কুয়াশাচ্ছন্ন, তাপমাত্রা ২২.২ °C
 
৩ ডিসেম্বর ২০১৬, ১৯ অগ্রহায়ণ ১৪২৩, শনিবার, ঢাকা, বাংলাদেশ
শীর্ষ সংবাদ

‘আসুন উন্নত ভবিষ্যত গড়ি’

প্রকাশিত : ১৯ ডিসেম্বর ২০১৪

বিশ্বে সর্বকনিষ্ঠ নোবেল জয়ী মালালা ইউসুফজাই। শিশুশ্রম নিরসন ও মানবাধিকারকর্মী ভারতীয় নাগরিক কৈলাশ সত্যার্থীর সঙ্গে যৌথভাবে এ বছর শান্তিতে নোবেল পেয়েছেন পাকিস্তানী এই কিশোরী। গত ১০ ডিসেম্বর নরওয়ের রাজধানী অসলোয় নোবেল পদক ও সম্মাননা গ্রহণ করেন তিনি। পুরস্কার প্রদান অনুষ্ঠানে নোবেল ভাষণ দিয়েছেন মালালা। তাঁর সে ভাষণের নির্বাচিত কিছু অংশ এখানে তুলে ধরা হলোÑ

‘পরম করুণাময়ের নামে’ শুরু করেন মালালা। তিনি বলেন, আজকের দিনটি আমার কাছে অনেক আনন্দের। সম্মানজনক এ পুরস্কারের জন্য আমাকে নির্বাচিত করায় নোবেল কমিটির কাছে আমি কৃতজ্ঞ।

মালালা তাঁর সকল শুভাকাক্সক্ষীকে ধন্যবাদ ও কৃতজ্ঞতা জ্ঞাপন করে বলেন, ‘যাঁরা আমাকে ভালবাসা দিয়েছেন, সবার কাছে আমি ঋণী। বিশ্বের বিভিন্ন প্রান্ত থেকে যাঁরা সুভেচ্ছাবার্তা পাঠিয়েছেন তাঁদের প্রতি ধন্যবাদ ও কৃতজ্ঞতা। সকলের শুভকামনা ও উৎসাহ আমাকে প্রেরণা দেয়।’ তাঁর কাছে সহযোগিতা ও সমর্থন যোগানোর জন্য তাঁর বাবা-মার কথা বিশেষভাবে উল্লেখ করেন। এবং তাদের কাছেও কৃতজ্ঞতা ও ধন্যবাদ জ্ঞাপন করেন তিনি। সর্বকনিষ্ঠ নোবেলজয়ী, একথা উল্লেখ করে তিনি নিজেকে ‘গর্বিত’ বলে অনুভূতি প্রকাশ করেন।

শিশু অধিকার বিষয়ে মালালা বলেন, ‘আমি চাই সবখানে শান্তি আসুক। অথচ আমাকে আমার ছোট ভাইদের নিয়ে এখনও শান্তির জন্য লড়তে হচ্ছে।’ এ প্রসঙ্গে মালালা আরও বলেন, শিশু অধিকার প্রতিষ্ঠায় কাজ করা কৈলাশ সত্যার্থীর মতো একজন মহৎ ব্যক্তির সঙ্গে যৌথভাবে নোবেল পাওয়ায় আমি খুব সম্মানিত বোধ করছি।’

নারী ও শিশু শিক্ষা আন্দোলনকর্মী মালালা শিশুদের শিক্ষার অধিকার নিয়ে বলেন, ‘আমি খুব খুশি, কারণ শিশু অধিকার প্রতিষ্ঠায় আমরা সবাই এক মঞ্চে দাঁড়িয়েছি। শিক্ষার অধিকার থেকে বঞ্চিত শিশুদের নিজের পুরস্কারের অংশীদার বলে উল্লেখ করেন মালালা। তিনি বলেন, ‘এ পুরস্কার আমার একার নয়। এটি সেইসব শিশুরও যারা শিক্ষার অধিকার থেকে বঞ্চিত। সেই শিশুদেরও প্রাপ্য, যারা শান্তি চায়। যারা পরিবর্তন চায়।’

২০১২ সালে তালেবান হামলার শিকার মালালা শিশুদের শিক্ষার সমান অধিকার ও পাশাপাশি নারীদের অধিকার আদায়ে নিজেকে প্রতিজ্ঞাবদ্ধ বলে বিশ্বব্যাপী সকলকে এ লক্ষ্যে একত্রিত হতে আহ্বান জানিয়েছেন।

সমব্যথা বা সহানুভূতি না জানিয়ে বরং শিশুশ্রম, বাল্যবিবাহ বন্ধ, শিশুদের শিক্ষার অধিকার দেয়াসহ বিভিন্ন লক্ষ্যে কার্যকরী পদক্ষেপ নেয়ার জন্য সবার সহযোগিতা কামনা করেন। মালালা বলেন, ‘একটি শিশু স্কুলের বাইরে আছে, এমন যেন না হয়। শিশু-কিশোরদের প্রতি মালালা বলেন, ‘সারা পৃথিবীতে আমার মতো যারা শিশু-কিশোর আছে, তারা জেগে ওঠো।’ সকলের উদ্দেশে মালালা বলেন, ‘আসুন আমরা উন্নত ভবিষ্যত গড়ি। আর তা এখন থেকেই, এখান থেকেই।’ শিশুদের জন্য উন্নত বিশ্ব গড়ার প্রত্যয় ও আহ্বান জানিয়ে মালালা এ লক্ষ্যে কাজ করতে নিজেকে প্রতিশ্রুতিবদ্ধ বলে উল্লেখ করেন।

সম্প্রতি পাকিস্তানের পেশোয়ারের আর্মি পাবলিক স্কুলে জঙ্গী হামলায় ১৪১ শিক্ষার্থী নিহত হওয়ায় নিন্দা ও প্রতিবাদ জানান মালালা।

সাবিনা ইয়াসমিন

প্রকাশিত : ১৯ ডিসেম্বর ২০১৪

১৯/১২/২০১৪ তারিখের খবরের জন্য এখানে ক্লিক করুন


ব্রেকিং নিউজ: