কুয়াশাচ্ছন্ন, তাপমাত্রা ২২.২ °C
 
৩ ডিসেম্বর ২০১৬, ১৯ অগ্রহায়ণ ১৪২৩, শনিবার, ঢাকা, বাংলাদেশ
শীর্ষ সংবাদ

সংরক্ষিত ১৯ নারী আসনে প্রার্থী ১৫২

প্রকাশিত : ৪ এপ্রিল ২০১৫
  • ঢাকা দক্ষিণ সিটি নির্বাচন

রাজন ভট্টাচার্য ॥ দাখিলকৃত ও বৈধ মিলিয়ে ঢাকা দক্ষিণ সিটি কর্পোরেশনে ১৯টি সংরক্ষিত নারী আসনে প্রার্থী সংখ্যা ১৫২ জন। তাদের মধ্যে স্বশিক্ষিত ও অক্ষরজ্ঞানসম্পন্নই বেশি। প্রাথমিক বিদ্যালয়ের গ-ি পার হতে পারেননি এমন প্রার্থী সংখ্যাও অনেক। বেশিরভাগ প্রার্থী ব্যবসায়ী ও গৃহিণী। হলফনামায় একজন প্রার্থী দালালি ব্যবসা করার কথা উল্লেখ করেছেন। কারও কারও বিরুদ্ধে রয়েছে মামলা। সবচেয়ে বেশি প্রার্থী ১৮ আসনে ১৫ জন। কম প্রার্থী আট আসনে মাত্র তিনজন। প্রার্থীদের নির্বাচন কমিশনে দাখিল করা হলফনামা থেকে এসব তথ্য জানা গেছে।

এক নম্বর ওয়ার্ডে বৈধ প্রার্থী সংখ্যা ১০ জন। তাদের মধ্যে আছেন, তাহেরা খানম মিলকি (বিএ), ফাতেমা আক্তার ডলি (অক্ষর জ্ঞানসম্পন্ন), ফারজানা ইয়াসমিন (বিএসএস), ফারহানা চৌধুরী (অক্ষরজ্ঞানসম্পন্ন), মমতাজ বেগম (বিএসএস), মরিয়ম আক্তার (এমকম, চাকরি), মোসাঃ আশা সিদ্দিকা (এইচএসসি, গৃহিণী), শামীমা আক্তার (৮ম, ব্যবসা), শামীমা আক্তার সোমা (এমএসসি, চাকরি), শামীমা ইয়াসমীন (মাস্টার্স, ব্যবসায়ী)।

দুই নম্বর ওয়ার্ডে প্রার্থী সংখ্যা ১১ জন। তাদের মধ্যে রয়েছেন, ইছমত আরা (বিএ), জেবীন আক্তার (এসএসসি)। তিনি আয় করেন কৃষি খাত থেকে। নাজমা ইসলাম (নবম, ব্যবসা), মাকসুদা শমশের (৮ম, ব্যবসা), মাহফুজা রিনা, মাহছেন আরা বেগম (১০ম)। শারমিন সুলতানা সালমা পেশায় ব্যবসায়ী, স্নাতকোত্তর পাস করা সুপ্রিয়া ভট্টাচার্য্য ব্যবসা করেন তিনি। সেলিনা আক্তার, হামিদা খানম মনি (এসএসসি, ব্যবসায়ী) হাসনে আরা চৌধুরী (এসএসসি), দোকান ভাড়া পান তিনি। সংরক্ষিত মহিলা আসন ৩, প্রার্থী সংখ্যা সাত জন। তাদের মধ্যে রয়েছেন, জেবুন্নেসা মীনা (এইসএসসি), নাসিমা আহমেদ (অষ্টম, শেয়ার ব্যবসায়ী), স্বাক্ষরজ্ঞানসম্পন্ন মিনু চৌধুরী (ব্যবসায়ী)। এই প্রার্থীর বিরুদ্ধে রয়েছে পাঁচটি মামলা। মিনু রহমান (এসএসসি, ভাড়া পান)। মমতাজ বেগম (মম) (অক্ষরজ্ঞানসম্পন্ন) তাঁর স্বর্ণালঙ্কার রয়েছে ৩৫ ভরি। হাসিনা আক্তার (এইচএসসি, ব্যবসা), হোসনে আরা বেগম (স্বশিক্ষিত)।

সংরক্ষিত মহিলা আসন ৪, এ প্রার্থী সংখ্যা সাত জন। তাদের মধ্যে রয়েছেন, ফারহানা ইসলাম (ডলি) এইচএসসি-ব্যবসা), মল্লিকা জামান মুক্তা, মাজেদা বেগম (এসএসসি), মোর্শেদা বেগম (অষ্টম, ব্যবসা) শেফালী আক্তার (অষ্টম, ব্যবসা), শোভা (অষ্টম, ব্যবসা), সালেহা আহমেদ (বিএ, ব্যবসা)।

সংরক্ষিত মহিলা আসন ৫-এ যাচাই বাছাইয়ের পর প্রার্থী সংখ্যা ১০ জন। তাদের মধ্যে রয়েছেন, কাজল রেখা (অষ্টম, ব্যবসা), তাসলিমা পারভীন (এসএসসি, ব্যবসা), নুরজাহান চৌধুরী (স্বশিক্ষিত), মমতাজ পারভীন শিমু, মিনি খান, লিপিকা দাস গুপ্ত (বিএ, ব্যবসা), শম্প বসু (বিএসসি, সিভিল ইঞ্জিনিয়ারিং), সানজিদা শিকদার পান্না, সৈয়দা মরিয়ম বেগম (সীমা), সৈয়দা রোকসানা ইসলাম চামেলী।

সংরক্ষিত মহিলা ছয় আসনে প্রার্থী সংখ্যা ছয়জন। তাদের মধ্যে রয়েছেন, আফরোজা হাসমত, জাহানারা বেগম (রোজী), নারগীস মাহতাব, নাসিমা খাতুন (চন্দ্রা), রহিমা ইসলাম (রুমি), শিরিন জাহান

সংরক্ষিত মহিলা আসন সাত-এ প্রার্থী সংখ্যা ছয়জন। তাদের মধ্যে রয়েছেন, জাহানারা বেগম, দেলওয়ারা মজুমদার, লিলি, নাসরিন বেগম, শিরিন গাফ্ফার, সালমা ভূইয়া চায়না, সৈয়দা রাজিয়া মোস্তফা।

সংরক্ষিত মহিলা আসন আট-এ প্রার্থী সংখ্যা তিনজন। তাদের মধ্যে স্বশিক্ষিত আয়েশা মোকারম, স্বাক্ষরজ্ঞানসম্পন্ন নিলুফার রহমান ও এইচএসসি পাস করেছেন ব্যবসায়ী নূরহাজান বেগম।

সংরক্ষিত মহিলা আসন নয়-এ প্রার্থী সংখ্যা চার জন। তাদের মধ্যে স্বশিক্ষিত প্রার্থী আলেয়া পারভীন রনজু। ব্যবসায়ী এই প্রার্থীর বিরুদ্ধে রয়েছে একটি মামলা। স্বশিক্ষিত প্রার্থী শাহীন আক্তার শানু, সুফিয়া বেগম (অষ্টম), সেতু রহমান।

সংরক্ষিত মহিলা আসন ১০-এর এবারের নির্বাচনে প্রার্থী সংখ্যা ছয়জন। তাদের মধ্যে রয়েছেন, অষ্টম শ্রেণী পর্যন্ত পড়াশোনা করেছেন আসমা আক্তার রুনা। ব্যবসায়ী এই প্রার্থীর বাৎসরিক আয় তিন লাখ ১৫ হাজার টাকা। স্বাক্ষরজ্ঞানসম্পন্ন জাকিয়া করিম। তিনি পেশায় গৃহিণী। ব্যবসায়ী নাছিমা সুলতানা, অষ্টম শ্রেণী পাস, চাকরি থেকে এই প্রার্থী বছরে আয় করেন দুই লাখ ১০ হাজার টাকা। বিলকিছু বানু (এসএসসি), স্বশিক্ষিত প্রার্থী সেলিমা বেগম। তিনি পেশায় একজন ব্যবসায়ী। এমএমএস পাস করেছেন সামসুন নাহার ভূঁইয়া। বছরে নিজ ব্যবসা প্রতিষ্ঠান থেকে আয় করেন দুই লাখ ৪৫ হাজার টাকা।

সংরক্ষিত মহিলা আসন ১১তে বৈধ প্রার্থীর সংখ্যা ১১ জন। তাদের মধ্যে আছেন, নাসিরিন রশিদ পুতুল, নূরজাহান বেগম, নাজমা আক্তার, রাশিদা আলিম, রাশিদা আক্তার ঝুমা, রেজওয়ানা রহিম, রেহেনা বেগম, রোখসানা হাওলাদার (স্বশিক্ষিত ও গৃহিণী), স্বশিক্ষিত লুনা হুমায়ূন তিনি পেশায় একজন গৃহিণী। তিনটি মামলা রয়েছে শেখ ইরানীর বিরুদ্ধে। তিনি স্বশিক্ষিত। এসএসসি পাস করা সখিনা আরমান বিউটি পেশায় গৃহিণী। সংরক্ষিত মহিলা ১২ আসনে বৈধ প্রার্থী সংখ্যা ছয়জন। তাদের মধ্যে রয়েছেন, আনোয়ারা বেগম, জিন্নাতুল বাকিয়া, মনোআরা তাহের (এসএসসি), সুরাইয়া বেগমের বিরুদ্ধে রয়েছে দুটি মামলা। এর সবক’টিই বিচারাধীন। তিনি এসএসসি পাস। স্বাক্ষরজ্ঞানসম্পন্ন সেফালী রানী মল্লিক। তিনি পেশায় গৃহিণী। স্বশিক্ষিত ও ব্যবসায়ী প্রার্থী সুফিয়া বেগম । সংরক্ষিত মহিলা আসন ১৩তে এবারে প্রার্থী সংখ্যা ১১ জন। তাদের মধ্যে রয়েছেন, তাহেরা পারভীন রুপন, মতিয়া বেগম পুতুল, মমতাজ চৌধুরী টিটু, মলি চৌধুরী, মিনু বেগম, রেহেনা ইয়াসমিন ডলি, রাশিদা পারভীন, শাহিনা আক্তার, শাহিনুর বেগম, শিলা আক্তার, সালেহা বেগম।

সংরক্ষিত মহিলা আসন ১৪তে এবারের নির্বাচনে প্রার্থী হয়েছেন ১০ জন। তাদের মধ্যে স্বশিক্ষিত পারভীন আক্তার। পারুল আক্তারও স্বশিক্ষায় শিক্ষিত। স্বাক্ষরজ্ঞানসম্পন্ন ফরিদা ইয়াসমীন। তিনি বছরে বাড়ি ভাড়া থেকে আয় করেন তিন লাখ ২৪ হাজার টাকা। স্বশিক্ষিত রতœা। অষ্টম শ্রেণী পাস করা ব্যবসায়ী মালা আক্তারের বাৎসরিক আয় আড়াই লাখ টাকা। এইচএসসি পাস করা রাবেয়া শহীদের বিরুদ্ধে রয়েছে দুটি মামলা। এসএসসি পাস রোখসানা বেগম পেশায় ব্যবসায়ী। লাভলী চৌধুরী (এইচএসসি)। ব্যবসায়ী প্রার্থী হাসিনা আক্তারের বছরে আয় দুই লাখ ৭৫ হাজার টাকা। এছাড়াও প্রার্থী হয়েছেন হেলেন খাতুন।

প্রকাশিত : ৪ এপ্রিল ২০১৫

০৪/০৪/২০১৫ তারিখের খবরের জন্য এখানে ক্লিক করুন


ব্রেকিং নিউজ: