মূলত পরিষ্কার, তাপমাত্রা ২১.১ °C
 
১১ ডিসেম্বর ২০১৬, ২৭ অগ্রহায়ণ ১৪২৩, রবিবার, ঢাকা, বাংলাদেশ
শীর্ষ সংবাদ

পাঁচ বছর পর কাল ছাত্রলীগ ঢাকা মহানগর দক্ষিণের সম্মেলন

প্রকাশিত : ২৭ মে ২০১৫, ০১:১৩ এ. এম.

মুহাম্মদ ইব্রাহীম সুজন ॥ দীর্ঘ পাঁচ বছর পর আগামীকাল বৃহস্পতিবার ছাত্রলীগের ঢাকা মহানগর দক্ষিণের সম্মেলনের মধ্য দিয়ে শুরু হতে যাচ্ছে ঢাকা মহানগর শাখার সম্মেলন। এর দুইদিন পর মহানগর দক্ষিণের সম্মেলন অনুষ্ঠিত হবে। এই সম্মেলনের মাধ্যমে মহানগরের উত্তর ও দক্ষিণের নতুন কমিটির সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদক নির্বাচন করা হবে। তবে সম্মেলনের দিনই নতুন নেতৃত্বের নাম ঘোষণা করা হবে কি না এ নিয়ে অনিশ্চয়তা রয়েছে। প্রায় পাঁচ বছর আগে ২০১০ সালের ২৭ জুলাই মহানগরের গত সম্মেলনেও সম্মেলনের দিন নাম ঘোষণা করা হয়নি। এর কিছুদিন পর নাম ঘোষণা করা হয়।

সংগঠনটির গঠনতন্ত্রের ২১ নং ধারায় জেলা শাখা ও অন্য শাখাসমূহের নির্বাচন নিয়ে দুইটি অনুচ্ছেদে বর্ণনা থাকলেও নাম ঘোষণা নিয়ে কোন কথা বলা নেই। এই সুযোগ নিয়ে কেন্দ্রীয় সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদকসহ নেতা নির্বাচনের সঙ্গে সংশ্লিষ্ট সবাই তাদের ইচ্ছামতো নাম ঘোষণা করে থাকেন। কক্সবাজার, ফেনী, লক্ষ্মীপুর, নেত্রকোনা জেলাসহ সম্প্রতি অনুষ্ঠিত বাগেরহাট জেলা সম্মেলনেও সম্মেলনের দিন নতুন নেতৃত্বের নাম ঘোষণা করা হয়নি। সর্বশেষ ছাত্রলীগ ঢাকা মহানগরের (উত্তর-দক্ষিণ) সম্মেলন হয়েছিল ২০১০ সালের ২৭ জুলাই। এক বছরের মেয়াদ শেষ করে এই কমিটি প্রায় পাঁচ বছর ক্ষমতা ধরে রাখে।

সংগঠনের বিভিন্ন সূত্র থেকে বলা হচ্ছে, মহানগরের (উত্তর-দক্ষিণ) সম্মেলন শেষ করে নাম ঘোষণার বিষয়টি ঝুলিয়ে রাখা হবে। আগামী ১১ জুলাই ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় শাখার সম্মেলন শেষ করে আসন্ন ২৫-২৬ জুলাই কেন্দ্রীয় সম্মেলনের সঙ্গে এই শাখাগুলোর সব নাম একসঙ্গে ঘোষণা করা হবে।

তবে এই গুঞ্জনকে উড়িয়ে দিয়ে ছাত্রলীগ সভাপতি এইচ এম বদিউজ্জামান সোহাগ জনকণ্ঠকে বলেছেন, স্থানীয় আওয়ামী লীগ নেতা, সংগঠনের সিনিয়র ও সাবেক নেতৃবৃন্দের সঙ্গে আলোচনা ও তাদের মতামত গ্রহণ করেই নেতৃত্ব নির্বাচন করা হবে। সম্মেলনের দিন নাম ঘোষণার সর্বাত্মক চেষ্টা থাকবে। না হলে কিছুদিন পরে হলেও নাম ঘোষণা করা হবে।

রাজধানীর কলাবাগান মাঠে সকাল ১১টায় শুরু হবে এই সম্মেলন। সম্মেলনের উদ্বোধন করবেন ছাত্রলীগ সভাপতি এইচ এম বদিউজ্জামান সোহাগ। পরিচালনা করবেন উত্তরের বিদায়ী সভাপতি এস এম রবিউল ইসলাম সোহেল। প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত থাকবেন বাণিজ্যমন্ত্রী তোফায়েল আহমেদ।

ঢাকা মহানগর দক্ষিণের সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদক পদে মনোনয়নপত্র জমা দেয়ার শেষ দিন ছিল গত রবিবার। এই সময়ের মধ্যে সভাপতি পদে ৩৯ এবং সাধারণ সম্পাদক পদে ৪৩ মোট ৮২ জন প্রার্থী মনোনয়নপত্র জমা দিয়েছেন।

এই সম্মেলনের মাধ্যমে নেতা নির্বাচনের ক্ষেত্রে প্রার্থীদের বয়সসীমা ২৯ বছর কঠোরভাবে মানা হবে বলে শীর্ষ নেতৃবৃন্দের সঙ্গে কথা বলে জানা গেছে। এতে নির্বাচন কমিশনার হিসেবে দায়িত্ব পালন করছেন সংগঠনের সহসভাপতি সুমন কুন্ডু, এস এম রিয়াজ উদ্দিন চৌধুরী সুমন, দফতর সম্পাদক শেখ রাসেল, মহানগর উত্তরের সভাপতি এস এম রবিউল ইসলাম সোহেল এবং সাধারণ সম্পাদক আজিজুল হক রানা।

মনোনয়নপত্র দাখিল করা কয়েকজন প্রার্থীর বিরুদ্ধে টেন্ডারবাজি, চাঁদাবাজি, অস্ত্র ব্যবসার সঙ্গে জড়িত থাকার অভিযোগ রয়েছে। কেউ কেউ কোচিং ব্যবসা এবং ভর্তি জালিয়াতির সঙ্গে জড়িত। অনেকেরই ছাত্রত্বই নেই। কেউ কেউ বয়স লুকিয়ে জীবনবৃত্তান্তে মিথ্যাচার করেছেন। পদপ্রত্যাশীরা পদ পেতে দৌড়-ঝাঁপ শুরু করেছেন অনেক আগে থেকেই। এদের মধ্যে কেউ কেউ নিয়মিত আওয়ামী লীগের শীর্ষ পর্যায়ের নেতৃবৃন্দের বাসায় যাতায়াত করছেন।

নতুন নেতৃত্ব কেমন হবে এমন প্রশ্নের জবাবে ছাত্রলীগ সভাপতি এইচ এম বদিউজ্জামান সোহাগ জনকণ্ঠকে বলেন, নির্বাচিত প্রার্থীদের অবশ্যই নিয়মিত ছাত্র হতে হবে। যারা নিয়মিত দলীয় কর্মসূচীতে অংশ নিয়েছেন এবং অতীত রেকর্ড ভালো তাদেরকেই নির্বাচিত করা হবে।

প্রকাশিত : ২৭ মে ২০১৫, ০১:১৩ এ. এম.

২৭/০৫/২০১৫ তারিখের খবরের জন্য এখানে ক্লিক করুন


ব্রেকিং নিউজ: