আংশিক মেঘলা, তাপমাত্রা ২২.২ °C
 
৭ ডিসেম্বর ২০১৬, ২৩ অগ্রহায়ণ ১৪২৩, বুধবার, ঢাকা, বাংলাদেশ
শীর্ষ সংবাদ

ভার্চুয়াল দুনিয়ায় মুক্তিযুদ্ধ

প্রকাশিত : ২৮ মার্চ ২০১৫
  • অঞ্জন আচার্য

বাংলাদেশের ইতিহাসে এক অনন্য গৌরবোজ্জ্বল অধ্যায় মুক্তিযুদ্ধ। মুক্তিযুদ্ধ সমগ্র বাঙালী জাতির অহঙ্কারের ইতিহাস। সেই মুক্তিযুদ্ধের অনুপ্রেরণা পরবর্তী প্রজন্মের কাছে তুলে ধরতে অনলাইনে মুক্তিযুদ্ধবিষয়ক বিশাল তথ্যভাণ্ডার সংগৃহীত হয়েছে। মুক্তিযুদ্ধের গৌরবময় ইতিহাসকে পূর্ণাঙ্গভাবে ডিজিটাল মাধ্যমে সংরক্ষণ করতে মুক্তিযুদ্ধের কথা, ছবি ও তথ্য নিয়ে তরুণেরা গড়ে তুলেছেন বেশ কিছু উদ্যোগ। কিন্তু দুঃজনক হলেও সত্য এই ইতিহাসকে বতর্মান ও ভবিষ্যৎ প্রজন্মের কাছে তুলে ধরার জন্য অনলাইনে এককভাবে সমৃদ্ধ ওয়েবসাইটের সংখ্যা একেবারেই হাতেগোনা অথচ ইন্টারনেটে এমন একটি সাইটেরই প্রয়োজন ছিল অনেক। এ প্রজন্মের বেশিরভাগ মানুষই বইয়ের বদলে ইন্টারনেটেই সময় কাটান বেশি। ওয়েবপেজ, ইউটিউব, বিশ্বকোষ, ফেসবুক পেজ, ব্লগ ছাড়াও পিসি ও মোবাইল গেমস এবং মোবাইল এ্যাপ্লিকেশনে ছড়িয়ে যাচ্ছে মহান মুক্তিযুদ্ধের ঘটনাপ্রবাহ। প্রয়োজনের তুলনায় অনলাইনে আমাদের স্বাধীনতার জয়গান এখনও অপর্যাপ্তই বলা চলে। তথ্য, ছবি ছাড়াও ইউটিউবসহ বেশ কিছু সাইটে অনুসন্ধান করলে পাওয়া যাবে মুক্তিযুদ্ধের ওপর দুর্লভ ভিডিওচিত্রও। তবে আমাদের মহান মুক্তিযুদ্ধ নিয়ে বিভিন্ন ওয়েবসাইট থাকলেও এখন পর্যন্ত যেসব উদ্যোগ গ্রহণ করা হয়েছে তা যথেষ্ট বলা যায় না কোনভাবেই। এমনকি অনেক ওয়েবসাইটে আমাদের সবচেয়ে গৌরবময় এই ইতিহাসকে তুলে ধরা হয়েছে ভারত-পাকিস্তানের যুদ্ধ হিসেবে।

প্রকৃতপক্ষে তথ্যের মহাসমুদ্র ভার্চুয়াল দুনিয়া। হাজারও তথ্যের ভিড়ে ভার্চুয়াল এই জগতে আমাদের মহান মুক্তি সংগ্রামের ইতিহাস তুলে ধরতে রয়েছে নানা আয়োজন। ওয়েব দুনিয়ায় যুক্ত হচ্ছে আমাদের স্বাধীনতা অর্জনের উপাখ্যান। ওয়েবপেজ, ইউটিউব, বিশ্বকোষ, ফেসবুক পেজ, ব্লগ ছাড়াও পিসি ও মোবাইল গেমস এবং মোবাইল অ্যাপ্লিকেশনে ছড়িয়ে যাচ্ছে মহান মুক্তিযুদ্ধের ঘটনাপ্রবাহ। তবে প্রয়োজনের তুলনায় অনলাইনে আমাদের স্বাধীনতা জয়গান এখনও অপর্যাপ্তই বলা চলে। অবারিত এই মাধ্যমে আমাদের গৌরবময় স্বাধীনতা তথা মুক্তিযুদ্ধের বিশদ তথ্য উপস্থাপনের সুযোগ থাকলেও অধিকাংশ ওয়েবসাইটেই তথ্যের ঘাটতি প্রকট আকারে লক্ষণীয়। তবে এককভাবে তথ্য সমৃদ্ধ কোন সাইট না থাকলেও বেশ কিছু সাইট আছে যেখানে মুক্তিযুদ্ধ সম্পর্কে বিচ্ছিন্নভাবে পাওয়া যায় নানা তথ্য।

মুক্তিযুদ্ধ জাদুঘর

মুক্তিযুদ্ধ জাদুঘরের অফিসিয়াল ওয়েবসাইটটি মুক্তিযুদ্ধ স্মৃতি ট্রাস্টের উদ্যোগে নির্মিত। জাদুঘরের মতোই নানা তথ্যে সাজানো এ জাদুঘরের রয়েছে স্বাধীনতাযুদ্ধের স্মারক চিহ্ন নিয়ে নিজস্ব ওয়েবসাইট http://www.liberationwarmuseum.org। এই ওয়েবসাইটে মুক্তিযুদ্ধ জাদুঘরের বিভিন্ন অংশের যাবতীয় বর্ণনা, লক্ষ্য ও উদ্দেশ্য নিয়ে বিস্তারিত তথ্য ছাড়াও রয়েছে মুক্তিযুদ্ধের ইতিহাস, গণহত্যা, বহির্বিশ্বের প্রভাব, শরণার্থী, বিভিন্ন গণমাধ্যমের ভূমিকা, মুক্তিযুদ্ধে নারীদের অবদান, মুক্তিযুদ্ধে সাংস্কৃতিক কর্মকাণ্ডের ভূমিকাসহ ভিন্ন ভিন্ন বিভাগ। রয়েছে বেশ কিছু দুর্লভ ছবি, যা আমাদের নিয়ে যায় একাত্তরের রক্তঝরা দিনগুলোতে। মুক্তিযুদ্ধের পাশাপাশি এখানে বাঙালী জাতির হাজার বছরের ইতিহাস নিয়েও আছে চমকপ্রদ সব তথ্য। তবে ওয়েবসাইটির বাংলা সংস্করণ না থাকায় এটা এখনও সর্বসাধারণের হয়ে উঠতে পারেনি। কিন্তু সাইটটিতে বিদেশীরা যারা আমাদের মুক্তি সংগ্রামের ইতিহাস নিয়ে আগ্রহী তাদের জন্য রয়েছে প্রচুর রসদ। মুক্তিযুদ্ধ মন্ত্রণালয়

বেসরকারী আর ব্যক্তি উদ্যোগে তৈরি ওয়েবসাইটগুলোর পাশাপাশি অনলাইনে প্রকাশিত http://www.molwa.gov.bd মুক্তিযুদ্ধবিষয়ক মন্ত্রণালয়ের ওয়েবসাইটটি বেশ সমৃদ্ধ হয়েছে। এতে বীরশ্রেষ্ঠ, বীর উত্তম ও বীর বিক্রম উপাধিতে ভূষিত মুক্তিযোদ্ধাদের তালিকাসহ সরকারের গেজেটে প্রকাশিত মুক্তিযোদ্ধাদের বিভাগ, জেলা ও থানাভিত্তিক তালিকা রয়েছে। মুক্তিযুদ্ধের আর্কাইভ অংশটিতে রয়েছে মুক্তিযুদ্ধবিষয়ক নানা তথ্য। ভিডিও আর্কাইভে ভিডিও, ফটো গ্যালারিতে ছবি, সংবাদপত্রে মুক্তিযুদ্ধ সেকশনে সংবাদপত্রের কাটিংয়ের স্ক্যান কপি, চিঠির স্ক্যান কপি রয়েছে যুদ্ধকালীন চিঠিপত্রের ট্যাবে। এ ছাড়া যুদ্ধকালীন গান ও কবিতার তালিকায় রয়েছে রণসঙ্গীত। সাইটটিতে সরকারী গেজেটে প্রকাশিত মুক্তিযোদ্ধাদের থানা, জেলা ও বিভাগভিত্তিক তালিকা, মুক্তিযুদ্ধের সেক্টরভিত্তিক ইতিহাসসহ বেশ কিছু তথ্য এবং মুক্তিযোদ্ধা অনুসন্ধান নামে রয়েছে বিশেষ একটি বিভাগ। এখান থেকে চাইলে কাক্সিক্ষত মুক্তিযোদ্ধার তথ্য জানা সম্ভব। তবে এখানেও প্রচ্ছন্নভাবে রয়েছে অনাদরের ছাপ, যার কারণে সাইটের শেষ দিকে না গেলে জানা সম্ভব নয় মুক্তিযুদ্ধ মৈত্রী সম্মাননাপ্রাপ্তদের সম্পর্কে। একইভাবে ওয়েবের গড় নকশার শীর্ষে জায়গা হয়নি বীরশ্রেষ্ঠ, বীরউত্তম ও বীরবিক্রম খেতাবপ্রাপ্ত মুক্তিযোদ্ধাদের তালিকার লিংকের।

মুক্তিযুদ্ধ উইকিয়া

জনমানুষের উন্মুক্ত বিশ্বকোষ হিসেবে পরিচিত উইকিপিডিয়ায় গ্রহণ করা হয়েছে এ ব্যাপারে একটি অসাধারণ উদ্যোগ। উইকিপিডিয়া বাংলার তিন প্রশাসকের উদ্যোগে যাত্রা শুরু করা উইকি-প্রযুক্তিভিত্তিক এই ওয়েবসাইট প্রকল্পটির নাম মুক্তিযুদ্ধ উইকিয়া। http://muktijuddho.wikia.com নামের এই সাইটে রয়েছে মুক্তিযুদ্ধের পটভূমি, রাজনীতি, যুদ্ধের বিভিন্ন সংগঠন, মুক্তিযুদ্ধের ঘটনাবলী, বইপত্রে মুক্তিযুদ্ধ নামে আলাদা আলাদা বিভাগ। সাইটিতে আপনি লেখাপড়ার পাশাপাশি লেখার মাধ্যমে সমৃদ্ধ করতে পারবেন সাইটটিকে। তাই অনলাইনে মুক্তিযুদ্ধের ইতিহাস তুলে ধরতে এই উদ্যোগ সত্যিকার অর্থেই প্রশংসার দাবিদার। মুক্তিযুদ্ধ উইকিয়ার পাশাপাশি ইংরেজী উইকিপিডিয়াতেও মুক্তিযুদ্ধ সম্পর্কে পাওয়া যাবে অনেক তথ্য। ইংরেজী উইকিপিডিয়ায় মুক্তিযুদ্ধ : http://en.wikipedia.org/wiki/Bangladesh_Liberation_War

ভার্চুয়াল বাংলাদেশ

ভার্চুয়াল বাংলাদেশের ইতিহাস বিভাগে মুক্তিযুদ্ধ সম্পর্কে পাওয়া যাবে অনেক তথ্য। http://www.virtualbangladesh.com/histor এই সাইটে ছবি, গণহত্যাসহ মুক্তিযুদ্ধের বিভিন্ন তথ্যের পাশাপাশি দেখা মেলে মুক্তিযুদ্ধের ঘোষণা, সারা বিশ্বের প্রতি তাজউদ্দীন আহমদের বিবৃতি, পাকিস্থানের আত্মসমর্পণের দলিলসহ বেশ কিছু দুর্লভ দলিল। তাই বলা যায়, এই সাইটটি বেশ তথ্য, ছবিসহ প্রায় দিক থেকেই সমৃদ্ধ।

ফেসবুকে মুক্তিযুদ্ধ

বাংলা ভাষার ব্লগ, ফোরামসহ সামাজিক যোগাযোগের জনপ্রিয় সাইট ফেসবুকে রয়েছে মুক্তিযুদ্ধের নানা প্রসঙ্গ। এর মধ্যে সবচেয়ে জনপ্রিয় পেজ মুক্তিযুদ্ধের গল্প শোনো। মূলত গল্পের ঢঙে দুর্লভ ছবি নিয়ে ইতিহাসকে তুলে ধরতে পেজটিতে মুক্তিযুদ্ধের সময় ত্যাগ-তিতিক্ষা আর অর্জনের গল্প, ভালবাসার গল্প, কষ্ট করে অর্জনের গল্প, এক জ্বলন্ত অধ্যায়ের গল্প, অস্তিত্বের গল্প, ইতিহাসের গল্প, নির্মম সত্য গল্প ইত্যাদি দিয়ে সাজানো পেজটি। ২০১১ সালের ২৬ জুন এখানে আত্মপ্রকাশ করে মুক্তিযুদ্ধের গল্প শোনো www.facebook.com/Muktijuddhergolpo নামের বিশেষ একটি পেজ। তবে পেজটিতে গত পৌনে চার বছরে লাইকসংখ্যা এক লাখও অতিক্রম করেনি অথচ দুঃখজনক হলেও সত্য, বাংলাদেশে লক্ষাধিক ফেসবুক বন্ধুর ফ্যানপেজের সংখ্যার অভাব নেই!

গেমস ও অ্যাপসে মুক্তিযুদ্ধ

ওয়েবে স্বাধীনতা ও মুক্তিযুদ্ধের প্রেক্ষাপট নিয়ে তৈরি হয়েছে ভার্চুয়াল গেম ‘লিবারেশন ৭১’। ‘ক্রাই ইঞ্জিন-থ্রি’ ইঞ্জিনে ডেভেলপ করা ফার্স্ট পারসন শূটিং গেমটিতে রয়েছে ১৬টি মিশন। মিশনগুলোর ব্যাপ্তি ১৯৭১ সালের ২৬ মার্চ থেকে ১৬ ডিসেম্বর পর্যন্ত। গেমটির ওয়েব ঠিকানায় http://liberation71.com গেলে চোখে পড়বে মর্মাহত হওয়ার মতো একটি দুঃখ প্রকাশ বিজ্ঞপ্তি। যেখান থেকে জানা যায়, প্রয়োজনীয় ‘ইক্যুইপমেন্ট এবং রিসোর্স’র অভাবে টানা তিন বছর চলা এ উদ্যোগ আপাতত বন্ধ রয়েছে। তবে http://www.1971bd.org ওয়েবে কিন্তু রাজাকারদের ফাঁসি দেয়ার ফ্লাশ গেম অব্যাহত আছে। সেলফোনে স্বাধীনতার চেতনা ছড়িয়ে দিতে তৈরি হয়েছে বেশ কিছু এ্যাপস। এর মধ্যে রয়েছে স্বাধীনতা ২৬, ইতি বাংলাদেশ, একাত্তর, ১৯৭১-এর ডায়েরি, মুক্তিযুদ্ধ, ১৯৭১-এর এইদিনে, একাত্তরের চিঠি, ২৬ মার্চ ৭১, লিবারেশন ওয়ার। এ্যান্ড্রয়েড সমর্থিত এ্যাপস গুগল প্লেস্টোর থেকে ডাউনলোড করা যাবে।

জন্মযুদ্ধ

জন্মযুদ্ধ সাইটটি যারা তৈরি করেছেন তাঁরা মনে করেন একাত্তর কোন গল্প নয়, একাত্তর এক বাস্তব। আর তাই এ প্রজন্মের কেউ যদি বাস্তবে মুক্তিযুদ্ধের চেতনাকে অনুভব করতে চান তাহলে তাঁকে ঘুরে আসতে হবে জন্মযুদ্ধ ওয়েবসাইট থেকে। http://jonmojuddho.org নামের দৃষ্টিনন্দন এই সাইটে ছবি, তথ্যচিত্র, সিনেমা, পত্রিকার কাটিং, প্রকাশিত বই, মুক্তিযুদ্ধের গান, মুক্তিযুদ্ধের দিনপঞ্জি, যুদ্ধাপরাধীদের তালিকাÑ কী নেই এই সাইটে? মুক্তিযুদ্ধভিত্তিক বাংলা ওয়েবসাইটের সংখ্যা খুব কম। এক্ষেত্রে জন্মযুদ্ধ সাইটটি ব্যতিক্রম। এই সাইটে প্রতিনিয়ত নতুন নতুন তথ্য সংযোজন করা হচ্ছে। তাই আমাদের মহান মুক্তিযুদ্ধ সম্পর্কে কিছু জানতে এই সাইটে একবার ক্লিক করতেই হবে।

কথন

এই সাইটটি যুক্তরাজ্যে অবস্থানরত প্রবাসী বাংলাদেশী সাংস্কৃতিক কর্মীদের সংগঠন ‘কথন’-এর উদ্যোগে নির্মিত। http://www.kothon.org/gallary অর্থাৎ কথন ওয়েব সাইটের গ্যালারিতে রয়েছে ১৯৭১ সালে পাক হানাদার বাহিনীর গণহত্যার বেশ কিছু দুর্লভ ছবি। প্রতিটি ছবির সঙ্গে রয়েছে বিখ্যাত ব্যক্তিদের উক্তি যা একটি ভিন্ন মাত্রা যোগ করেছে। সাইটটিতে শিল্পী গৌতম চক্রবর্তীর মুক্তিযুদ্ধের ওপর কিছু পেইন্টিং নিয়ে রয়েছে আলাদা একটি গ্যালারি। এছাড়াও এই সাইটে মুক্তিযুদ্ধের কিছু কবিতার ইংরেজী অনুবাদও পাবেন।

বিডি ৭১

এই সাইটে পূর্ব ও পশ্চিম পাকিস্তানের মধ্যকার বৈষম্য, মুক্তিযুদ্ধের পটভূমি, গণহত্যা, মুক্তিযুদ্ধের বিভিন্ন সেক্টর সম্পর্কে বিভিন্ন তথ্য ছাড়াও রয়েছে কিছু দুর্লভ ছবি। এছাড়াও http://www.bd71.com এই সাইট থেকে মুক্তিযুদ্ধভিত্তিক ই-বই এবং গল্পও ডাউনলোড করে নিতে পারেন।

গণহত্যার আর্কাইভ ও রাজাকারদের তালিকার সাইট

গণহত্যার ওপর নির্ভর করে মুক্তিযুদ্ধ নিয়ে ব্যক্তি উদ্যোগেই কিছু ব্লগার তৈরি করেছে http://www.genocidebangladesh.org/ সাইটটি। এতে রয়েছে যুদ্ধাপরাধী ও মুক্তিযুদ্ধে এদেশীয় দালালদের তালিকা, মুক্তিযুদ্ধে সংঘটিত গণহত্যাগুলোর ওপরে ছবি, অডিও-ভিডিও, মুক্তিযোদ্ধাদের তালিকা। এ ছাড়া মুক্তিযুদ্ধের সময়কার বিভিন্ন ঘটনার প্রত্যক্ষদর্শীদের বিবরণও যুক্ত করা হয়েছে এতে।

স্বাধীন বাংলা বেতার কেন্দ্র

মুক্তিযুদ্ধকে বেগবান করতে ও মুক্তিযুদ্ধের বিভিন্ন সংবাদ সাধারণ মানুষের কাছে পৌঁছে দিতে স্বাধীন বাংলা বেতার কেন্দ্র বিশেষ ভূমিকা পালন করে। সেই বেতারের সঙ্গে সম্পৃক্ত শব্দসৈনিকদের সম্পর্কে বিভিন্ন তথ্য রয়েছেswadhinbangla-betar.org/ http://en.wikipedia.org/wiki/Swadhin_Bangla_Betar_Kendra সাইটে।

যুদ্ধাপরাধের দলিলপত্রের সাইট : মুক্তিযুদ্ধ চলাকালীন ছবি রয়েছেwww.pictureworldbd.com সাইটে; আন্তর্জাতিক ক্রাইম স্ট্র্যাটেজি ফোরামের সাইট http://icsforum.org-তে রয়েছে যুদ্ধের বিভিন্ন তথ্য আর িি.ি১২৩বীঢ়যরংঃড়ৎু.পড়স সাইটে গবেষণার জন্য রয়েছে মুক্তিযুদ্ধের সব তথ্য ফেসবুক ও ব্লগের বিভিন্ন গ্রুপসহ ব্লগারদের লেখা; ভার্চুয়াল বাংলাদেশ: মুক্তিযুদ্ধের ইতিহাস ও নানা তথ্যসমৃদ্ধ আরেকটি ওয়েবসাইট ারৎঃঁধষনধহমষধফবংয.পড়স। এতে বায়ান্নর ভাষা আন্দোলন থেকে শুরু করে মুক্তিযুদ্ধের তথ্য রয়েছে; সহজভাবে সবাইকে মুক্তিযুদ্ধের ইতিহাস জানাতে ফেসবুকে চালু হয় মুক্তিযুদ্ধের গল্প শোনো িি.িভধপবনড়ড়শ.পড়স/গঁশঃরলঁফফযবৎমড়ষঢ়ড় নামের বিশেষ একটি পেজ। এই পেজে রয়েছে মুক্তিযুদ্ধবিষয়ক নানা ধরনের লেখা, ছবি ও তথ্য। মূলত গল্পের ঢঙে ইতিহাসকে তুলে ধরতে পেজটিতে মুক্তিযুদ্ধের সময় ত্যাগ-তিতিক্ষা আর অর্জনের গল্প, ভালবাসার গল্প, কষ্ট করে অর্জনের গল্প, এক জ্বলন্ত অধ্যায়ের গল্প, অস্তিত্বের গল্প, ইতিহাসের গল্প, নির্মম সত্য গল্প ইত্যাদি দিয়ে সাজানো পেজটি। বিভিন্ন তথ্যের পাশাপাশি রয়েছে দুর্লভ সব ছবি; মুক্তিযুদ্ধ ও মুক্তিযোদ্ধাদের খবর, ছবি ইত্যাদি সংগ্রহ, প্রকাশনাসহ মুক্তিযোদ্ধাদের নিয়ে কাজ করছে তরুণদের সংগঠন মুক্ত আসর।

প্রকাশিত : ২৮ মার্চ ২০১৫

২৮/০৩/২০১৫ তারিখের খবরের জন্য এখানে ক্লিক করুন


ব্রেকিং নিউজ: