কুয়াশাচ্ছন্ন, তাপমাত্রা ২২.২ °C
 
৫ ডিসেম্বর ২০১৬, ২১ অগ্রহায়ণ ১৪২৩, সোমবার, ঢাকা, বাংলাদেশ
শীর্ষ সংবাদ

গুগলে শব্দ যোগ ॥ লক্ষ্য হোক ৩০ লাখ

প্রকাশিত : ৩১ মার্চ ২০১৫
  • মাহবুব রেজা

‘মোদের গরব মোদের আশা আ মরি বাংলা ভাষা’। মায়ের ভাষা বাংলা। প্রিয় ভাষা বাংলা। ভাষার প্রতি চিরন্তন ভালবাসা শুধু বাঙালীর পক্ষেই সম্ভব- এটা আজ বিশ্বব্যাপী প্রমাণিত, স্বীকৃত। বাংলা ভাষা আজ তার আপন সৌন্দর্যে পৃথিবীর আনাচে-কানাচে ছড়িয়ে পড়েছে।পৃথিবীর সব প্রান্তে আজ বাংলার জয়গান। বিশ্বসভায় তাই বাংলা ভাষা আজ বিশেষ সম্মানের। বিশেষ শ্রদ্ধার। আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবসের প্রেক্ষাপট আমাদের অহঙ্কারের ভাষা বাংলা।

আমাদের বিভিন্ন জাতীয় দিবস নানাভাবে রাষ্ট্রীয় পর্যায়ে পালিত হয়। এসব দিবসের তাৎপর্য ও গুরুত্ব তুলে ধরা হয় বিশেষ ক্রোড়পত্র এবং সঙ্কলনের মাধ্যমে। বিশ্বের গুরুত্বপূর্ণ ও অত্যন্ত জনপ্রিয় সার্চ ইঞ্জিন গুগল বাংলা ভাষার প্রতি বিশেষ গুরুত্ব দিয়ে এর অপরিহার্যতা ও প্রয়োজনীয়তা বিশ্বের বাংলা ভাষাভাষী মানুষের কাছে তুলে ধরার উদ্যোগ নিয়েছে। একুশে ফেব্রুয়ারি আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবসেও বাংলা ভাষার প্রতি বিশেষ সম্মান জানিয়েছে গুগল। স্বাধীনতা দিবসকে সামনে রেখে এবারও গুগল সেই সম্মানের উদ্যোগ হিসেবে ঐদিন অর্থাৎ ২৬ মার্চ একদিনে চার লাখ বাংলা শব্দ যোগ করার কর্মসূচী গ্রহণ করে। গুগলের এ প্রশসংনীয় কর্মসূচী বাংলা ভাষাভাষী মানুষকে দেশপ্রেমে উজ্জীবিত করেছে নতুনভাবে- শুধু তাই নয় ভাষার প্রতি তাদের দায়বদ্ধতাকে নতুন করে মেলে ধরেছে। গুগল দেশের ৮০টিরও বেশি স্থান এবং দেশের বাইরে থেকে একযোগে স্বেচ্ছাশ্রমের মাধ্যমে এ কর্মসূচী পরিচালিত করেছে।

কেন গুগল তাদের কর্মসূচীতে বাংলাকে বিশেষভাবে গুরুত্ব দিয়েছে? এমন প্রশ্নের বিপরীতে আইটি বিশেষজ্ঞ ও সংশ্লিষ্টরা বলছেন, বর্তমানে পৃথিবীর নব্বইটি ভাষার মধ্যে বাংলা তার আপন বৈশিষ্ট্যে নিজ জায়গা দখল করে দিয়েছে। ভাষা, সংস্কৃতি, সাহিত্য, চলচ্চিত্র, নাটক, শিল্পকলা, বিজ্ঞান, উদ্ভাবনী, কৃষি তথ্যপ্রযুক্তি নানা মাধ্যমে বাংলা তার শ্রেষ্ঠত্বের জায়গা দিন দিন বড় করে তুলছে। গুগল অনুবাদের মাধ্যমে বিশ্বের অন্যান্য গুরুত্বপূর্ণ ভাষার পাশে বাংলাকেও তার শ্রেষ্ঠত্ব প্রমাণের জায়গাটি বিস্তৃত করতে চায়। ফলে তারা এ উদ্যোগ নিয়েছে। গুগলের এ উদ্যোগ বিশ্বব্যাপী প্রশংসিত হয়েছে।

এবারের স্বাধীনতা দিবসে গুগলের সার্চ ইঞ্জিন সেজেছিল লাল-সবুজে। গুগলের সার্চ ইঞ্জিন যেন রক্তঝরা মার্চ। মুক্তিযুদ্ধের প্রতীক। মুক্তিযোদ্ধার প্রতীক। প্রথম দেখাতেই যে কারও মনে হতে পারে, এ কী! গুগলের সার্চ ইঞ্জিন কী একাত্তরের উত্তাল দিনের সেই যুদ্ধ? লাল-সবুজে মাখামাখি লাখ লাখ মুক্তিযোদ্ধার স্মৃতিচিহ্ন? গুগলের লোগোকে লাল-সবুজের পতাকার আদলে সাজানো হয়েছিল। গুগলে লোগোর ভেতর বাংলাদেশের মানচিত্রের লাল বৃত্ত তুলে ধরা হয়। লাল বৃত্তের মধ্যে শৈল্পিকভাবে ফুটিয়ে তোলা হয় রয়েল বেঙ্গল টাইগারকেও। উল্লেখ করা প্রয়োজন যে, গত বছরের স্বাধীনতা দিবসেও গুগল ছোট পরিসরে উদ্যোগ নিয়েছিল।

বাঙালী জাতির রয়েছে সর্বক্ষেত্রে ইতিহাস গড়ার নজির। নয় মাসের রক্তক্ষয়ী যুদ্দের ভেতর দিয়ে পৃথিবীর মানচিত্রে লাল সবুজের পতাকা মেলে ধরে বাঙালি প্রমাণ করেছে আমরা সব পারি। তারই ধারাবাহিকতায় বাংলাদেশ সব ক্ষেত্রে অতিক্রম করে সামনের দিকে এগিয়ে চলেছে। স্বাধীনতার ৪৪ বছরে দেশের ঝুলিতে অর্জিত হয়েছে নানা রেকর্ড। শস্য উৎপাদন, মাছ উৎপাদন, সবজি উৎপাদন, বৈদেশিক মুদ্রা অর্জন, আমদানি-রফতানিতে এগিয়ে যাওয়া, জাতীয় প্রবৃদ্ধি অর্জন, মাথাপিছু আয়ের রেকর্ড, শিক্ষায় অগ্রগতিÑ সবক্ষেত্রে শুধুই এগিয়ে যাওয়ার ইতিহাস। গুগলের লক্ষ্যমাত্রা ছিল একদিনে গুগল ট্রান্সলেটে ৪ লাখ বাংলা শব্দ সংযোজন কিন্তু বিস্ময়করভাবে দেখা গেল সেখানেও বাঙালী রেকর্ড গড়ল ৭ লাখেরও বেশি শব্দ সংযোজন করে। এ রেকর্ড গড়ার পেছনে দেশে-বিদেশে অবস্থানরত বাংলা ভাষাভাষী মানুষের ভাষাপ্রেম ও দেশপ্রেম মিলেমিশে একাকার হয়েছে। এই বাংলা শব্দযোগ রেকর্ড গড়ায় প্রায় চার হাজারের বেশি স্বেচ্ছাসেবী স্বতর্স্ফূতভাবে অংশগ্রহণ করেছে।

গুগল ডেভেলপার্স গ্রুপ (জিডিজি) আইসিটি এবং বিবিসির সঙ্গে এ আয়োজন করে। তথ্যপ্রযুক্তি বিশেষজ্ঞরা আশা প্রকাশ করছেন, এই কর্মসূচীতে বিশ্বের বাংলা ভাষাভাষী মানুষ যেভাবে নিঃস্বার্থভাবে শব্দ যোগ করে একদিনে সাত লাখেরও বেশি বাংলা শব্দ বিশ্বের দরবারে সংযোজন করেছেন তাতে করে আশা করাই যায় স্বাধীনতার মাসের বাকী ক’দিন খুব দ্রুতই যে এ শব্দ সংখ্যা ত্রিশ লাখ স্পর্শ করবে। আর এই ত্রিশ লাখ শব্দ ধারণ করবে যুদ্ধে শহীদ হওয়া ত্রিশ লাখ অকুতোভয় বীর মুক্তিযোদ্ধাকে। বাংলা শ্রেষ্ঠ সন্তানদের। গুগলের এ শব্দযোগের অক্ষরগুলো পৃথিবীর আনাচে-কানাচে ছড়িয়ে ছিটিয়ে থাকা বাঙালিদের ভেতর জাগিয়ে তুলবে বাংলা প্রেম একই সঙ্গে দেশপ্রেমও।

প্রকাশিত : ৩১ মার্চ ২০১৫

৩১/০৩/২০১৫ তারিখের খবরের জন্য এখানে ক্লিক করুন


ব্রেকিং নিউজ: