আংশিক মেঘলা, তাপমাত্রা ২২.২ °C
 
৬ ডিসেম্বর ২০১৬, ২২ অগ্রহায়ণ ১৪২৩, মঙ্গলবার, ঢাকা, বাংলাদেশ
শীর্ষ সংবাদ

অগ্নিকাণ্ডে চৌদ্দ দোকান পুড়ে ছাই

প্রকাশিত : ২৫ জুন ২০১৫
  • দাউদকান্দি, ভৈরব ও ভালুকা

জনকণ্ঠ ডেস্ক ॥ মঙ্গলবার রাতে অগ্নিকা-ে দাউদকান্দিতে দুটি ফ্রিজের দোকানসহ আটটি, ভৈরবে পাদুকা কারখানা ও ভালুকায় ৬ দোকান, ৬ অটোরিক্সা পুড়ে গেছে। এতে প্রায় দুই কোটি টাকার ক্ষতি হয়েছে। খবর নিজস্ব সংবাদদাতাদের পাঠানো-

দাউদকান্দি ॥ উপজেলা গৌরীপুর বাজারে এক ভয়াবহ অগ্নিকা-ের ঘটনা ঘটে মঙ্গলবার রাত ৮টায়। এতে ২টি ফ্রিজের দোকানসহ ৮টি দোকানের প্রায় কোটি টাকার মালামাল পুড়ে যায়। এ অগ্নিকা-ে ৯ জন মারাত্মকভাবে আহত হয়েছে। আহতদের উদ্ধার করে গৌরীপুর হাসপাতালে চিকিৎসা দেয়া হয়। আহতদের মধ্যে সৌদিয়া রেফ্রিজেটরের মালিকের মেয়ের জামাই মোঃ সাদ্দাম হোসেন (২৬)সহ ৬ জনকে আশঙ্কাজনক অবস্থায় ঢাকায় প্রেরণ করা হয়েছে। বাকিদের গৌরীপুর হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। প্রত্যক্ষদর্শী ও পুলিশ জানায়, উপজেলার গৌরীপুর বাজারে কুমিল্লা পল্লী বিদ্যুত সমিতি-৩ এর অফিসের সামনে সৌদিয়া রেফ্রিজেটর দোকানে বৈদ্যুতিক শর্টশার্কিট থেকে আগুনের সূত্রপাত ঘটলে মুহূর্তের মধ্যে আগুন আশপাশের দোকানে ছড়িয়ে পড়ে। এ সময় গ্যাস সিলিন্ডার বিস্ফোরণ হয়ে মোঃ সাদ্দাম হোসেনসহ কয়েকজনের শরীর ক্ষত-বিক্ষত হয়ে যায়। স্থানীয়রা তাদের উদ্ধার করে গৌরীপুর হাসপাতালে পৌঁছায়। খবর পেয়ে দাউদকান্দি ও হোমনা ফায়ার সার্ভিসের দুটি ইউনিট, দাউদকান্দি মডেল থানা পুলিশ ও গৌরীপুর ফাঁড়ি পুলিশ প্রায় দুই ঘণ্টা চেষ্টা চালিয়ে রাত ১০টায় আগুন নিয়ন্ত্রণে আনে।

অগ্নিকা-ের কারণে প্রায় ১ ঘণ্টা ঢাকা- গৌরীপুর-হোমনা সড়কে যানবাহন চলাচল বন্ধ হয়ে যায়। বিদ্যুত উপ-কেন্দ্রের পাশ ঘেঁষে অগ্নিকা-ের ফলে বন্ধ করে দেয়া হয় বিদ্যুত সরবরাহ। প্রায় একটানা ৩ ঘণ্টা বিদ্যুত সরবরাহ বন্ধ থাকায় পর রাত ১১টায় বিদ্যুত সরবরাহ চালু হয়। তবে দুর্ঘটনা এড়াতে আগে থেকে সর্বোচ্চ সর্তক অবস্থায় ছিল বিদ্যুত কর্তৃপক্ষ। দাউদকান্দির গৌরীপুর স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের টিএইচও ডাঃ কাজী শামীম হোসেন জানান, অগ্নিকা-ে আহত ৯ জনকে জরুরী বিভাগে চিকিৎসা দেয়া হয়। এর মধ্যে ৬ জনকে আশঙ্কাজনক অবস্থায় ঢাকায় প্রেরণ করা হয়েছে।

ভৈরব ॥ বুধবার সকাল সাড়ে ৬টার দিকে কমলপুরে হাজী ফুলমিয়া পাদুকা মার্কেটে ভয়াবহ অহ্নিগ্নকা-ের ঘটনা ঘটে। বিদু্যুতিক শর্টসার্কিট থেকে আগুনের সূত্রপাত হয় বলে জানা গেছে। ফায়ার সার্ভিসের ৩টি ইউনিট ৩ ঘণ্টা চেষ্টা চালিয়ে সকাল সাড়ে ৯টার দিকে আগুন নিয়ন্ত্রণে আনে। আগুন নিভাতে গিয়ে ৫ জন আহত হয়েছে। এ সময় আগুনে ওই মার্কেটের রকেট সুজের মালিক বাচ্চু মিয়ার ৭টি, এবি সুজের মালিক মোঃ আব্দুল গাফফারের ৬টি ও শামীম সুজের মালিক শামীম মিয়ার একটি কারখানাসহ ২৫টি পাদুকা কারখানা পুড়ে ছাই হয়ে যায়। এতে আনুমানিক অর্ধ কোটি টাকার মালামাল ক্ষয়ক্ষতি হয়েছে বলে মালিক পক্ষ জানায়।

আগুন নেভাতে গিয়ে ফায়ার সার্ভিসের গাড়িতে বহন করা পানি শেষ হয়ে গেলে সাধারণ ব্যবসায়ীরা ফায়ার সার্ভিসের সদস্যদের প্রতি ক্ষুব্ধ হয়ে পড়ে। পরে উপজেলা পরিষদের পুকুর থেকে পানি সরবরাহ করে আগুন নিয়ন্ত্রণে আনা হয়। মার্কেটের সামনে ভৈরব-কিশোরগঞ্জ মহাসড়কে ভিড় জমালে মহাসড়কে যানবাহন চলাচল বন্ধ হয়ে যায়। উৎসুক জনতা ঠেকাতে র্যাব ও পুলিশ সদস্যদের হিমশিম খেতে হয়। এ সময় ভৈরব-কিশোরগঞ্জ মহাসড়কের উভয় দিকে দীর্ঘ যানজট সৃষ্টি হয়।

ভালুকা ॥ উপজেলার ধলিয়া বাজারে বুধবার ভোর রাতে এক ভয়াবহ অগ্নিকা-ে ৬টি দোকান ও ৬টি অটোরিক্সা পুড়ে ছাই হয়ে গেছে। খবর পেয়ে ফায়ার সার্ভিসের একটি দল ঘটনাস্থলে গিয়ে আগুন নিয়ন্ত্রণে আনে।

জানা যায়, ঘটনার সময় ওই বাজারের একটি অটোরিক্সার চার্জারের দোকানে বৈদ্যুতিক শর্টসার্কিট থেকে আগুনের সূত্রপাত হয়ে জাকির হোসেনের তাসনিয়া ট্রেডার্স, শফিকুল ইসলামের মুদির দোকান, ডাঃ আমিনুল ইসলামের ওষুধ ও মনোহারি দোকান, মোহাম্মদ জজ মিয়ার কসমেটিক, গিয়াস উদ্দিনের ফার্নিচারের দোকান ও ৬টি অটোরিক্সা আগুনে পুড়ে প্রায় ৫০ লাখ টাকার মালামাল ছাই হয়ে গেছে।

প্রকাশিত : ২৫ জুন ২০১৫

২৫/০৬/২০১৫ তারিখের খবরের জন্য এখানে ক্লিক করুন

দেশের খবর



ব্রেকিং নিউজ: