ঢাকা, বাংলাদেশ   সোমবার ২২ জুলাই ২০২৪, ৬ শ্রাবণ ১৪৩১

ক্রোয়েশিয়াকে কাঁদিয়ে শেষ ষোলোতে ইতালি

স্পোর্টস রিপোর্টার

প্রকাশিত: ০১:০৭, ২৬ জুন ২০২৪

ক্রোয়েশিয়াকে কাঁদিয়ে শেষ ষোলোতে ইতালি

ম্যাচের শেষ মুহূর্তে সমতাসূচক গোলের পর গোলদাতা মাতিয়া জাকাগনিকে ঘিরে আজ্জুরিদের উচ্ছ্বাস

আরও একবার স্বপ্ন ভাঙল ক্রোয়েশিয়ার। মডরিচ-জিভারদিওলদের কাঁদিয়ে উয়েফা ইউরোপিয়ান চ্যাম্পিয়নশিপের শেষ ষোলোর টিকিট নিশ্চিত করল বর্তমান চ্যাম্পিন ইতালি। অথচ দ্বিতীয়ার্ধের শুরুতেই গোল করে নির্ধারিত ৯০ মিনিট পর্যন্ত এগিয়ে থাকায় শেষ ষোলোতে যাওয়ার উদযাপনের প্রস্তুতি নিচ্ছিল ২০১৮ বিশ্বকাপের ফাইনালিস্টরা।

কিন্তু ম্যাচের অতিরিক্ত সময়ের অন্তিম মুহূর্তে জাল কাঁপিয়ে ক্রোয়েটদের স্তব্ধ করে দেন ইতালির মাতিয়া জাকাগনি। শেষ পর্যন্ত ১-১ গোলে ড্রয়ের সৌজন্যে ‘বি’ গ্রুপ থেকে স্পেনের পর দ্বিতীয় দল হিসেবে শেষ ষোলোতে জায়গা করে নেয় আজ্জুরিরা। দিনের আরেক ম্যাচে এদিন স্পেন ১-০ গোলে আলবেনিয়াকে হারিয়ে তিন ম্যাচের তিনটিতেই জয় তুলে নেয়। 
পরের রাউন্ডে যেতে হলে জয়ের বিকল্প নেই ক্রোয়েশিয়ার। অন্যদিকে কোনোরকমে ১ পয়েন্ট পেলেই গ্রুপ পর্বের বাঁধা অতিক্রম করবে ইতালি। এমন সমীকরণ নিয়েই লাইপজিগ স্টেডিয়ামে খেলতে নামে দুই দল। এমন ম্যাচের প্রথমার্ধে অবশ্য কোন দলই সেভাবে জ্বলে উঠতে পারেনি। ফলে গোলশূন্য ড্র নিয়েই বিরতিতে যায় উভয় দল। তবে বিরতির পর সর্বোচ্চটা ঢেলে দিয়ে জয়ের মিশনে নামে ইউরোপের দুই জায়ান্ট। কিন্তু ৫৩ মিনিটে সেরা সুযোগটা পায় ক্রোয়েশিয়া।

ইতালির রক্ষণের ভুলে পেনাল্টি পায় ২০১৮ বিশ্বকাপের রানার্স-আপরা। সেখান থেকে দলকে এগিয়ে নেওয়ার ভার কাঁধে নেন লুকা মডরিচ। তবে তার সেই শট রুখে দেন ইতালির গোলরক্ষক জিয়ানলুইজি ধন্নারুম্মা। তবে এমন ভুলের প্রায়শ্চিত্ত করতে খুব বেশি সময় নেননি রিয়াল মাদ্রিদের ক্রোয়েশিয়ান তারকা মডরিচ। এক মিনিট পরই ক্রোয়াটদের আনন্দে ভাসার উপলক্ষ এনে দেন তিনি।

আন্তে বুদিমিরের শট ইতালি গোলকিপার প্রতিহত করলে কাছেই থাকা মডরিচ সেই সুযোগ কাজে লাগিয়ে বল জালে পাঠিয়ে ক্রোয়েশিয়াকে প্রথম এগিয়ে দেন। সেইসঙ্গে ৩৮ বছর ২৮৯ দিন বয়সে গোল করে ইউরোর ইতিহাসে সবচেয়ে বেশি বয়সে গোল করার নজির গড়েন মডরিচ। পেছনে ফেলেন ২০০৮ ইউরোয় পোল্যান্ডের বিপক্ষে ম্যাচে গড়া অস্ট্রিয়ার ইভিকা ভাসতিচের রেকর্ড।
এরপর ম্যাচে ফেরার চেষ্টা করলেও নির্ধারিত ৯০ মিনিটে গোল করতে পারেনি ইতালি। ফলে উদযাপনের প্রস্তুতি নিতে শুরু করে দেয় ক্রোয়েশিয়ার ভক্ত-অনুরাগীরা। কিন্তু ম্যাচের বয়স যখন অতিরিক্ত সময়ের ৯০+৮ মিনিট তখনই ইতালির দেবদূত হয়ে আসেন মাতিয়া জাকাগনি। বক্সের বাইরে পাওয়া ফ্রি কিক থেকে কোনাকুনি জোরালো শটে জাল কাঁপান তিনি। তাতেই ক্রোয়েশিয়ার বিদায়ের পাশাপাশি ইতালির শেষ ষোলোর টিকিটও নিশ্চিত হয়ে যায়।

‘বি’ গ্রুপে একই সময়ে হওয়া অন্য ম্যাচে জয়ের ধারাবাহিকতা অব্যাহত রাখে স্পেন। ফেরান তোরেসের করা একমাত্র গোলে এদিন লা রোজরা ১-০ ব্যবধানে পরাজিত করে আলবেনিয়াকে। সেইসঙ্গে একমাত্র দল হিসেবে শতভাগ জয়ের রেকর্ড ধরে রাখে ইউরো-বিশ্বকাপ-ইউরোজয়ী স্পেন। সেইসঙ্গে তিন ম্যাচের সবকটিতে জিতে ৯ পয়েন্ট নিয়ে গ্রুপ টেবিলের শীর্ষ স্থানটাও ধরে রাখে তারা। সমান ৩ ম্যাচে ৪পয়েন্ট নিয়ে ইতালির অবস্থান দুইয়ে। ক্রোয়েশিয়ার পয়েন্ট ২ আর আলবেনিয়ার ১।

এদিকে এক ম্যাচ হাতে থাকতেই নক আউট পর্ব নিশ্চিত হয়ে গেল ইংল্যান্ড, নেদারল্যান্ডস এবং ফ্রান্সের। মূলত ‘বি’ গ্রুপের দলগুলোর শেষ ম্যাচের পরই নিশ্চিত হয়ে যায় এই তিন দলের ভাগ্য। স্পেন-ইতালি শেষ ষোলোতে গেলেও দুই পয়েন্ট নিয়ে ক্রোয়েশিয়া আর এক পয়েন্ট নিয়ে বিদায় নিয়েছে আলবেনিয়া। তৃতীয় দলের কোটায়ও এই দুই দলের শেষ ষোলোতে যাওয়া হচ্ছে না।

×