আংশিক মেঘলা, তাপমাত্রা ২২.২ °C
 
৮ ডিসেম্বর ২০১৬, ২৪ অগ্রহায়ণ ১৪২৩, বৃহস্পতিবার, ঢাকা, বাংলাদেশ
শীর্ষ সংবাদ

ঢাকা সিটি ওয়ার্ড পরিক্রমা

প্রকাশিত : ৯ এপ্রিল ২০১৫

স্টাফ রিপোর্টার ॥ ঢাকা মহানগর উত্তর সিটি কর্পোরেশনের ১০, ১১ ও ১২ নম্বর ওয়ার্ডে ৩৭ জন কাউন্সিল প্রার্থী প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন। এসব ওয়ার্ডের প্রার্থীরা এখন ভোটারদের দ্বারে দ্বারে ঘুরছেন। ঢাকা উত্তরের এই তিন ওয়ার্ডে মাদক নির্মূল, সন্ত্রাস প্রতিরোধ, পানি-বিদ্যুত সমস্যার সমাধানের প্রতিশ্রুতি দিচ্ছেন। এছাড়া নাগরিক সমস্যা সমাধানে যেসব প্রার্থী এগিয়ে আসবেন, তাদেরই প্রাধান্য দিচ্ছেন এলাকার বাসিন্দারা। এলাকার বাসিন্দারা বলছেন, এক একটি এলাকায় এক এক ধরনের সমস্যা রয়েছে। এসব সমাধানে যেসব প্রার্থী এগিয়ে আসবেন, তাদের ভোটাররা বেছে নেবেন।

১০ নম্বর ওয়ার্ড ॥ মিরপুর মাজার রোডে প্রথম, দ্বিতীয়, তৃতীয় কলোনি ও লালকুঠী নিয়ে ঢাকা উত্তর সিটি কর্পোরেশনের ১০ নম্বর ওয়ার্ড। এ ওয়ার্ডে ভোটার সংখ্যা ৫৫ হাজার ৯৬২ জন। পুরুষ ভোটার ২৯ হাজার ৯০ জন ও মহিলা ভোটার ২৬ হাজার ৮৭২ জন। এ ওয়ার্ডে মাদক নির্মূল ও সন্ত্রাস-চাঁদাবাজবিরোধী প্রতিশ্রুতির পাশাপাশি অবকাঠামো এবং রাস্তাঘাট উন্নয়নের অঙ্গীকার নিয়ে ভোটারদের কাছে যাচ্ছেন ওয়ার্ড কাউন্সিলর প্রার্থীরা। এই ওয়ার্ডে ১১ জন কাউন্সিলর প্রার্থী প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন। ১০ নম্বর ওয়ার্ডের সাবেক কমিশনার শাজাহান দেওয়ান, ওয়ার্ড আওয়ামী লীগের সভাপতি মিয়া মোহাম্মদ লুৎফর, ঢাকা মহানগর যুবলীগ উত্তরের সহ-সভাপতি হাজী জলিলুর রহমান ও আওয়ামী লীগ নেতা আবু তাহের এবারের ঢাকা উত্তর সিটি কর্পোরেশন নির্বাচনে ওয়ার্ড কাউন্সিলর পদের জন্য জনসংযোগ ও প্রচারণা চালাচ্ছেন। বিগত সিটি কর্পোরেশন নির্বাচনে বিএনপি সমর্থক মাসুদ খান নির্বাচিত হয়েছিলেন।

নির্বাচনে ভোটারদের কি ধরনের প্রতিশ্রুতি দিচ্ছেন এমন প্রশ্নের জবাবে ঢাকা মহানগর যুবলীগ উত্তরের সহ-সভাপতি হাজী জলিলুর রহমান জনকণ্ঠকে বলেন, এই এলাকায় মশা, মাদক ও ডাস্টবিনের সমস্যা রয়েছে। তাই এসব সমস্যা সমাধানের প্রতিশ্রুতি দিচ্ছি। এছাড়া ডিজিটাল ওয়ার্ড গড়তে চাই। খুব কম সময়ে দ্রুত নাগরিক সেবা পৌঁছে দিয়ে ডিজিটাল ওয়ার্ড গড়ার প্রতিশ্রুতি দিচ্ছেন বলে তিনি জানান।

১০ নম্বর ওয়ার্ডের বাসিন্দা দবির উদ্দিন জনকণ্ঠকে বলেন, এই এলাকার পানিতে দুর্গন্ধ রয়েছে। এছাড়া বেশ কিছু রাস্তাঘাটও ভাল নয়। এসব সমস্যা সমাধানে যিনি এগিয়ে আসবেন আমরা তাকেই ভোট দেব।

১১ নম্বর ওয়ার্ড ॥ কল্যাণপুর, দারুসসালাম, নতুন বাজার ও পাইকপাড়া নিয়ে ১১ নম্বর ওয়ার্ড গঠিত। এ ওয়ার্ডে মোট ভোটার সংখ্যা ৫৭ হাজার ৯৩৮ জন। এর মধ্যে পুরুষ ভোটার ৩০ হাজার ২৪২ জন ও মহিলা ভোটার ২৭ হাজার ৬৯৬ জন। এবারের নির্বাচনে ১১ নম্বর ওয়ার্ডে ১০ জন কাউন্সিলর প্রার্থী প্রতিদ্বন্দ্বিতায় রয়েছেন। এদের মধ্যে রয়েছেন সাবেক কমিশনার ও মিরপুর থানা আওয়ামী লীগের সাবেক সভাপতি দেলোয়ার হোসেন।

পাশাপাশি নির্বাচনী লড়াইয়ে যোগ দিচ্ছেন ওয়ার্ড আওয়ামী লীগের সভাপতি গাজী বাবুল ও আওয়ামী লীগ নেতা দেওয়ান মান্নান। নির্বাচনী লড়াইয়ে প্রার্থীরা পানি, বিদ্যুতও গ্যাস সমস্যাসহ সন্ত্রাস ও মাদক নির্মূলের প্রতিশ্রুতি নিয়ে এলাকাবাসীর কাছে যাচ্ছেন। পাশাপাশি রাস্তাঘাট ও শিক্ষার উন্নয়নে কাজ করবেন বলে প্রচারণা চালাচ্ছেন কাউন্সিলর প্রার্থীরা।

১২ নম্বর ওয়ার্ড ॥ মিরপুরের দক্ষিণ বিশিল, পাইকপাড়ার কিছু অংশ, স্টাফ কোয়ার্টার, আনসার ক্যাম্প, কলওয়ালাপাড়া ও শাহ আলীবাগ নিয়ে ঢাকা উত্তর সিটি কর্পোরেশনের ১২ নম্বর ওয়ার্ড। এ ওয়ার্ডে মোট ভোটার সংখ্যা ৭৮ হাজার ৯০৮ জন। পুরুষ ৪০ হাজার ৮৮১ জন ও মহিলা ৩৮ হাজার ২৭ জন। ১২ নম্বর ওয়ার্ডে প্রার্থীদের ছড়াছড়ি।

প্রকাশিত : ৯ এপ্রিল ২০১৫

০৯/০৪/২০১৫ তারিখের খবরের জন্য এখানে ক্লিক করুন


ব্রেকিং নিউজ: