রৌদ্রজ্জ্বল, তাপমাত্রা ২৩.৯ °C
 
৮ ডিসেম্বর ২০১৬, ২৪ অগ্রহায়ণ ১৪২৩, বৃহস্পতিবার, ঢাকা, বাংলাদেশ
শীর্ষ সংবাদ

যত্নে রাখুন কুশন

প্রকাশিত : ৮ ডিসেম্বর ২০১৪
  • শামিমা আক্তার রিমা

ঘরের আসবাবপত্রর সঙ্গে গদি, কুশন নিয়মিত পরিষ্কার রাখতে হয়। সপ্তাহে একবার বেডকাভার ও বেডশিট তুলে গদি রোদে দিন তাহলে গদি ভাল থাকবে। তবে বিকেলে গদি বাইরে রাখবেন না। ভিজে ভাব রয়ে যাবে। রোদে গদি বের করা সম্ভব না হলে ঘরের জানালা দরজা খুলে রাখুন। আলো-বাতাস খেলবে। প্রতি ৩ থেকে ৬ মাস পর পর গদি উল্টে ব্যবহার করুন। এতে গদির ওপরের দিকের অংশ বেশিদিন ব্যবহারে জীর্ণ হয়ে যাবে না। গদির দুদিকই সমানভাবে ব্যবহৃত হবে। দুজনে মিলে ধরে গদি উল্টাবেন। সহজে গদি উল্টাতে পারবেন। গতিতে কাভার পরিয়ে রাখতে পারলেই ভাল। ওয়াশেবল কাভার ব্যবহার করুন, ধুলো-ময়লা লেগে নোংরা হওয়ার সম্ভাবনা কম। গদিতে জমে থাকা ধুলো-ময়লা থেকে এলার্জি হওয়ার আশঙ্কা থেকে যায়। ভ্যাকুয়াম ক্লিনারে আপহোলস্ট্রি এ্যাটাচমেন্ট লাগিয়ে নিয়মিত গদি ভ্যাকুয়াম ক্লিন করুন। গদির ওপরের অংশে বেশি ময়লা পরিষ্কার করার জন্য বড় দোকান থেকে আপহোলস্ট্রি শ্যাম্পু কিনে নিন। শ্যাম্পু না পেলে পানিতে অল্প পরিমাণে মাইলড ডিটারজেন্ট মিশিয়ে নিন। সম্পাঞ্জে দিয়ে সাবান লাগিয়ে ময়লার অংশটা পরিষ্কার করুন। পুরোপুরি শুকিয়ে গেলে তার ওপর বেডকাভার পেতে ফেলুন। নতুন গদি থেকে অনেক সময় অদ্ভুত গন্ধ বেরয়। সেক্ষেত্রে নতুন গদি কিছুক্ষণের জন্য রোদে দিতে পারেন বা জোরে ফ্যান চালিয়ে কিছুক্ষণ রাখুন। বিছানায় চাদর পাতার সময় গদির ধারগুলো মুড়বেন না। গদি বসে যাবে, না হলে গদির মাঝখানটা মুচকে যাবে। গন্ধ চলে যাবে। ১ ভাগ ভিনিগারের সঙ্গে ৩ ভাগ জল মিশিয়ে মিশ্রণ তৈরি করে বোতলে ভরে রাখুন। গদিতে কোন দাগ হলে দাগের ওপর এই সলিউশন স্প্রে করুন। তারপর গদি রোদে রাখুন। পুরোপুরি শুকিযে গেলে গদি ব্যবহার করুন। খাট ও গদির মাঝখানে কাঠের বোর্ড না রাখাই ভাল। সাময়িকভাবে বোর্ড থেকে সার্পোট পাওয়া গেলেও বোর্ড ব্যবহারে গদির নরম ভাব অনেকটাই নষ্ট হয়ে যায়। ৮-১০ বছর অন্তর গদি বদলে ফেলুন। শীতকালে গদির তুলো বদলে ফেলুন। এলার্জির সমস্যাও কমবে। গদিও ভাল তাকবে। পলিয়েস্টার প্যাডের তৈরি গদি, কুশন ভ্যাকুয়াম ক্লিন করতে পারেন। অনেক গদি চাপিয়ে বিছানা তৈরি করবেন না। ফোলা ভাব কমে যাবে।

কুশনের যতœ : একসঙ্গে অনেক কুশন চেপে চেপে জড়ো করে রাখবেন না। কুশনের ফোলা ভাব কমে যাবে। টিস্যু পেপারে মুড়ে পলিথিনের প্লাস্টিক ব্যাগে স্টোর করুন। প্রয়োজন প্লাস্টিকের ব্যাগে সিলিকা সেল রাখতে পারেন। কুশন দুসেট কিনে রাখুন। ৬ মাস অন্তর বদলে ব্যবহার করুন। ফোমের কুশন সাজানোর জন্য ব্যবহার করুন। সহজে নেতিয়ে পড়বে না। গদির মতো কুশনের তুলোও মাঝে মাঝে বদলান। কুশনের ফোলা ভাব কমে গেলে ধুনুরিকে দিয়ে একষ্ট্রা তুলো ভরে নিন। কুশন কাভার সিল্কের হলে বা কুশনের ওপর বিড, কাচ বা এ্যালেকের কাজ থাকলে ড্রাইওয়াশ করুন। ফেদার ফিলড কুশন হলে মেশিনে ওয়াশ করতে পারেন বা ড্রাই ক্লিন করুন। পলিয়েস্টার প্যাডের তৈরি কুশন হলে বাড়িতেই পরিষ্কার করে নিতে পারেন। বাড়িতে পরিষ্কার করার জন্য মাইলড ডিটারজেন্ট ব্যবহার করুন। ফেদার ফিলড কুশনে ভ্যাকুয়াম ক্লিন করবেন না। ফেদার নষ্ট হয়ে যাবে।

ছবি: আরিফ আহমেদ

প্রকাশিত : ৮ ডিসেম্বর ২০১৪

০৮/১২/২০১৪ তারিখের খবরের জন্য এখানে ক্লিক করুন


ব্রেকিং নিউজ: