রৌদ্রজ্জ্বল, তাপমাত্রা ২৩.৯ °C
 
৮ ডিসেম্বর ২০১৬, ২৪ অগ্রহায়ণ ১৪২৩, বৃহস্পতিবার, ঢাকা, বাংলাদেশ
শীর্ষ সংবাদ

হবিগঞ্জের জনকন্ঠ সংবাদদাতা তুহিনের নিরাপত্তা

প্রকাশিত : ১৯ জুন ২০১৫, ০৫:০৩ পি. এম.

জনকন্ঠ রিপোর্ট ॥ হবিগঞ্জের এসপি ও ডিসিকে দৈনিক জনকন্ঠের হবিগঞ্জ সংবাদদাতা এবং জেলা স্বাক্ষী ও ভিকটিম সুরক্ষা কমিটির মেম্বার রফিকুল হাসান চৌধুরী তুহিনের নিরাপত্তা প্রদানের নির্দেশ দিয়েছে আন্তজার্তিক অপরাধ ট্রাইব্যুনাল তদন্ত সংস্থা। শুধু তাই নয়, তুহিনের প্রাননাশের হুমকি দাতাদের বিরুদ্ধেও আইনগত ব্যবস্থা নিতে বলা হয়েছে।

আন্তজার্তিক অপরাধ ট্রাইব্যুনাল তদন্ত সংস্থা কর্তৃক গঠিত জেলা স্বাক্ষী ও ভিকটিম সুরক্ষা কমিটির মেম্বার, একাত্তরের ঘাতক দালাল নির্মূল কমিটি ও দৈনিক জনকন্ঠে কাজ করায় গত ৪ জুন দিবাগত রাত ১২ টা ৩৬ মিনিটে সাংবাদিক তুহিনকে অজ্ঞাত ব্যক্তি ৫ দিনের মধ্যে হত্যার হুমকি দেন। এরই প্রেক্ষিতে পরদিন ৫ জুন তুহিন তার পরিবারের নিরাপত্তা ও হুমকি দাতাদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা গ্রহনের দাবী জানিয়ে সদর থানায় একটি জিডি করেন। কিন্তু দীর্ঘ ১৪ দিন অতিবাহিত হলেও ওই জিডির তদন্ত শুরু করেননি বিএনপি-জামায়াত ঘরনার সংশ্লিস্ট থানার ওসি নাজিম উদ্দিন। এমনকি এ নিয়ে তুহিনের সাথে কোন যোগাযোগ করা তো দুরের কথা তার নিরাপত্তা প্রদানেও মনযোগী হননি পুলিশের এই কর্তা। এমতাবস্থায় বিষয়টি আন্তজার্তিক অপরাধ ট্রাইব্যুনাল তদন্ত সংস্থার দৃষ্টিতে আসে। এরই প্রেক্ষিতে সংশ্লিস্ট তদন্ত সংস্থার প্রধান সমন্বয়ক আইজিপি মুহ. আব্দুল হান্নান খান পিপিএম গত ৯ জুন হবিগঞ্জের ডিসি ও এসপিকে পত্র দেন। যা হবিগঞ্জের জেলা ও পুলিশ প্রশাসনের নিকট হস্তগত হয় গত ১৪ জুন। এতে সাংবাদিক তুহিনের করা জিডির তদন্ত, হুমকি দাতাদের বিরুদ্ধে আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহন ও তার নিরাপত্তা বিধানের জন্য নির্দেশ দেয়া হয়। শুধু তাই নয়, তুহিনের নিরাপত্তা প্রদানের জন্য দেয়া ওই পত্রের অনুলিপি স্বরাস্ট্র মন্ত্রনালয়ের সিনিয়র সচিব, মহা-পুলিশ পরিদর্শক ও সিলেট র‌্যাঞ্জের ডিআইজিকে দিয়েছে তদন্ত সংস্থা। অথচ এই নির্দেশনাকে বৃদাঙ্গুলী প্রদর্শন করে সংশ্লিস্ট থানার ওসি নাজিম উদ্দিন এখনও সাংবাদিক তুহিন ও তার পরিবারের নিরাপত্তা প্রদানে এগিয়ে আসেননি। এদিকে সদর থানার ওসি’র এমন উদাসীনতা নিয়ে জনমনে নানান প্রশ্নের দেখা দিয়েছে।

প্রকাশিত : ১৯ জুন ২০১৫, ০৫:০৩ পি. এম.

১৯/০৬/২০১৫ তারিখের খবরের জন্য এখানে ক্লিক করুন


ব্রেকিং নিউজ: