহাজটিকে ঘন কুয়াশার মধ্যে পেছন দিক থেকে আসা জাহাজ ‘এমভি টোটাল’ ধাক্কা দেয়। এতে তলা ফেটে তেলবাহী জাহাজ ‘ওটি সাউদার্ন স্টার সেভেন’ ডুবে যায়। দুর্ঘটনার পর ট্যাঙ্কারে থাকা সাতজন সাঁতরে কূলে উঠতে সক্ষম হলেও মাস্টার মোকলেসুর রহমানের (৫০) খোঁজ মেলেনি।

সুন্দরবন পূর্ব বিভাগ ও মংলাবন্দর কর্তৃপক্ষ সূত্রে দাবি করা হয়েছে, তাদের কাছে পানিতে ভাসমান ও গাছের শ্বাসমূল থেকে তেল চুঁষে নেয়ার কোন ‘অয়েল সুইপার’ জলযান না থাকায় ডুবে যাওয়া ট্যাঙ্কার থেকে তেল অপসারণ করা সম্ভব হচ্ছে না। ওয়ার্ল্ড হেরিটেজ সাইট সুন্দরবনে এ কারণে দ্রুত তেল ছড়িয়ে পড়ছে। এ রিপোর্ট লেখা পর্যন্ত অয়েল ট্যাঙ্কারটির অবস্থান শনাক্ত করা সম্ভব হয়নি। ফলে ঝুঁকিপূর্ণ হয়ে পড়েছে বাংলাদেশ-ভারত আন্তর্জাতিক বিকল্প এই রুটটি।

খুলনা বিশ্ববিদ্যালয়ের অধ্যাপক ও পরিবেশবিদ ড. সরদার শহিদুল ইসলাম জানান, তেলবাহী ট্যাঙ্কার ফেটে যাওয়ায় সুন্দরবনের নদ-নদীতে তেল ছড়িয়ে পড়ায় সুন্দবনের জীব-বৈচিত্র্য হুমকির মুখে পড়বে। এছাড়া জোয়ার-ভাঁটার সঙ্গে বনের অভ্যন্তরে তেলের প্রলেপ জমে গেলে বনের মৎস্যসম্পদ ও পশু-পাখিসহ পরিবেশের মারাত্মক ক্ষতি হতে পারে।

সুন্দরবন পূর্ব বিভাগ বাগেরহাটের ডিএফও মোঃ আমীর হোসাইন চৌধুরী জানান, ‘এমভি টোটাল’ জাহাজটি আটকের চেষ্টা চলছে। ডুবে যাওয়া জাহাজ শনাক্ত ও নিখোঁজ ব্যক্তিকে উদ্ধারে সকাল ১০টা থেকে স্থানীয় ডুবুরী দল, কোস্টগার্ড ও সুন্দরবন বনবিভাগ অভিযান শুরু করেছে। নৌবাহিনীও ডুবে যাওয়া জাহাজ শনাক্তে কাজ করছে। নদীর পানিতে তেল ছড়িয়ে পড়ায় বিলুপ্তপ্রায় ইরাবতী ডলফিনসহ ছয় প্রজাতির ডলফিন, মৎস্য সম্পদসহ সুন্দরবনের জীববৈচিত্র্য চরম হুমকিতে পড়েছে। তবে কি পরিমাণ জায়গার বন ও পানিতে তেল ছড়িয়ে পড়েছে তা তাৎক্ষণিকভাবে জানাতে পারেনি ডিএফও। এ ঘটনার জন্য পরিবেশ দূষণের অভিযোগে মামলা করা হবে বলে তিনি জানান।

শরণখোলা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) কাজী আব্দুস ছালেক জানান, ঘটনার পরপরই বনবিভাগের সঙ্গে তাফালবাড়ী ফাঁড়ি ইনচার্জ (আইসি) মেঃ আবুল বাশারের নেতৃত্বে পুলিশের একটি দল অভিযান শুরু করেছে।

প্রকাশিত : ১০ ডিসেম্বর ২০১৪

১০/১২/২০১৪ তারিখের খবরের জন্য এখানে ক্লিক করুন

প্রথম পাতা



ব্রেকিং নিউজ: