কুয়াশাচ্ছন্ন, তাপমাত্রা ২২.২ °C
 
৫ ডিসেম্বর ২০১৬, ২১ অগ্রহায়ণ ১৪২৩, সোমবার, ঢাকা, বাংলাদেশ
শীর্ষ সংবাদ

প্রাণ খুলে হাসুন

প্রকাশিত : ২৭ এপ্রিল ২০১৫

পৃথিবীতে সুন্দরের ভেতরে সবচেয়ে সুন্দর যে জিনিসটি তা হলো মানুষের মুখের মিষ্টি এক টুকরো হাসি। মুখের হাসি ছাড়াও হাসি সুন্দর সবুজ ধানক্ষেতের। হাসি সুন্দর বৃষ্টি আচ্ছন্ন গাছের। হাসি সুন্দর চাতক পাখির। যে কিনা চেয়ে থাকে বৃষ্টির দিকে। বিজ্ঞানীদের মতে, হাসলে মানুষের হার্ট ভাল থাকে। রাগ কম হয়, তবে আপনি যদি মন খারাপের ভেতরে জোর করে হাসেন তবে মন আরও বেশি খারাপ হবে। তাই মন খারাপ থাকলে হাসা যাবে না। শরীর সুস্থ, স্বাভাবিক রাখতে হাসির কোন বিকল্প নেই। যান্ত্রিক জীবনে আমরা হাসতে ভুলে গেছি। খুব বড় করে নিঃশ্বাস নিয়ে একটা প্রাণবন্ত হাসি দিতে আমাদের মন আজ আর সায় দেয় না। সকাল বেলা দিনের আলো ফোটার সঙ্গে সঙ্গেই বেরিয়ে পড়তে হয় জীবিকার তাগিদে। একটা নির্দিষ্ট সময় আমরা বেঁধে নিয়ে এসেছি এই পৃথিবীতে। কেউই জানি না কার হাতে কতটা সময় আছে। এই নির্দিষ্ট সময়ের একটি মুহূর্ত যদি ঠুঙ্কো কোন কারণে মনে কষ্ট পেয়ে পার করি তবে সেই সময়টাই নষ্ট হবে। মুখে হাসি রেখে মনকে শক্ত করে যদি সকল সময়ের মুখোমুখি হতে পারি তবেই আমরা প্রকৃত মানুষ। আপনি যদি হাসতে জানেন, তাহলে আপনার মনের ভেতরের যে বড় একটা পাথর ঠেসে রেখেছেন তা নিমিষেই সরে যাবে। হাসলে মনের শূন্য জায়গা পূরণ হয়। আপনার এক চিলতে হাসি অন্যের দুঃখ ভোলাতে সাহায্য করবে। আপনি একবার নিজের কষ্টটাকে পাশে রেখে আপনার চারপাশের মানুষের দিকে চেয়ে দেখুন। তারা হয়ত আপনার চেয়েও কষ্টে আছে। তখন দেখবেন আপনার কষ্ট আর থাকছে না। আপনার কষ্টটা অন্যের মাঝে বিলীন হয়ে যাবে। শরতের আকাশের একটু সাদা মেঘের মতো হাসি মনের কষ্ট দূরীভূত করতে সাহায্য করবে। সৃষ্টিকর্তার সৃষ্টির মানুষের হাসিতে এক অদৃশ্য আকর্ষণ আছে যেটা সবাইকে আকৃষ্ট করতে পারে। আপনি যদি মুখে সবসময় হাসির রাখার চেষ্টা করেন তবে দেখবেন মনটা প্রাণবন্ত হয়ে যাবে। আপনার মুখের মিষ্টি হাসিটাই রয়ে যাবে অমলিন।

শারমিন সুলতানা মিম

মডেল : হাসিন

প্রকাশিত : ২৭ এপ্রিল ২০১৫

২৭/০৪/২০১৫ তারিখের খবরের জন্য এখানে ক্লিক করুন


ব্রেকিং নিউজ: