রৌদ্রজ্জ্বল, তাপমাত্রা ২৩.৯ °C
 
৯ ডিসেম্বর ২০১৬, ২৫ অগ্রহায়ণ ১৪২৩, শুক্রবার, ঢাকা, বাংলাদেশ

সোনা পাচারের দায়ে দম্পতি আটক

প্রকাশিত : ৮ এপ্রিল ২০১৫

স্টাফ রিপোর্টার ॥ এবার সোনা পাচারের দায়ে আটক করা হয়েছে এক দম্পতিকে। শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে তাদের ১৪টি সোনার বার ও গয়নাসহ ৬ জনকে আটক করে বিমানবন্দর আর্মড পুলিশ ব্যাটালিয়ন (এপিবিএন)। মঙ্গলবার সকাল নয়টাার দিকে তাঁদের আটক করা হয়। উদ্ধার করা সোনার ওজন পৌনে দু’কেজি বলে জানিয়েছে এপিবিএন। আটক যাত্রীরা হলেনÑ কামরুল হাসান (৫২), তাঁর স্ত্রী ইসমত আরা (৪০), মহসিন বাদল (৪৫), তাঁর স্ত্রী জেসমিন বাদল (৪২), মজিবুর রহমান (৪৮) ও মোঃ আজাদ (৫২)। যাত্রীরা শরীরের বিভিন্ন স্থানে এ সব সোনা ও গয়না লুকিয়ে রেখেছিলেন।

এপিবিএনের সিনিয়র সহকারী পুলিশ সুপার আলমগীর হোসেন জানান, সকাল সাড়ে সাতটার দিকে মালয়েশিয়া থেকে বাংলাদেশ বিমানে করে ঢাকায় আসেন ওই ছয় যাত্রী। দেড় ঘণ্টা পর বিমানবন্দরের ২ নম্বর ক্যানপি থেকে তাঁদের আটক করা হয়। যাত্রীদের কাছ থেকে এক শ’ গ্রাম ওজনের ১৪টি সোনার বার ও ৩০০ গ্রাম ওজনের গয়না উদ্ধার করা হয়েছে বলে তিনি জানান। বিমানবন্দর থানায় মামলা করা হবে।

কনুইয়ে সোনার বার ॥ এদিকে সকালে মালয়েশিয়া থেকে আসা মজিবুর রহমান নামের এক যাত্রীর কনুইয়ের সঙ্গে পেঁচানো অবস্থায় লুকিয়ে রাখা ৮টি সোনার বার উদ্বার করা হয়।

এপিবিএন এএসপি আলমগীর হোসেন শিমুল তাকে সন্দেহজনক হওয়ায় শার্ট খুলতে বললে তিনি গড়িমসি করেন। এরপর শার্ট খোলা হলে দেখা যায় কনুইয়ে স্কচ টেপ দিয়ে মুড়ানো এ সোনার বারগুলো। তার বাড়ি মুন্সিগঞ্জে। তিনি পেশাদার সোনা চোরাচালানী।

২৮৬ কার্টন বিদেশী সিগারেট উদ্ধার ॥ বিমানবন্দরে মোঃ শহীদ নামে এক যাত্রীর কাছ থেকে ২৮৬ কার্টন বিদেশী সিগারেট উদ্ধার করেছে শুল্ক কর্তৃপক্ষ। এ্যামিরেটস এয়ারলাইনসের একটি ফ্লাইটে মোঃ শহীদ আসেন। বিমানবন্দরে স্ক্যান করার সময় সিগারেটের কার্টনগুলো উদ্ধার করা হয়। তবে এর আগেই শহীদ পালিয়ে যান। ঢাকা কাস্টমস হাউসের সহকারী কমিশনার ফরিদ আল মামুনের ভাষ্য, জব্দ করা সিগারেটের মধ্যে বেনসনের কার্টন ছিল ২৫৩টি ও ইজি ব্র্যান্ডের কার্টন ছিল ৩৩টি। এগুলোর মূল্য সাত লাখ টাকা।

প্রকাশিত : ৮ এপ্রিল ২০১৫

০৮/০৪/২০১৫ তারিখের খবরের জন্য এখানে ক্লিক করুন

শেষের পাতা



ব্রেকিং নিউজ: