কুয়াশাচ্ছন্ন, তাপমাত্রা ২২.২ °C
 
৫ ডিসেম্বর ২০১৬, ২১ অগ্রহায়ণ ১৪২৩, সোমবার, ঢাকা, বাংলাদেশ
শীর্ষ সংবাদ

না’গঞ্জে প্রতিশোধ নিতে শিশুকে হত্যা ॥ সৎমা গ্রেফতার

প্রকাশিত : ২৭ ফেব্রুয়ারী ২০১৫
  • নরসিংদী ও মাগুরায় দুই লাশ উদ্ধার

জনকণ্ঠ ডেস্ক ॥ নারায়ণগঞ্জে স্বামী-সতীনের বিরুদ্ধে প্রতিশোধ নিতে এক শিশুকে হত্যা করা হয়েছে। নরসিংদীতে কিশোর ও মাগুরায় মহিলার লাশ উদ্ধার হয়েছে। খবর স্টাফ রিপোর্টার ও নিজস্ব সংবাদদাতাদের।

নারায়ণগঞ্জ ॥ আড়াইহাজারে স্বামী ও সতীনের বিরুদ্ধে প্রতিশোধ নিতে এক শিশুকে পানিতে ডুবিয়ে হত্যা করেছে তার সৎমা। বৃহস্পতিবার সকালে উপজেলার জাঙ্গালিয়া এলাকার মেঘনার শাখা নদী থেকে নিহত চার বছরের শিশু মরিয়মের লাশ উদ্ধার করেছে। হত্যার দায়ে অভিযুক্ত সৎমা নিলুফা বেগম(২২)কে গ্রেফতার করেছে পুলিশ।

আড়াইহাজার থানার ওসি জানান, গ্রেফতার হওয়া নিলুফা বেগমের বাবার বাড়ি উপজেলার চম্পকনগর এলাকায়। তার স্বামী সুলতান পেশায় ভ্যান চালক । সে বিয়ে করেছে দুটি। নিলুফা দ্বিতীয় স্ত্রী। দুই স্ত্রী ও সন্তানদের নিয়ে যাত্রাবাড়ী ভাড়া থাকে সুলতান। স্বামীর সঙ্গে ঝগড়ার কারণে এক মাস ধরে নিলুফা আড়াইহাজারে বাবার বাড়িতে ছিল। নিলুফার অভিযোগ, সে অন্তঃসত্ত্বা ছিল। দু’মাস আগে স্বামী ও সতীন তাকে ওষুধ খাইয়ে ভ্রƒণটি হত্যা করে। এ নিয়ে স্বামীর সঙ্গে তার ঝগড়া হয়। বুধবার বিকেলে সে যাত্রাবাড়ীর বাসায় যায়।

এ সময় স্বামী সুলতান ও সতীন শাহীদা বাসায় ছিল না। শাহীদা কাজ করে পোশাক কারখানায়। নিলুফা বেড়ানোর কথা বলে শাহীদার দুই মেয়ে মিম (৭) ও মরিয়ম (৪)কে আড়াইহাজারে নিয়ে আসে। রাতে স্বামী ও সতীন শাহীদার প্রতি প্রতিশোধ নিতে জাঙ্গালিয়া এলাকায় নদীর পারে নিয়ে পানিতে ডুবিয়ে তাদের হত্যার চেষ্টা করে। দুই শিশুর চিৎকারে এলাকার লোকজন মিমকে উদ্ধার করে। কিন্তু ততক্ষণে মরিয়ম পানিতে তলিয়ে যায়।

পালিয়ে যায় নিলুফা। পুলিশ খবর পেয়ে মিমকে তাদের হেফাজতে রাখে। সকালে জাঙ্গালিয়া এলাকায় মেঘনার শাখা নদী থেকে উদ্ধার করা হয় মরিয়মের লাশ। চম্পকনগর থেকে গ্রেফতার করা হয় নিলুফাকে। পুলিশের কাছে সে স্বীকার করেছে,স্বামী আর সতীনের বিরুদ্ধে প্রতিশোধ নিতে সে এই ঘটনা ঘটিয়েছে। তার বিরুদ্ধে আড়াইহাজার থানায় হত্যা মামলা হয়েছে।

নরসিংদী ॥ শহরের বাসাইল এলাকায় নির্মাণাধীন এক ভবনের ভেতর থেকে শাকিল (১৬) নামে এক কিশোরের লাশ উদ্ধার করেছে পুলিশ।

বৃহস্পতিবার সকাল ১০টায় বাসাইল গ্রামের রিপন মিয়ার নির্মাণাধীন ভবনে শ্রমিকরা কাজ করতে গিয়ে নিহতের লাশ দেখতে পায় পরে পুলিশে খবর দেয়। পুলিশ এসে লাশ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য নরসিংদী সদর হাসপাতাল মর্গে প্রেরণ করেছেন।

মাগুরা ॥ মহম্মদপুর উপজেলার বড়রিয়া গ্রামের সংলগ্ন সেচ খালের পাড় থেকে বৃহস্পতিবার অজ্ঞাত এক মহিলার লাশ উদ্ধার করেছে পুলিশ। দুপুরে সদর হাসাপাতাল মর্গে ময়নাতদন্তের জন্য লাশটি পাঠানো হয়েছে।

প্রকাশিত : ২৭ ফেব্রুয়ারী ২০১৫

২৭/০২/২০১৫ তারিখের খবরের জন্য এখানে ক্লিক করুন

দেশের খবর



ব্রেকিং নিউজ: