রৌদ্রজ্জ্বল, তাপমাত্রা ২৩.৯ °C
 
৮ ডিসেম্বর ২০১৬, ২৪ অগ্রহায়ণ ১৪২৩, বৃহস্পতিবার, ঢাকা, বাংলাদেশ
শীর্ষ সংবাদ

আশুলিয়ায় চাঞ্চল্যকর ব্যাংক ডাকাতি ॥ গুরুত্বপূর্ণ তথ্য উদঘাটন

প্রকাশিত : ১০ মে ২০১৫, ০২:০৯ পি. এম.

নিজস্ব সংবাদদাতা, সাভার ॥ আশুলিয়ায় চঞ্চল্যকর ভয়াবহ ‘বাংলাদেশ কমার্স ব্যাংক’ এ ডাকাতির ঘটনায় জড়িত ডাকাতদের আশ্রয়স্থলের সন্ধান পেয়েছে পুলিশ। ঘটনার পর ঘটনাস্থল থেকে অনুমান ২ কিলোমিটার দুরে আড়াগাঁও গ্রামের একটি টিনসেট বাড়িতে আশ্রয় নিয়ে ছিল তারা। ওই বাড়িতে পুলিশ তল্লাশী চালিয়ে জব্দ করেছে গোয়েন্দা পুলিশ (ডিবি) এর ৪টি পোশাকসহ বিএসটিআই’র মোড়ক সম্বলিত বেশ কিছু সংখ্যক বোতল ভর্তি ভেজাল তেল ও ওষুধ।

রবিবার সকালে আটককৃত ডাকাতদের মধ্যে একজনের দেয়া তথ্যের ভিত্তিতে ওই বাড়িতে তল্লাশী চালানো হয়। ব্যাংক ডাকাতি ঘটনার পর থেকে ওই বাড়ির মালিক শাজাহান পলাতক রয়েছে। তিনি স্ত্রী হাসিনা ও তিন ছেলেকে নিয়ে আড়াগাঁও এলাকার ওই বাড়িতে বসবাস করতেন। তার তিন ছেলে আড়াগাঁও এলাকার ‘নাভানা’ মাদ্রাসার শিক্ষার্থী।

সাভার সার্কেল (আশুলিয়া ও ধামরাই থানা) এর এ.এস.পি. নাজমুল হাসান জানান, একটি কক্ষের ভিতর গর্তের মধ্যে লুকানো অবস্থায় ডিবি পুলিশের পোশাকসহ ভেজাল তেল ও নকল ওষুধ উদ্ধার করা হয়। ব্যাংক ডাকাতির ঘটনার পর ডাকাতরা সশস্ত্রাবস্থায় স্থানীয় শাজাহান মিয়ার বাড়িতে এসে আশ্রয় নেয়। ডাকাতদের মধ্যে অনেকে রক্তাক্ত জখম ছিল। গ্রেফতারকৃত আসামীদের মধ্যে একজনের স্বীকারোক্তীর ভিত্তিতে আমরা এ এলাকায় অভিযান চালাই। ওই ডাকাতের দেয়া তথ্যানুযায়ী, ঘটনার পর এলাকার একটি মসজিদের পাশে ডাকাতরা গাড়ি থেকে নেমেছিল। এরপর কাঁটাতারের বেড়া দিয়ে ঘেরা একটি টিনের চালার বাড়িতে ওরা আশ্রয় নেয়। এ তথ্যানুযায়ী পুরো এলাকায় তল্লাশী চালিয়ে এ বাড়িটিকে আমরা সনাক্ত করি। ওই দিনের পর থেকেই বাড়ির মালিক পলাতক রয়েছে। তার মোবাইলও বন্ধ রয়েছে। ঘটনা তদন্ত করে আমরা আরো জানতে পারি যে, ওই দিন ঘটনার পর ওরা মসজিদের পাশে নেমে যখন এ বাড়িতে আসে, তখন একটি বাচ্চা ছেলে তাদেরকে দেখে ফেলে। স্থানীয় লোকজন আশপাশের সকল স্থানে তল্লাশী চালালেও এ কক্ষটিতে দূভার্গ্যজনকবশত তল্লাশী চালায়নি। এ কক্ষটিতে তল্লাশী চালালে সকল অপরাধীই গ্রেফতার হতে পারত। আমাদের অভিযান অব্যাহত রয়েছে।

উল্লেখ্য, ২১ এপ্রিল দুপুরে আশুলিয়ার কাঠগড়া বাজার এলাকায় ‘বাংলাদেশ কমার্স ব্যাংক’ এ ডাকাতির ঘটনা ঘটে। এদিন ডাকাতের হাতে ব্যাংক ম্যানেজার, নিরাপত্তাকর্মী ও গ্রাহকসহ ৮জন নিহত হণ। এলাকাবাসীর গণপিটুনিতে এক ডাকাত মারা যায়। ডাকাতের হামলায় আহত হয় আরও ১৮ জন। এ ঘটনায় এখন পর্যন্ত ৪ ডাকাতকে আটক করেছে পুলিশ।

প্রকাশিত : ১০ মে ২০১৫, ০২:০৯ পি. এম.

১০/০৫/২০১৫ তারিখের খবরের জন্য এখানে ক্লিক করুন


ব্রেকিং নিউজ: