মূলত পরিষ্কার, তাপমাত্রা ২১.১ °C
 
১০ ডিসেম্বর ২০১৬, ২৬ অগ্রহায়ণ ১৪২৩, শনিবার, ঢাকা, বাংলাদেশ

সফল মেসি, শূন্য রোনাল্ডো

প্রকাশিত : ২০ মে ২০১৫
  • অতশী আলম

শিরোনাম দেখে অনেকেই হয়ত আপত্তি করতে পারেন! কিন্তু বাস্তবতা এমনই। চলতি মৌসুমে লিওনেল মেসির চেয়ে কোন অংশে কম যাননি ক্রিশ্চিয়ানো রোনাল্ডো। বরং কিছু কিছু ক্ষেত্রে বার্সিলোনা জাদুকরকে পেছনে ফেলেছেন রিয়াল মাদ্রিদ সুপারস্টার। গত কয়েক বছরের মতো ব্যক্তিগত দ্বৈরথও ছিল। কিন্তু মৌসুম শেষে প্রাপ্তির যোগ ফলের হিসেব কষলে মেসি পাবেন ১০০ নম্বর, আর ০ রোনাল্ডো! কারণটা পরিষ্কার। মেসির নৈপূণ্যে বার্সিলোনা ১১৫ বছরের মধ্যে দ্বিতীয়বার ট্রেবল জয়ের পথে। আর রিয়াল মাদ্রিদ শিরোপাহীন থেকে শেষ করতে যাচ্ছে ২০১৪-১৫ মৌসুম।

সমালোচনার জবাব আগেই দিয়েছেন মেসি। এবার দিয়েছেন দাঁতভাঙ্গা জবাব। আর্জেন্টাইন এই জাদুকরের করা একমাত্র গোলেই অ্যাটলেটিকো মাদ্রিদকে হারিয়ে স্প্যানিশ লা লীগায় চ্যাম্পিয়ন হয়েছে বার্সিলোনা। এর মধ্য দিয়ে ক্যাটালানদের সাফল্য আরও একবার মেসিময় হয়ে উঠেছে। নেইমার ও লুইস সুয়ারেজের সঙ্গে দুর্দান্ত জুটি গড়ে তুলে বার্সার সাফল্যকে আরও বেগবান করেছেন মেসি। প্রায় প্রতি ম্যাচেই নিজে গোল করেছেন, করিয়েছেন অন্যদের দিয়ে। যে কারণে বার্সিলোনা ফিরেছে স্বরূপে। অথচ মৌসুমের শুরুতে ইনজুরির কারণে কিছুটা পড়তি ফর্ম থাকায় সমালোচকরা মেতে উঠেছিলেন মেসিকে নিয়ে। অনেক হয়েছে, মেসি যুগ শেষ! এ রকম অনেক কথাও বলতে শোনা গেছে। তবে এসব কখনই পাত্তা দেননি সাবেক টানা চারবারের ফিফা সেরা ফুটবলার। এগিয়ে গেছেন আপন মহিমায়। যার প্রমাণ আরও একবার রেখেছেন বার্সিলোনাকে লা লীগার চ্যাম্পিয়ন করিয়ে। এর মধ্য দিয়ে সমালোচনার জবাবও দিয়েছেন আরেকবার।

মৌসুমে প্রথম শিরোপা নিশ্চিত হওয়ার পর মাঠেই উদযাপন করেন বার্সিলোনার খেলোয়াড়রা। তবে অতি আনন্দে ভেসে যেতে চান না তারা। ম্যাচ শেষে শিরোপা জয়ের প্রতিক্রিয়া জানাতে গিয়ে বার্সার মিডফিল্ডার সার্জিও বসকুয়েটস বলেন, চ্যাম্পিয়ন্স লীগ বেশি মর্যাদাপূর্ণ। কিন্তু লীগ সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ। সামনে অ্যাথলেটিকে বিলবাওকে কোপা ডেল রের ফাইনালে ও জুভেন্টাসকে চ্যাম্পিয়ন্স লীগের ফাইনালে হারাতে পারলে ট্রেবল জয় নিশ্চিত হবে বার্সার। ট্রেবল জিতে মৌসুমটিকে ঐতিহাসিক করতে সতীর্থদের আহ্বান জানিয়ে বসকুয়েটস বলেন, আমরা ঠিক পথেই আছি। ট্রেবল জয় থেকে মাত্র দুটি ম্যাচ দূরে আছি। এটা ঐতিহাসিক এক মৌসুম এবং আমি আশা করি, আমরা এটা করতে পারব। জর্ডি এ্যালবা বলেন, উপভোগের জন্য দারুণ এক দিন এটা। এখন এটা উপভোগ করি-ভবিষ্যতে কি আছে সেটা আমরা জানি না। ডিফেন্ডার জেরার্ড পিকে অবশ্য সতীর্থদের আনন্দে গা ভাসিয়ে না দেয়ার পরামর্শ দিয়েছেন। বলেছেন, আমাদের এখন কাপ ফাইনালে মনোযোগ দিতে হবে, যেটা খুব কঠিন হবে। আমরা পথেই আছি, কিন্তু এখনও কাজ বাকি আছে।

ম্যাচ শেষে বার্সা কোচ লুইস এনরিকে বলেন, দশ মাস আগে আমি এখানে অনেক পরিবর্তন নিয়ে শুরু করেছিলাম। ক্লাব কিছু না জিতে এসেছিল। আমরা জানতাম, এটা একটা ক্রান্তিকাল। সম্ভাব্য সেরা পথেই এটা আমরা করার চেষ্টা করেছি। কোন কিছু ছাড়াই মৌসুম শুরু করাটা আমাদের জন্য চ্যালেঞ্জিং ছিল। আমরা জানতাম এটা আমাদের পুনর্জাগরনের মৌসুম। আমরা আমদের সেরাটা দেয়ার চেষ্টাই করেছি। এখনও আমাদের সামনে দুটি শিরোপা অপেক্ষা করছে। তবে বর্তমানের শিরোপাটা নিয়ে এই মুহূর্তে আমরা উৎসব করতে চাই।এদিকে রেকর্ডের পর রেকর্ড গড়ে চলেছেন ক্রিশ্চিয়ানো রোনাল্ডো। মৌসুমের শুরু থেকেই আছেন তুখোড় ফর্মে, গোল করছেন নিয়মিত। এরপরও প্রাপ্তির খাতায় কিছুই যোগ হচ্ছে না বর্তমান ফিফা সেরা ফুটবলারের! শূন্য থেকেই শেষ করতে হচ্ছে ২০১৪-১৫ ফুটবল মৌসুম। কারণ তার দল রিয়াল মাদ্রিদ চলতি মৌসুমে একটি শিরোপারও স্বাদ পাচ্ছে না এটা নিশ্চিত হয়েছে। ১৭ মের কথাই ধরুন। এই রাতে স্প্যানিশ লা লীগার শিরোপা পুনরুদ্ধার নিশ্চিত করেছে বার্সিলোনা। একই সময়ে এস্পানিওলের বিরুদ্ধে রিয়ালের হয়ে রেকর্ড হ্যাটট্রিক করেন রোনাল্ডো। কিন্তু কাজের কাজ কিছুই হয়নি। এই একটি আসরেই শিরোপার নিভু নিভু সম্ভাবনা ছিল গ্যালাক্টিকোদের। সেটাও অবশেষে নিভে গেছে। আর তাই রিক্ত হস্তেই মৌসুমকে বিদায় জানানোর অপেক্ষায় সি আর সেভেন। গত ১৪ মে জুভেন্টাসের বিরুদ্ধে পেনাল্টি থেকে গোল করে আর্জেন্টাইন কিংবদন্তি আলফ্রেডো স্টেফানোর পাশে নাম লিখিয়েছিলেন রোনাল্ডো। এরপর লা লীগায় এস্পানিওলের বিরুদ্ধে হ্যাটট্রিক করে রিয়াল মাদ্রিদের হয়ে সর্বোচ্চ গোলদাতার তালিকায় এককভাবে দ্বিতীয় স্থানে উঠে আসেন এই পর্তুগিজ তারকা। রিয়ালের হয়ে সব ধরনের প্রতিযোগিতা মিলিয়ে এখন পর্যন্ত ৩১০ গোল করেছেন রোনাল্ডো। ম্যাচ খেলেছেন ২৯৯টি। অন্যদিকে ৩৯৬ ম্যাচে ৩০৭ গোল করে তৃতীয় স্থানে স্টেফানো। ৩২৩ গোল করা রাউল গঞ্জালেস সবার শীর্ষে। অবশ্য এই স্প্যানিশ স্ট্রাইকার ৭৪১টি ম্যাচ খেলে এই কীর্তি গড়েন। একটি দিক দিয়ে রাউলকে এরই মধ্যে পেছনে ফেলেছেন রোনাল্ডো। ২০০৯ সালের জুলাইয়ে রিয়াল মাদ্রিদে যোগ দেয়া এই তারকা মাত্র ২৯৯টি ম্যাচ খেলেই মালিক হয়েছেন ৩১০ গোলের অনন্য সাফল্যের। রাউল তাঁর ৩২৩ গোল করেছিলেন ৭৪১টি ম্যাচ খেলে।

শূন্য থাকলেও লা লীগায় এ মৌসুমে রোনাল্ডোর সর্বোচ্চ গোলদাতা হওয়া অনেকটাই নিশ্চিত। ৪৫ গোল করা এই পর্তুগিজ তারকাকে ছুঁতে হলে মৌসুমের শেষ ম্যাচে বার্সার হয়ে লিওনেল মেসিকে চার গোল করতে হবে। হ্যাটট্রিকের দিক থেকেও পিছিয়ে আছেন আর্জেন্টাইন অধিনায়ক। রোনাল্ডোর করা ৭ হ্যাটট্রিকের বিপরীতে মেসি করেছেন ৫টি। অবশ্য গোলে সহায়তার ক্ষেত্রে এগিয়ে মেসি। সতীর্থদের দিয়ে তিনি ১৮টি গোল করিয়েছেন। অন্যদিকে রোনাল্ডোর পাস থেকে তার সতীর্থরা করেছেন ১৬টি গোল। অথচ সি আর সেভেনের জন্য এবারের মৌসুমটা ব্যক্তিগত সাফল্যের পসরা সাজিয়েই এসেছিল। কিন্তু চূড়ান্ত সাফল্য না পাওয়ার আপসোস থেকেই যাচ্ছে। সেইসঙ্গে আরও একটি বিষয় পোড়াতে পারে তাঁকে। তা হচ্ছে, লা লীগায় এবার নিয়ে তিনবার সর্বোচ্চ গোলদাতার হওয়ার গৌরবে ভাসতে যাচ্ছেন রোনাল্ডো, এই তিনবারের একবারও তাঁর দল রিয়াল মাদ্রিদ শিরোপা জেতেনি। তাহলে কি রোনাল্ডোর সর্বোচ্চ গোলদাতা না হওয়ায় উচিত!

গত মৌসুমে লা লীগা শিরোপা জেতা হয়নি রিয়াল মাদ্রিদের। তবে ঘরোয়া আসর কোপা ডেল রে ও রেকর্ড দশমবারের মতো চ্যাম্পিয়ন্স লীগ জিতে ফুটবল বিশ্বকে তাক লাগিয়ে দিয়েছিল স্প্যানিশ পরাশক্তিরা। এবারের মৌসুমে একটি শিরোপাও জুটছে না গ্যালাক্টিকোদের। গতবারের মতো এ মৌসুমেও দুর্দান্তভাবে শুরু করেছিল কার্লো আনচেলোত্তির শিষ্যরা। কিন্তু একে একে বিদায় নিতে হয়েছে সব আসরের ফাইনালের আগেই। একমাত্র আশা ছিল লা লীগা। সেটাও হাতছাড়া হওয়ায় খালি হাতেই মৌসুম শেষ করতে হচ্ছে রিয়াল ও রোনাল্ডোকে।

প্রকাশিত : ২০ মে ২০১৫

২০/০৫/২০১৫ তারিখের খবরের জন্য এখানে ক্লিক করুন


ব্রেকিং নিউজ: