মূলত পরিষ্কার, তাপমাত্রা ২১.১ °C
 
১০ ডিসেম্বর ২০১৬, ২৬ অগ্রহায়ণ ১৪২৩, শনিবার, ঢাকা, বাংলাদেশ
শীর্ষ সংবাদ

খলনায়ক বাপ্পি!

প্রকাশিত : ২০ নভেম্বর ২০১৪
খলনায়ক বাপ্পি!
  • নাজমুল আহমেদ তন্ময়

বর্তমান ব্যস্ততা কী নিয়ে?

বর্তমানে আমি জাকির হোসেন রাজুর ‘অনেক দামে কেনা’ ছবির কাজে ব্যস্ত আছি। এতে আমি, মাহী এবং ডিপজল ভাই একসঙ্গে কাজ করছি। তাছাড়া ‘লাভার নম্বর ওয়ান’ ছবিটির কিছু অংশ বাকি আছে তাই সেই ছবিটির শেষ দিকের কাজ সম্পন্ন করছি। তাছাড়া আরও বেশকিছু ছবির কাজ করছি এবং নতুন কিছু ছবির ব্যাপারে কথাবার্তা চলছে।

সম্প্রতি মুক্তি পাওয়া ‘অনেক সাধের ময়না’ ছবিটি নিয়ে কিছু বলেন?

‘অনেক সাধের ময়না’ ছবিটি নিয়ে এক কথায় বলব যে, এটা আমার সব ছবির মধ্যে অনেক ভাল একটা ছবি। আমি মনে করি আমার ১৪টি ছবির মধ্যে ১২টি ছবিই ভাল গেছে এবং এই ছবিটি আমার চার পাঁচটি ছবির মধ্যে অন্যতম একটি ছবি। কারণ এটি বাম্পার হিট হয়েছে এবং রাত ১২টা পর্যন্ত এটির শো চলেছে। তাই আমি নিজেকে অনেক সৌভাগ্যবান মনে করি যে এমন একটা ভাল মানের ছবিতে আমি কাজ করতে পেরেছি।

আপনি বর্তমান সময়ে বাংলা চলচ্চিত্রে সবচেয়ে জুনিয়র হিরো এবং ইন্ড্রাস্টিতে হিরো সংখ্যা কম হওয়ায় আপনাকে অল্প সময়ের মধ্যে প্রচুর কাজ করতে হচ্ছে। এর ফলে ছবিগুলো কতটুকু মানসম্পন্ন হচ্ছে বলে আপনি মনে করেন?

হ্যাঁ আমি বর্তমানে সবচেয়ে জুনিয়র নায়ক। ফলে আমি সবার কাছ থেকেই অনেক বেশি ভালবাসা পাই এবং সবাই আমাকে যথেষ্ট পছন্দ করে। মানের কথা বলতে গেলে আমি বলব যে, আমার ছবিগুলোর মান ঠিক থাকছে যার জন্য আমার ছবিগুলো চলছে। তবে আমাদের কাজের পরিধিগুলো আরও বাড়াতে হবে এবং আমাদের আরও বেশি প্রফেশনাল হতে হবে। তাহলেই হয়তো আমরা সব ছবির মান ধরে রাখতে সক্ষম হবো। তাছাড়া অন্যদের তুলনায় আমি সবচেয়ে কম ছবিতে কাজ করছি বর্তমান সময়ে এবং আমার প্রত্যেকটি ছবিই মানসম্পন্ন ও ব্যবসা সফল হচ্ছে।

চলচ্চিত্র হলো একটা শিল্প। কিন্তু বর্তমান নির্মাতারা ছবি নির্মাণের ক্ষেত্রে শিল্পের শৈল্পিকতার পরিবর্তে বাণ্যিজ্যিক চিন্তাই বেশি করে থাকে। একজন চলচ্চিত্র শিল্পী হিসেবে এ ব্যাপারে আপনার অভিমত কি?

এ ক্ষেত্রে আমি বলব তাঁদের দিক থেকে তাঁরা রাইট এবং আমাদের দিক থেকে আমরা রাইট। কারণ শিল্পীরা চাইবে শৈল্পিকতা তৈরি করতে এবং তাঁরা চাইবে বাণিজ্যকরণ করতে কারণ আমাদের বাজার তেমন বড় না। ফলে অনেক কম সময়ে আমাদের প্রোডাকশন তৈরি করতে হয় এবং এতে এক কোটি টাকার বাজেট করতে হয়। এর বাইরে কাজ করতে গেলে আমাদের প্রডিউসাররা খুশি থাকেন না। তাই কখনও কখনও শৈল্পিকতার কিছু দিক তাঁদের সেক্রিফাইস করতে হয়। তবে আমার মনে হচ্ছে সামনে বা আগামী দুই বছর পর এমন কোন অভিযোগ থাকবে না কারও।

পূর্বের চলচ্চিত্র এবং বর্তমান চলচ্চিত্রের মধ্যে ব্যাপক পার্থক্য লক্ষণীয়। কেন যেন আগের চলচ্চিত্রের মতো বর্তমান চলচ্চিত্রে প্রাণ খুঁজে পাওয়া যায় না এবং এখন দর্শকরাও আগের মতো হলমুখী না। এর কারণ কি?

একটা সময় আমাদের চলচ্চিত্রের স্বর্ণযুগ ছিল এবং তখন হল ছিল ১৬০০। আর বর্তমানে আমাদের হল সংখ্যা হলো মাত্র ৬০০। তাছাড়া আমাদের এখন বেশিরভাগ ছবি ডিজিটাল প্রিন্টের কিন্তু আমাদের ডিজিটাল হল আছে মাত্র ১০০। তাই আমরা চাইলেই আমাদের সেই যুগটাকে ফিরিয়ে আনতে পারছি না। তবে দিন দিন আমরা সবকিছুতে চেঞ্জ আনার চেষ্টা করছি। সবচেয়ে বড় ব্যাপার হলো আগে মানুষের এন্টারটেইনমেন্ট ছিল ছবি দেখা কিন্তু এখন বিভিন্নভাবে এন্টারটেইনমেন্ট করার সুযোগ থাকায় মানুষ আর হলে যেতে চায় না। তাই আমরা চাই দর্শকরা হলে গিয়ে ছবি দেখুক। কারণ আমাদের দেশে এখন অনেক ভাল ভাল ছবি হচ্ছে।

আপনি নিজে কি হলে গিয়ে ছবি দেখেন?

আমি সুযোগ পেলেই হলে গিয়ে ছবি দেখি। শুধুমাত্র আমার ছবি না। আমি কমবেশি সবার ছবিই হলে গিয়ে দেখার চেষ্টা করি তবে এ ক্ষেত্রে আমি মুখোশ পরে ছবি দেখতে যাই। যেমন দুই সপ্তাহ আগে আমি একটা হলে গিয়েছি ছবি দেখতে। সেখানে গিয়ে দেখলাম হল হাউসফুল এবং বের হওয়ার সময় তারা ভিজে ঘেমে খালি গা হয়ে বাড়ি ফেরে। তাই আমি আবারও বলছি আমাদের এখন অনেক ভাল ছবি নির্মাণ হচ্ছে আর এটি হলো তার একটা প্রমাণ। তাই আশা করব মানুষ হলমুখী হবে এবং আমরাও তাদের উপস্থিতিতে উৎসাহিত হয়ে আরও ভাল ভাল কাজ করব।

আপনার অনুপ্রেরণা ও সমালোচক কারা?

বিশ্বে যত বড় বড় বুদ্ধিজীবী ও আইডল আছেন সবাই আমার অনুপ্রেরণা আর যারা আমার ছবি দেখে আমাকে গালি দেয় এবং ফোন করে বলে যে, বাপ্পি ভাই আপনাকে এখানে ভাল লাগেনি ও আপনার এই এই জায়গায় আরও উন্নতি করতে হবে তারাই হলো আমার সবচেয়ে বড় সমালোচক এবং আমি তাদের অনেক ভালবাসী।

প্রকাশিত : ২০ নভেম্বর ২০১৪

২০/১১/২০১৪ তারিখের খবরের জন্য এখানে ক্লিক করুন


ব্রেকিং নিউজ: