মূলত পরিষ্কার, তাপমাত্রা ২১.১ °C
 
৯ ডিসেম্বর ২০১৬, ২৫ অগ্রহায়ণ ১৪২৩, শুক্রবার, ঢাকা, বাংলাদেশ

জুভেন্টাস-ইন্টার লড়াইয়ে কেউ হারেনি

প্রকাশিত : ৮ জানুয়ারী ২০১৫

স্পোর্টস রিপোর্টার ॥ নতুন বছরের শুরুটা জয় দিয়ে করতে পারেনি জুভেন্টাস ও ইন্টার মিলান। তবে হারের স্বাদও পেতে হয়নি। মঙ্গলবার ইতালিয়ান সিরি এ লীগে দু’দলের ম্যাচটি ১-১ গোলে ড্র হয়। টুরিনে অনুষ্ঠিত ম্যাচে স্বাগতিকদের হয়ে গোল করেন আর্জেন্টাইন ফরোয়ার্ড কার্লোস তেভেজ। আর অতিথি ইন্টারের হয়ে লক্ষ্যভেদ করেন মাউরো ইকার্ডি। ম্যাচের শেষদিকে মাটেও কোভাচিস লালকার্ড দেখায় ইন্টারকে ১০ জন নিয়ে খেলতে হয়। হার দিয়ে বছর শুরু করেছে এসি মিলান। ঘরের মাঠ সানসিরোতে অনুষ্ঠিত ম্যাচে মিলানকে ২-১ গোলে হারিয়ে চমক দেখায় সাসসোউলো। বড় জয় পেয়েছে নেপোলি ও পালের্মো। এ্যাওয়ে ম্যাচে নেপোলি ৪-১ গোলে পরাজিত করে স্বাগতিক চেসেনাকে। নিজেদের মাঠে পালের্মো ৫-০ গোলে পরাজিত করে ক্যাগলিয়ারিকে। উদিনেসকে ১-০ গোলে হারিয়ে পয়েন্ট তালিকায় জুভদের ঘাড়ে নিঃশ্বাস ফেলছে রোমা। বর্তমানে ১৭টি করে ম্যাচ শেষে ৪০ পয়েন্ট নিয়ে শীর্ষে হ্যাটট্রিক শিরোপাধারী জুভেন্টাস। এক পয়েন্ট কম নিয়ে দ্বিতীয় স্থানে রোমা। ৩০ পয়েন্ট নিয়ে নেপোলির অবস্থান চতুর্থ। ২৫ পয়েন্ট নিয়ে মিলান সপ্তম ও ২২ পয়েন্ট নিয়ে ইন্টারের অবস্থান একাদশতম। নতুন তারকা লুকাস পোডলস্কিকে দলভুক্ত করে প্রথম ম্যাচেই উন্নতির ছাপ রেখেছে ইন্টার। জার্মান মিডফিল্ডারের অভিষেক ম্যাচে শক্তিশালী জুভেন্টাসকে রুখে দিয়েছে সাবেক চ্যাম্পিয়নরা। টুরিনে অনুষ্ঠিত ম্যাচের পঞ্চম মিনিটেই কার্লোস তেভেজের গোলে এগিয়ে যায় জুভেন্টাস। আর্টুরো ভিদালের সহায়তায় দলকে এগিয়ে নেন আর্জেন্টাইন তারকা। বিরতির পর মাউরো ইকার্ডি গোল পরিশোধ করে ম্যাচে সমতা ফেরান ইন্টারকে। ম্যাচের ৬৪ মিনিটে ফ্রেডি গুয়ারিনের পাস থেকে গোলরক্ষক জিয়ানলুইজি বুফনকে বোকা বানিয়ে সমতাসূচক গোলটি করেন ইকার্ডি। এরপর দু’দলকেই স্বাভাবিক খেলার বাইরে কিছুটা পেশি শক্তি প্রদর্শন করতে দেখা যায়। এর প্রমাণ মেলে রেফারির কার্ড প্রদর্শনে। দুই দলের ৭ খেলোয়াড় ম্যাচে হলুদ কার্ড দেখেন। শুধু তাই নয়, ৮৬ মিনিটে মাটেও কোভাচিচকে সরাসরি লাল কার্ড প্রদর্শন করে মাঠ ছাড়া করেন রেফারি। ফলে ১০ জনের দলে পরিণত হয় ইন্টার। প্রথমার্ধে জুভেন্টাস সম্পূর্ণভাবে আধিপত্য বজায় রেখেছে। গোলটি পরিশোধ করার আগমুহূর্ত পর্যন্ত এমন পরিস্থিতি ছিল। তবে শেষদিকে এসে আমরা আরও একটি গোলের সুযোগ নষ্ট করেছি। অবশ্য লীগে আমাদের এখনও ২০ খেলা বাকি আছে। তাই চ্যাম্পিয়ন্স লীগ খেলার যোগ্যতা অর্জনের জন্য তৃতীয় স্থানধারীর সঙ্গে ৮ পয়েন্টের ব্যবধান ঘোচানো খুব একটা কঠিন কাজ হবে না। সানসিরো স্টেডিয়ামে সাসসোউলোর বিরুদ্ধে ৯ মিনিটেই এগিয়ে যায় স্বাগতিক মিলান। জিয়াকোমো বোনাভেনচুরা ডানপ্রান্ত থেকে মাইনাস করলে বলে পা লাগাতে পারেননি স্ট্রাইকার স্টিফেন এল শারাউই। তবে, ডিবক্সের মধ্যেই বল পেয়ে জালে জড়াতে কোন ভুল করেননি মিডফিল্ডার আন্দ্রে পোলি। ২৮ মিনিটে সমতা ফেরায় অতিথিরা। গোল করেন নিকোলা সানসনে। বিরতির পর ৬৭ মিনিটে সাসসোউলোর হয়ে জয়সূচক গোলটি করেন সিনোনি জারা। পিছিয়ে পড়ার পর আক্রমণের ধার বাড়ায় ফিলিপ্পো ইনজাগির শিষ্যরা। কিন্তু কোন গোলের দেখা পায়নি মিলান ফুটবলাররা। শেষ পর্যন্ত ঘরের মাঠে ২-১ গোলে হারের লজ্জা পায় মিলান। আর্জেন্টাইন তারকা গঞ্জালো হিগুয়াইনের জোড়া গোলে বড় জয় নিয়ে মাঠ ছাড়ে নেপোলি। প্রথমার্ধের ২৯ মিনিটে মারেক হামসিকের সহায়তায় নেপোলির হয়ে গোলের সূচনা করেন জোসে ক্যালাজন। ১২ মিনিট পর হাসসিকের সহযোগিতায় ব্যবধান দ্বিগুণ করেন হিগুয়াইন। বিরতির পর ৬৪ মিনিটে হিগুয়াইনের সহায়তায় গোল করেন হামসিক। আট মিনিট পরেই নিজের দ্বিতীয় গোল পূর্ণ করেন হিগুয়াইন। স্বাগতিক চেসেনার হয়ে গোল করেন ফ্রাঙ্কো ব্রিয়েঞ্জা।

প্রকাশিত : ৮ জানুয়ারী ২০১৫

০৮/০১/২০১৫ তারিখের খবরের জন্য এখানে ক্লিক করুন

খেলার খবর



ব্রেকিং নিউজ: