কুয়াশাচ্ছন্ন, তাপমাত্রা ২২.২ °C
 
৩ ডিসেম্বর ২০১৬, ১৯ অগ্রহায়ণ ১৪২৩, শনিবার, ঢাকা, বাংলাদেশ
শীর্ষ সংবাদ

দশম শ্রেণির পড়াশোনা

প্রকাশিত : ৬ নভেম্বর ২০১৪

রসায়ন

প্রিয় শিক্ষার্থীবৃন্দ,

শুভেচ্ছা রইল। আশা করি, ভাল আছো। রসায়ন সৃজনশীল অংশে একটি নির্দিষ্ট উদ্দীপককে অনুসরণ (ঋড়ষষড়)ি করে ক-ঘ পর্যন্ত প্রশ্নগুলো একই অধ্যায় থেকে করা হয় না। বরং কয়েকটি অধ্যায় মিলে একটি সম্পূর্ণ প্রশ্ন করা হয়। তেমনি একটি নমুনা প্রশ্ন ও নমুনা উত্তর দেওয়া হল।

মৌল ঘধ অষ ঝর ঝ

অক্সাইড ঘধ২০ অষ২ড়৩ ঢ ণ

ক) মেন্ডেলিফের সংশোধিত পর্যায়সূত্রটি লিখ।

খ) উপরের কোন অক্সাইডটি অধিকতর ক্ষারধর্মীÑব্যাখ্যা কর।

গ) ী যৌগে কী ধরনের বন্ধন বিদ্যমান-চিত্র এঁকে দেখাও।

ঘ) ু যৌগ থেকে প্রাপ্ত এসিড একটি দ্বি-ক্ষারকীয় এসিড বিশ্লেষণ কর।

উত্তর :

ক) মৌলসমূহের ভৌত ও রাসায়নিক ধর্মাবলি তাদের পারমাণবিক সংখ্যা অনুযায়ী পর্যায়ক্রমে আবর্তিত হয়।

খ) ঘধ২ঙ অধিকতর ক্ষ‹ারধর্মী।

ঘধ একটি সক্রিয় ধাতু যা অক্সিজেনের সাথে বিক্রিয়া করে ঘধ২ঙ উৎপন্ন করে। ঘধ২ঙপানির সাথে তীব্রভাবে বিক্রিয়া করে ঘধঙঐ উৎপন্ন করে, যা তীব্র ক্ষার।

বিক্রিয়া : ঘধ২ঙ+ঐ২ঙ২ঘধঙঐ

আবার আমরা জানি, একই পর্যায়ে যতই ডানদিকে যাওয়া যায়, মৌলসমূহের ধাতুধর্ম ততই হ্রাস পায়। এক্ষেত্রে তৃতীয় পর্যায়ের মৌলগুলোর মাঝে ঘধ তাই অধিকতর সক্রিয় ধাতু। আর ধাতুর অক্সাইড হয় ক্ষারধর্মী।

তাই, ঘধ২ঙ অধিকতর ক্ষারধর্মী।

গ) সিলিকন অক্সিজেনের সাথে বিক্রিয়া করে সিলিকন ডাই অক্সাইড উৎপন্ন করে।

বিক্রিয়া : ঝর+ঙ২ঝরঙ২

তাহলে, ঢ যৌগটি হচ্ছে সিলিকন ডাই অক্সাইড।

সিলিকন একটি অধাতু যার ইলেক্ট্রন বিন্যাস ২,৮,৪। অপরদিকে অক্সিজেনও একটি অধাতু যার ইলেক্ট্রন বিন্যাস ২,৬। তাই সিলিকন ও অক্সিজেন পরস্পরের সাথে ইলেক্ট্রন শেয়ার করে সমযোজী বন্ধনের মাধ্যমে যৌগ গঠন করে।

এক্ষেত্রে, প্রতিটি সিলিকন পরমাণু চতুস্তলকীয়ভাবে চারটি অক্সিজেন পরমাণুর সাথে একক সমযোজী বন্ধন দ্বারা যুক্ত থাকে। প্রতিটি অক্সিজেন পরমাণু আবার দুইটি সিলিকন পরমাণুর সাথে যুক্ত থাকে। এভাবে অসংখ্য সিলিকন ও অক্সিজেন পরমাণু সমযোজী বন্ধনের মাধ্যমে একটি অতিবৃহৎ সিলিকন ডাই অক্সাইড অণু সৃষ্টি করে।

সুতরাং, ঢ যৌগ তথা সিলিকন ডাই অক্সাইড সমযোজী বন্ধন বিদ্যমান।

ঘ) সালফার অধাতু অক্সিজেনের সাথে বিক্রিয়া করে সালফার ট্রাই অক্সাইড উৎপন্ন করে।

বিক্রিয়া : ২ঝ+৩০২২ঝঙ৩

অর্থাৎ, ণ যৌগটি হচ্ছে সালফার ট্রাই অক্সাইড।

সালফার ট্রাইÑঅক্সাইড থেকে স্পর্শ পদ্ধতিতে সালফিউরিক এসিড পাওয়া যায়।

ঝঙ৩¬+ঐ২ঝঙ৪ঐ২ঝ¬২ঙ৭

ঐ২ঝ২ঙ৭+ঐ২ঙঐ২ঝঙ৪

তাহলে, ণ যৌগ অর্থাৎ সালফার ট্রাই অক্সাইড থেকে প্রাপ্ত এসিডটি হচ্ছে সালফিউরিক এসিড।

সালফিউরিক এসিড একটি দ্বি-ক্ষারকীয় এসিড ব্যাখ্যা করা হলো :

আমরা জানি, জলীয় দ্রবণে যে এসিডের একটি অণু আয়নিত হয়ে দুটি প্রোটন (ঐ+) দান করে, তাকে দ্বি-ক্ষারকীয় এসিড বলে।

জলীয় দ্রবণে সালফিউরিক এসিডও দুই ধাপে বিযোজিত হয় ও দুটি প্রোটন (ঐ+) দান করে।

ঐ২ঝঙ৪ঐ++ঐঝঙ৪-

ঐঝঙ৪-ঐ+ঝঙ৪২-

আবার, সালফিউরিক এসিড ক্ষারককে প্রশমিত করে দুই প্রকারের লবণ যথা- হাইড্রোজেন সালফেট ও সালফেট এবং পানি উৎপন্ন করে।

ঘধঙঐ+ঐ২ঝঙ৪ (অতিরিক্ত) ঘধঐঝঙ৪+ঐ২ঙ

২কঙঐ+ঐ২ঝঙ৪ (কম)ক২ঝঙ৪+২ঐ২ঙ

তাই বলা যায়, সালফিউরিক এসিড একটি শক্তিশালী দ্বি-ক্ষারকীয় এসিড।

প্রকাশিত : ৬ নভেম্বর ২০১৪

০৬/১১/২০১৪ তারিখের খবরের জন্য এখানে ক্লিক করুন


ব্রেকিং নিউজ: