কুয়াশাচ্ছন্ন, তাপমাত্রা ২২.২ °C
 
৩ ডিসেম্বর ২০১৬, ১৯ অগ্রহায়ণ ১৪২৩, শনিবার, ঢাকা, বাংলাদেশ
শীর্ষ সংবাদ

সৌদি আরব সব সময় বাংলাদেশের পাশে থাকবে

প্রকাশিত : ১৩ জানুয়ারী ২০১৬
সৌদি আরব সব সময় বাংলাদেশের পাশে থাকবে
  • আমতলীতে সাইক্লোন শেল্টার উদ্বোধনকালে সৌদি যুবরাজ তুর্কি বিন আবদুল্লাহ

কূটনৈতিক রিপোর্টার ॥ সৌদি আরব সব সময় বাংলাদেশের পাশে থাকবে বলে জানিয়েছেন সৌদি যুবরাজ তুর্কি বিন আবদুল্লাহ বিন আবদুল আজিজ। মঙ্গলবার বরগুনায় সৌদি অর্থায়নে স্কুল কাম সাইক্লোন সেন্টার উদ্বোধনকালে তিনি এ কথা বলেন। ঢাকা ও বরগুনা থেকে একযোগে স্কুল কাম সাইক্লোন শেল্টার উদ্বোধন করা হয়।

বরগুনা থেকে ঢাকায় ফিরে এক প্রেস কনফারেন্সে মুখোমুখি হন সৌদি যুবরাজ তুর্কি বিন আবদুল্লাহ। এ সময় তার সঙ্গে ইসলামী উন্নয়ন ব্যাংকের প্রেসিডেন্ট আহমেদ মোহাম্মদ আলি আল মাদানিও উপস্থিত ছিলেন। প্রেস কনফারেন্সের শুরুতেই সৌদি যুবরাজ জানান, তার এই সফর সরকারী সফর নয়। তিনি বাদশাহ আবদুল্লাহ বিন আবদুল আজিজ আল সৌদ ইন্টারন্যাশনাল ফাউন্ডেশন ফর হিউম্যানিটারিয়ান এ্যাকটিভিটির বা (কাইফা) প্রধান হিসেবে প্রকল্প এলাকা দেখার জন্য বাংলাদেশে এসেছেন। এ কারণে তিনি রাজনৈতিক ও কূটনীতি সম্পর্কিত কোন বিষয়ে কথা বলতে চান না। পরে তিনি জানান, তিনি উপকূলীয় এলাকায় ঘূর্ণিঝড় আশ্রয় কেন্দ্র নির্মাণ কাজে অগ্রগতি দেখে সন্তুষ্ট। তিনি জানান, এ ধরনের প্রকল্প বাস্তবায়ন বেশ সময় সাপেক্ষ এবং কষ্টসাপেক্ষ। কারণ উপকূলীয় নরম মাটিতে দুর্যোগ মোকাবেলা করতে পারে এমন দৃঢ় স্থাপনা নির্মাণ সহজসাধ্য নয়।

এক প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, চলমান প্রকল্পগুলোই ধারাবাহিকভাবে বাস্তবায়ন করা হবে। এই মুহূর্তে কাইফার পক্ষ থেকে নতুন কোন প্রকল্পের ঘোষণা নেই। তবে সৌদি আরব সব সময়ই বাংলাদেশের পাশে ছিল, থাকবে।

সংবাদ সম্মেলনে ফায়েল খায়ের কর্মসূচীর উপর ভিডিও চিত্র দেখানো হয়। পরে প্রকল্পের পরিচালক সুফী মোশতাক আহমেদ জানান, বরগুনা জেলায় ২৭ সাইক্লোন সেন্টার কাম স্কুল নির্মাণ করা হচ্ছে। তবে পুরো প্রকল্পে মোট ১৭৩ সেন্টার নির্মাণ করা হবে। এর মধ্যে ৬১টি’র কাজ শেষ হয়েছে। বাকিগুলোর কাজও দ্রুতই এগিয়ে চলছে। সব মিলিয়ে প্রকল্প বাস্তবায়নের অগ্রগতি ৮০ শতাংশ বলে তিনি জানান। এ ছাড়া ফায়েল খায়ের কর্মসূচীর আওতায় কৃষি উপকরণ প্রদান কর্মসূচীও নেয়া হয়েছে।

সৌদি আরবের অর্থায়নে নির্মিত ‘স্কুল কাম সাইক্লোন শেল্টার’ গণভবন থেকে ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে উদ্বোধন করেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। বরগুনার আমতলীতে এই ‘স্কুল কাম সাইক্লোন শেল্টার’। উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে প্রধানমন্ত্রী বলেন, এসব স্থাপনা শিক্ষার্থীদের কাজে লাগার পাশাপাশি দুর্যোগে এখানে নিরাপদ আশ্রয় পাবে। সৌদি আরবের সফররত যুবরাজ তুর্কি বিন আবদুল্লাহ বিন আবদুল আজিজ এবং ইসলামী উন্নয়ন ব্যাংকের (আইডিবি) প্রেসিডেন্ট আহমেদ মোহাম্মদ আলি আল মাদানি আমতলীর স্কুলটিতে উপস্থিত ছিলেন।

কিং আবদুল্লাহ হিউম্যানিটেরিয়ান এ্যান্ড চ্যারিটেবল ফাউন্ডেশনের ‘ফায়েল খায়ের’ কর্মসূচীর আওতায় বাংলাদেশে এ প্রকল্প বাস্তবায়িত হচ্ছে। সৌদি আরবের প্রয়াত বাদশাহ আবদুল্লাহ বিন আবদুল আজিজ বাংলাদেশের সিডর বিধ্বস্ত দক্ষিণ-পশ্চিমাঞ্চলে ‘স্কুল কাম সাইক্লোন শেল্টার’ নির্মাণে ১৩ কোটি মার্কিন ডলার অনুদান দিয়েছিলেন। এ অর্থে ১৩ জেলায় ১৭৩ ‘স্কুল কাম সাইক্লোন শেল্টার’ নির্মিত হচ্ছে, যার মধ্যে ৬১টির কাজ ইতোমধ্যেই শেষ হয়েছে।

প্রধানমন্ত্রী তার বক্তব্যে বলেন, এ প্রকল্প বাস্তবায়নে একদিকে শিক্ষার্থীদের যেমন সুবিধা হবে, তেমনি দুর্যোগের সময় মানুষ নিরাপদ আশ্রয় পাবে। এ প্রকল্প মানুষের কল্যাণে কাজে লাগবে। গণভবন থেকে অর্থমন্ত্রী আবুল মাল আবদুল মুহিত, দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা ও ত্রাণমন্ত্রী মোফাজ্জল হোসেন চৌধুরী মায়া ভিডিও কনফারেন্সে সংযুক্ত ছিলেন।

আমতলী ও বরগুনা থেকে জনকণ্ঠের নিজস্ব সংবাদদাতা জানান, আমতলী ঘটখালী মাধ্যমিক বিদ্যালয় মাঠে নবনির্মিত ৭ স্কুল কাম সাইক্লোন শেল্টারের উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে সৌদি যুবরাজ তুর্কি বিন আবদুল্লাহ বিন আবদুল আজিজ নবনির্মিত ভবনের ফলক উন্মোচন করেন। নবনির্মিত ৭ স্কুল কাম সাইক্লোন শেল্টারের চাবি আনুষ্ঠানিকভাবে হস্তান্তর করা হয়।

অনুষ্ঠানে সৌদি যুবরাজ তুর্কি বিন আবদুল্লাহ বিন আবদুল আজিজ বলেন, বিশ্বের যেখানে প্রাকৃতিক দুর্যোগ হয়েছিল বাদশা আবদুল্লাহ বিন আবদুল আজিজ নীরবে অসহায় মানুষের পাশে দাঁড়িয়েছিলেন। তাদের জীবনরক্ষাসহ স্থায়ীভাবে মানুষকে বাঁচানোর জন্য তিনি কাজ করে গেছেন। আজ এই স্কুল কাম সাইক্লোন শেল্টার তার নিদর্শন হয়ে আছে। তিনি বলেন, বাবার পথ অনুসরণ করে আমরাও হতদরিদ্র মানুষের পাশে থেকে কাজ করে যাব। সৌদি আরব সব সময় বাংলাদেশের পাশে থাকবে বলেও তিনি জানান।

উদ্বোধনী অনুষ্ঠানটির সঞ্চালনা করেন বরগুনা জেলা প্রশাসক মীর জহুরুল ইসলাম। অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন ইসলামী উন্নয়ন ব্যাংক (আইডিবি) চেয়ারম্যান আহমেদ মোহাম্মদ আলি মাদানি, সৌদি যুবরাজের ছোট ভাই বদর বিন আবদুল্লাহ, অর্থ প্রতিমন্ত্রী এমএ মান্নান, অর্থনৈতিক সম্পর্ক বিভাগের সিনিয়র সচিব মেজবাহ উল আলম ও আমতলী উপজেলা চেয়ারম্যান জিএম দেলওয়ার হোসেন প্রমুখ।

সভা শেষে উপজেলার নবনির্মিত ৭ স্কুল কাম সাইক্লোন শেল্টারের চাবি আমতলী উপজেলা নির্বাহী অফিসার মিজানুর রহমানের হাতে তুলে দেন প্রধান অতিথি যুবরাজ তুর্কি বিন আবদুল্লাহ।

সৌদি যুবরাজ তুর্কি বিন আবদুল্লাহ ও ইসলামী উন্নয়ন ব্যাংকের (আইডিবি) প্রেসিডেন্ট আহমেদ মোহাম্মদ আলি আল মাদানি সোমবার ঢাকায় আসেন।

প্রকাশিত : ১৩ জানুয়ারী ২০১৬

১৩/০১/২০১৬ তারিখের খবরের জন্য এখানে ক্লিক করুন

প্রথম পাতা



ব্রেকিং নিউজ: