আংশিক মেঘলা, তাপমাত্রা ২২.২ °C
 
৬ ডিসেম্বর ২০১৬, ২২ অগ্রহায়ণ ১৪২৩, মঙ্গলবার, ঢাকা, বাংলাদেশ
শীর্ষ সংবাদ

চুল নিয়ে আর নয় ভুল

প্রকাশিত : ২ জুন ২০১৫
  • স্বাস্থ্য কণিকা

চুল নিয়ে আমাদের ভাবনার শেষ নেই। আর চুল নিয়ে আমাদের ভাবনাকে কেন্দ্র করেই সমাজে নানা কথা প্রচলিত আছে। সমাজে প্রচলিত কথাগুলোর বেশিরভাগই ঠিক নয় এবং বিজ্ঞানসম্মত নয়। তাই আমরা চুল নিয়ে নানা ভুল তথ্য জানি ও এর পরিচর্যায় ভুল করে থাকি। আসুন জেনে নেই চুল নিয়ে আমাদের জানা ভুল তথ্যগুলো-

ক্স অতিরিক্ত টখঞজঅ ঠওঙখঊঞ জঅউওঅঞওঙঘ পেলে চুল পড়ে এ কথা মিথ্যা। অতিরিক্ত টঠ জঅণ ত্বকের ঈঅঘঈঊজ, ত্বক বুড়িয়ে যাওয়া ইত্যাদি করে। কিন্তু কখনই চুলের ফলিকলের কার্যক্ষমতা কমায় না।

ক্স একটি পাকা চুল ওঠালে দুটি নতুন চুল গজায়- এটা কখনই ঠিক নয়।

ক্স অতিরিক্ত শ্যাম্পুর ব্যবহার চুল পড়ার কারণ কখনই নয়। সত্যিকার অর্থে ঐবরৎ ঋড়ষষরপষব একটি সুনির্দিষ্ট চক্র মেনে চলে। প্রতিদিন সাধারণভাবে ১০০ থেকে ২০০ চুল পড়ে যেতে পারে, যা অন্য ঋড়ষষরপষব দিয়ে চক্র প্রতিস্থাপিত হয়।

ক্স মাথা নিচে পা ওপরে দিয়ে ব্যায়াম করলে নতুন চুল গজায়- এটাও মিথ্যা। সত্যিটা হচ্ছে চুল পড়া মাথার ত্বকের রক্ত সঞ্চালনের ওপর নির্ভরশীল নয়।

ক্স উচ্চমাত্রার ঞবংঃড়ংঃবৎড়হব চুল পড়ার কারণ, মিথ্যা। প্রকৃত চুল পড়ার জন্য উরৎু উজঙ ঞঊঝঞঙঝঞঊজঙঘঊ হরমোনের প্রতি অতি সংবেদনশীলতাই দায়ী।

ক্স চুল পড়া মূলত মায়ের বংশের দিক থেকে আসে- এটা মিথ্যা। প্রকৃতপক্ষে আনুমানিক ২০০ চুল গজানো ও চুল পড়া নিয়ন্ত্রণ করে, যা বাবা-মা উভয়পক্ষ থেকেই আসে।

ক্স মাথায় বেশি সময় টুপি ব্যবহার করলে চুল পড়ে যায়- এটাও মিথ্যা।

যতদিন মানুষ থাকবে মাথার চুলও পড়বে। তাই যারা চুল পড়া নিয়ে নানা ধরনের দুঃশ্চিন্তায় ভোগেন, তারা আজ থেকে অহেতুক ভাবনা মন থেকে ঝেড়ে ফেলুন। নিজের চুল সম্পর্কে নিজেই সচেতন থাকুন।

ডা. মো. জাহেদ পারভেজ বড় ভূঁইয়া

চুল বিশেষজ্ঞ ও হেয়ার ট্রান্সপ্লান্ট সার্জন

সহকারী অধ্যাপক

সোহরাওয়ার্দী মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতাল

প্রকাশিত : ২ জুন ২০১৫

০২/০৬/২০১৫ তারিখের খবরের জন্য এখানে ক্লিক করুন


ব্রেকিং নিউজ: