আংশিক মেঘলা, তাপমাত্রা ২২.২ °C
 
৭ ডিসেম্বর ২০১৬, ২৩ অগ্রহায়ণ ১৪২৩, বুধবার, ঢাকা, বাংলাদেশ
শীর্ষ সংবাদ

আলোচিত কেট মস

প্রকাশিত : ২০ মার্চ ২০১৫
  • তৌফিক অপু

প্রতিবন্ধকতা কোন মানুষের জীবনকে থামিয়ে দিয়েছে আবার কারও জীবনে করেছে গতি সঞ্চার। কেউ বাধা পেয়ে থেমে গেছে, কেউ কেউ নতুনভাবে জীবনকে গড়ে নিতে সক্ষম হয়েছেন। তেমনি একজন বিজয়ীর নাম হচ্ছে কেট মস্। মাত্র তেরো বছর বয়সে বাবা-মায়ের বিচ্ছেদ ঘটে। ষোলো বছর বয়সে লেবার পার্টিতে যোগ দেন। তিনি তার এলাকায় রক্ষণশীল সমাজের বিরুদ্ধে প্রতিবাদ করেন। ছোটবেলা থেকেই নানা রকম চড়াই উৎরাই পাড়ি দিয়ে বড় হয়েছেন।

সম্প্রতি তার নগ্ন ছবির প্রদর্শনী নিয়ে বেশ আলোচনা সমালোচনার জন্ম দিয়েছেন তিনি। কেইটের স্বামী জেইমি হিন্সের উদ্যোগেই করা হচ্ছে এ আয়োজন।

ব্রিটিশ সংগীতশিল্পী হিন্স তার প্রথম আলোকচিত্র প্রদর্শনীর আয়োজন করেন নিউইয়র্কে, ২০১৪ সালের জুনে। ১২ বছর ধরে তোলা ছবির সংগ্রহ নিয়ে আয়োজিত ঐ প্রদর্শনীতে স্থান পেয়েছিল তার ব্যান্ড ‘দ্য কিল’-এর সদস্য অ্যালিসন মোশার্টের বিছানায় শায়িত একটি ছবি।

এখন তিনি তার স্ত্রীর নগ্ন ছবির সংগ্রহ দিয়ে প্রদর্শনী আয়োজনের সিদ্ধান্ত নিয়েছেন। হিন্সের মতো কেট মসও এই উদ্যোগ নিয়ে দারুণ উচ্ছ্বসিত।

এক সূত্র বলছে, ‘জেইমি এখন তার স্ত্রীর বিখ্যাত সব নগ্ন ছবি এনে জড়ো করছেন তার দ্বিতীয় আলোকচিত্র প্রদর্শনীর জন্য। তার প্রথম প্রদর্শনীর সর্বাধিক বিক্রীত ছবির মধ্যে ছিল অ্যালিসন মোশার্টের বিছানায় শোয়া ছবিটি, যা নিয়ে বেশ বিব্রতকর পরিস্থিতিতে পড়তে হয়েছিল কেইটকে।’

‘এইবার জেইমি তার স্ত্রীর টপলেস এবং নগ্ন ছবির ওপরই বেশি জোর দিচ্ছেন। সেই সঙ্গে প্রদর্শনীতে স্থান পাবে তাদের পোষা কুকুর আর্চির ছবিও।’

১৯৭৪ সালের ১৬ জানুয়ারি লন্ডনের এডিসকম্ব প্রদেশের ক্রোয়ডন শহরে জন্মগ্রহণ করেন। রিডলস ডাউন হাইস্কুল থেকে পাস করে রিডলস ডাউন কলেজ থেকে উচ্চ শিক্ষা গ্রহণ করেন। পড়ালেখায় তেমন কোন উজ্জ্বল স্বাক্ষর তিনি রাখতে পারেননি। কোন সার্টিফিকেট কোর্সেই তিনি ভাল রেজাল্ট করতে পারেননি। কিন্তু সে সব তাঁকে মোটেই বিচলিত করতে পারেনি। তিনি তাঁর লক্ষ্যে অটুট ছিলেন। বিভিন্ন ফ্যাশন শো দেখে তিনি মডেল হওয়ার স্বপ্ন দেখতেন। চাল-চলন বাচনভঙ্গি মডেলদের মতো করার চেষ্টা করতেন। ১৯৯০ সালে যখন তাঁর বয়স ষোলো তখন তিনি কোরিনি দে এর কাছ থেকে কিছু ফটোসেশন করান। সাদা কালো আবেদনময়ী সে ছবিগুলো বেশ সাড়া জাগিয়েছিল। ব্রিটিশ ম্যাগাজিন ‘দি ফেস’ তাদের একটি সংখ্যায় কেট মসকে প্রচ্ছদ কন্যা হিসেবে ব্যবহার করে। সংখ্যাটি ছিল ‘দি থার্ড সামার অব লাভ’। সেদিন থেকেই জানান দেন তিনি আসছেন ফ্যাশন রাজ্যে শক্ত আসনে অধিষ্ঠিত হতে। শুরু হয় হাঁটি হাঁটি পা পা করে পথ চলা। এরই ধারাবাহিকতায় ১৯৯৫ সালে এফএম এইচের জরিপে ১০০ জন আবেদনময়ী নারী মডেলদের মধ্যে তিনি ২২তম স্থানটি দখল করে নেন। বছর যেতে না যেতেই ১৯৯৯ সালে ম্যাগাজিন ম্যাক্সিম পাঠক জরিপে ৫০জন আবেদনময়ী মডেলদের মধ্যে তাঁর অবস্থান নিয়ে আসে ৯ নম্বরে। এরপর থেকে আর পেছনে ফিরে তাকাতে হয়নি তাঁকে। ১৯৯৯ সালে তিনি আমেরিকান ভোগ এর কভার পেজ মডেল হন। ৫ফিট ৭ ইঞ্চি উচ্চতার এই মডেল একের পর এক এ্যাওয়ার্ড পেয়ে জিতে নিজেকে নিয়ে যান সুপার মডেলদের তালিকায়। ২০০৭ সালে সবচেয়ে বেশি আবেদনময়ী মডেলদের শীর্ষ স্থান দখল করে ‘এন এম ই’ এ্যাওয়ার্ড জিতে নেন। একই বছরে ‘সানডি টাইমস্ রিচ লিস্ট’ এ ব্রিটিশ মডেল হিসেবে নিজের নাম লিখান তিনি। ব্রিটেনের ৯৯ জন ধনী মহিলাদের একজন বনে যান। তার নিট সম্পত্তির পরিমাণ দাঁড়ায় ৪৫ মিলিয়ন পাউন্ড। এখনও ফ্যাশন রাজ্যে এক আলোচিত মডেল কেট মস্।

২০১১ সালে কেট মস ও হিন্স বিয়ে করেন।

প্রকাশিত : ২০ মার্চ ২০১৫

২০/০৩/২০১৫ তারিখের খবরের জন্য এখানে ক্লিক করুন


ব্রেকিং নিউজ: