আংশিক মেঘলা, তাপমাত্রা ২২.২ °C
 
৬ ডিসেম্বর ২০১৬, ২২ অগ্রহায়ণ ১৪২৩, মঙ্গলবার, ঢাকা, বাংলাদেশ
শীর্ষ সংবাদ

লেটস ড্যান্স উইথ শ্রদ্ধা

প্রকাশিত : ২৫ জুন ২০১৫

সময়কাল ২০১০। বলিউডে মুক্তি পেল অমিতাভ বচ্চন অভিনীত ড্রামা ফিল্ম ‘তিন পাত্তি’। সেখানে দেখা মিলল একজন মিষ্টি কলেজ গার্লের। সিনেমাটি সফলতা লাভ করতে পারেনি ব্যবসায়িকভাবে। তবে বলিউড সমালোচকরা চিনতে ভুল করলেন না, ব্যাপক প্রশংসিত হলো সেই কলেজ গার্লের চরিত্রটি। এমনকি সেরা ফিমেল ডেবু ক্যাটাগরিতে মনোনীতও হলেন ফিল্ম ফেয়ার এ্যাওয়ার্ডে। তার নাম শ্রদ্ধা কাপুর।

সেই শুরু। সমালোচকদের আশীর্বাদকে ভর করে শ্রদ্ধা চুক্তি করে ফেললেন জশরাজ ফিল্মসের তিনটি ছবিতে। তবে সত্যিকারের ব্রেক থ্রু পেলেন ২০১৩-তে নব্বইয়ের দশকের হিট ফিল্ম ‘আশিকি’-এর সিক্যুয়েল ‘আশিকি-২’-তে অভিনয়ের মাধ্যমে। সঙ্গে ছিলেন আদিত্য রায় কাপুর। আর এ ছবির পরিচালনায় ছিলেন মোহিত সুরি। মানে ভাট ফিল্মসের ছায়া। ছবিটি শুধু বলিউড বক্স অফিসই কাঁপাল না, বিশ্বজুড়ে আয় করল ১.০৯ বিলিয়ন রুপী। শুরু হলো শ্রদ্ধার প্রকৃত জয়যাত্রা। এ ছবির জন্যে পুরস্কারের বন্যায় ভেসে গেলেন শ্রদ্ধা। এর মাঝে স্ক্রিন এ্যাওয়ার্ড, স্টার গিল্ড এ্যাওয়ার্ড, জি সিনে এ্যাওয়ার্ড উল্লেখযোগ্য। পরিচালক মোহিত সুরি তো বলেই ফেললেন আদিত্য ও শ্রদ্ধা আমাকে নতুন জীবন দিয়েছে তাদের অসামান্য অভিনয়ের দ্বারা।

পরবর্তী মিশনেও সফল শ্রদ্ধা, সুরির হাত ধরেই। এবারের প্রজেক্ট এক ভিলেন। যদিও ছবিটি একটি কোরিয়ান ছবির নকল বলে অভিযোগ উঠেছিল যা পরিচালক মোহিত সুরি অস্বীকার করেছেন বরাবরই। তবে এসব অভিযোগ পাত্তা পায়নি হলে। অন্তত দর্শকের সিনেমা হলে হুমড়ি খাওয়া তাই প্রমাণ করে। এ ছবিতে একটা গানে প্লেব্যাকও করেন শ্রদ্ধা।

আর একই বছরে বিশাল ভরদ্বাজের সঙ্গে তার সবচেয়ে আলোচিত কাজ ‘হায়দার’ যা কিনা নির্মিত হয়েছে উইলিয়াম শেক্সপিয়ারের ‘হ্যামলেট’-এর ছায়া অবলম্বনে যেখানে তার ভূমিকা ছিল শহীদ কাপুরের বিপরীতে একজন সাংবাদিকের। আর এ ছবির জন্য ফিল্ম ফেয়ার এ্যাওয়ার্ড পাওয়া শহীদ কাপুর তো বলেই দিলেনÑ ‘শ্রদ্ধার মতো অভিনেত্রী আমার বিপরীতে ছিল বলেই আমার অভিনয় ছিল সাবলীল।’ ২০১৫-তে শ্রদ্ধা কাপুর হাজির হয়েছেন ‘এবিসিডি এনিবডি ক্যান ড্যান্স’-এর সিক্যুয়েল থ্রিডি ড্যান্স ফিল্ম ‘এবিসিডি-২’-তে। আর এখানে শ্রদ্ধার বিপরীতে আছেন হালের আরেক ক্রেজ বরুন ধাওয়ান। ওয়াল্ট ডিজনি পিকচার্স ও ইউটিভি মোশন পিকচার্সের প্রযোজনায় এবিসিডি ২ মুক্তি পেল গত ১৯ জুন। এবিসিডি ২ ছবিতে প্রদর্শিত হয়েছে ড্যান্সের এক বিশাল বৈচিত্র্য। যেমন ধরা যাক হিপ হপ, মডার্ন ড্যান্স, ইন্ডিয়ান সালসা ইত্যাদি। একটা ড্যান্স টিম লাসভেগাসে যায় একটা ড্যান্স কম্পিটিশনে যায় যুক্তরাষ্ট্রের লাসভেগাসে যেটি কিনা সকল ড্যান্সারের স্বপ্নের জায়গা এবং বিভিন্ন মাধ্যমে ড্যান্স পারফর্ম করে আন্তর্জাতিক সুনাম কুড়ায়। আর এ ছবির অনুপ্রেরণা একটি সত্যি ঘটনা অবলম্বনে। বিশু ও সুরেশ নামক দু’জন কোরিওগ্রাফার যারা কিনা ২০১২ সালে ওয়ার্ল্ড হিপ হপ ড্যান্স কম্পিটিশনে জয়ী হয়েছিল। প্রখ্যাত কোরিওগ্রাফার রিমো দ্য সুজার পরিচালনায় শ্রদ্ধার দল কি পেরেছে সেই ঘটনা ফুটে তুলতে? সে হিসেব পড়ে হবে। আপাতত চলুন মেতে উঠি নাচে, শ্রদ্ধার সঙ্গে।

আনন্দকণ্ঠ ডেস্ক

প্রকাশিত : ২৫ জুন ২০১৫

২৫/০৬/২০১৫ তারিখের খবরের জন্য এখানে ক্লিক করুন


ব্রেকিং নিউজ: