কুয়াশাচ্ছন্ন, তাপমাত্রা ২২.২ °C
 
৪ ডিসেম্বর ২০১৬, ২০ অগ্রহায়ণ ১৪২৩, রবিবার, ঢাকা, বাংলাদেশ
শীর্ষ সংবাদ

হরতাল দিয়ে বিএনপির কোন লাভ হবে না ॥ তোফায়েল

প্রকাশিত : ২৯ ডিসেম্বর ২০১৪

অর্থনৈতিক রিপোর্টার ॥ হরতাল দিয়ে দলটি (বিএনপি) লাভবান হবে না বলে মন্তব্য করেছেন বাণিজ্যমন্ত্রী তোফায়েল আহমেদ। বিএনপির প্রতি ইঙ্গিত করে বাণিজ্যমন্ত্রী আরও বলেছেন, ২০১৯ সালের আগে নির্বাচনও নয়। আপনারা গত নির্বাচনে না এসে ভুল করেছেন। এজন্য এদেশের মানুষ দায়ী নয়। ওই সময় হরতাল-অবরোধ করে আপনারা জনসমর্থন হারিয়েছেন। আবার এখন হরতাল আহ্বান করছেন। এতে এদেশের ব্যবসায়ী ও অর্থনীতির ক্ষতি হবে কিন্তু আপনারা লাভবান হতে পারবেন না।

রবিবার রাজধানীর সিরডাপ মিলনায়তনে বাংলাদেশ ইনডেনটিং এজেন্ট এ্যাসোসিয়েশন (বিআইএএ) আয়োজিত ‘বেস্ট ইনডেনটরস এ্যাওয়ার্ড-২০১৪’ প্রদান অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তৃতায় তিনি এসব কথা বলেন।

বাণিজ্যমন্ত্রী বলেন, বাংলাদেশের অর্থনীতিতে ব্যবসায়ীদের অবদান সবচেয়ে বেশি। তাদের নেতৃত্বেই এদেশের অর্থনীতি এগিয়ে যাচ্ছে। বর্তমান সরকার ব্যবসাবান্ধব সরকার। আমরা ব্যবসায়ীদের সঙ্গে কাঁধে কাঁধ মিলিয়ে কাজ করে যাচ্ছি। তাদের নেতৃত্বে আমরা অর্থনৈতিকভাবে অনেক এগিয়ে গেছি। কিন্তু স্বাধীনতার পর অনেকে মন্তব্য করেছিল বাংলাদেশ নাকি একটি তলাবিহীন ঝুড়ি। আমরা তাদের সেই ধারণা ভুল প্রমাণ করেছি।

নির্বাচন সম্পর্কে তিনি বলেন, সংবিধান অনুযায়ী দেশে গত নির্বাচন হয়েছে। তাই আগাম নির্বাচন দেয়ার জন্য যদি কেউ দেশকে অস্থিতিশীল করে তুলতে চায় তবে তা বাস্তবায়ন হবে না। তার প্রমাণ গাজীপুর। সেখানে বিএনপি সমাবেশ করতে পারল না। বিদেশে বসে আমাদের মহান নেতা বঙ্গবন্ধুকে নিয়ে বেগম জিয়ার কুপুত্র যদি মন্তব্য না করত তবে এ পরিস্থিতির সৃষ্টি হতো না।

তিনি আরও বলেন, আগামী ২০১৯ সালের আগে দেশে কোন নির্বাচনের সম্ভাবনা নেই। হরতাল দিয়েও কোন লাভ নেই। তোফায়েল আহমেদ বলেন, বাংলাদেশকে আজ বিশ্বে উন্নয়নের মডেল ধরা হয়। কেউ বলছে আগামীতে অর্থনৈতিভাবে উন্নত শীর্ষ ১১টি দেশের মধ্যে থাকবে। আবার কেউ বলছে ৫টি দেশের মধ্যে বাংলাদেশ হবে অন্যতম। পাকিস্তান থেকে বাংলাদেশ সব সূচকে এগিয়ে উল্লেখ করে বাণিজ্যমন্ত্রী জানান, গড় আয়ু, নারী শিক্ষা, রিজার্ভ রেমিটেন্স সব কিছুতে বাংলাদেশের অগ্রগতি রয়েছে। এ ছাড়া শিশু ও মাতৃত্বকালীন মৃত্যুহার পাকিস্তানের থেকে কম।

পাকিস্তানকে একটি ব্যর্থরাষ্ট্র উল্লেখ করে তিনি বলেন, পাকিস্তানে সম্প্রতি একটি সেনাশাসিত এলাকায় একটি স্কুলে ১৫০ ছাত্রকে হত্যা করা হয়। কিন্তু বাংলাদেশ অনেক জঙ্গী তৎপরতা ব্যর্থ করতে পেরেছে। সেবা রফতানি বিনিময়ে ইনডেন্টিং কমিশন হিসেবে সর্বোচ্চ বৈদেশিক মুদ্রা অর্জন ও দেশে প্রত্যাবাসনকারী চার ইনডেন্টিং সংস্থাকে স্বীকৃতি ও সম্মাননা প্রদান করেছে বিআইএএ। সংস্থার পক্ষ থেকে পুরস্কার গ্রহণ করেন ডিএসএম কমোডিটিসের স্বত্বাধিকারী দীপক কুমার বড়ুয়া, ওয়েলকট ইন্টারন্যাশনালের স্বত্বাধিকারী জুরুজ্জামান, দে’জ ইউনাইটেড সাপ্লাইয়ার্স কোং লিমিটেডের স্বত্বাধিকারী সুনান্দ দে এবং কালার কোয়েস্ট লিমিটেডের স্বত্বাধিকারী কাজী আব্দুস সালাম। বিআইএএ’র সভাপতি কে এম এইচ শহিদুল হকের সভাপতিত্বে বক্তব্য রাখেন-এফবিসিসিআই’র সভাপতি কাজী আকরাম উদ্দীন আহমেদ, সিনিয়র সহ-সভাপতি মনোয়ারা হাকিম আলী প্রমুখ। এফবিসিসিআই সভাপতি বলেন, দেশের অর্থনৈতিক উন্নয়নে বেসরকারী খাত সবচেয়ে বেশি কাজ করছে। এক্ষেত্রে বর্তমান ব্যবসাবান্ধব সরকারের সহযোগিতা রয়েছে। তিনি বলেন, বিদায়ী বছরের পুরো সময় হরতাল-অবরোধের মতো কর্মসূচী না থাকায় অর্থনীতির সব সূচকে ভাল করেছে বাংলাদেশ। কিন্তু আবারও হরতাল আহ্বান করা হচ্ছে। হরতালে দেশের অর্থনীতির সবচেয়ে বেশি ক্ষতি হয়। সাধারণ মানুষের কষ্ট বাড়ে। তাই এখন হরতালের বিকল্প রাজনৈতিক কর্মসূচী নির্ধারণ করা উচিত। তিনি বলেন, দেশের সেবা খাতে অভূতপূর্ব উন্নতি হয়েছে। বাংলাদেশ ইনডেনটিং এজেন্ট এ্যাসোসিয়েশন সেবা খাতে গুরুত্বপূর্ণ অবদান রেখে যাচ্ছে।

প্রকাশিত : ২৯ ডিসেম্বর ২০১৪

২৯/১২/২০১৪ তারিখের খবরের জন্য এখানে ক্লিক করুন

প্রথম পাতা



ব্রেকিং নিউজ: