ঢাকা, বাংলাদেশ   রোববার ১৬ জুন ২০২৪, ২ আষাঢ় ১৪৩১

স্বর্ণ মজুতে যুক্তরাজ্য-সৌদিকে ছাড়িয়ে গেছে ভারত

আন্তর্জাতিক ডেস্ক

প্রকাশিত: ২১:২০, ২০ মে ২০২৪

স্বর্ণ মজুতে যুক্তরাজ্য-সৌদিকে ছাড়িয়ে গেছে ভারত

স্বর্ণ মজুতের দিক থেকে সৌদি আরব ও যুক্তরাজ্যকে ছাড়িয়ে গেছে ভারত

স্বর্ণ মজুতের দিক থেকে সৌদি আরব ও যুক্তরাজ্যকে ছাড়িয়ে গেছে ভারত। প্রকাশিত ওয়ার্ল্ড গোল্ড কাউন্সিলের (ডব্লিউজিসি) তালিকা থেকে এ তথ্য জানা গেছে। ডব্লিউজিসির বরাত দিয়ে ভারতীয় সংবাদমাধ্যম জানিয়েছে, স্বর্ণ মজুতের তালিকায় নবম স্থানে রয়েছে ভারত। আর সৌদি আরব ও যুক্তরাজ্য রয়েছে যথাক্রমে ১৬তম ও ১৭তম অবস্থানে। খবর হিন্দুস্তান টাইমসের।
এই তালিকায় শীর্ষে রয়েছে যুক্তরাষ্ট্র। দেশটিতে স্বর্ণ মজুত রয়েছে ৮ হাজার ১৩৩ দশমিক ৪৬ টন, যার বর্তমান আর্থিক মূল্য ৪ লাখ ৮৯ হাজার ১৩৩ মিলয়ন ডলার। আর ৩ হাজার ৩৫২ টন মজুত নিয়ে দ্বিতীয় অবস্থানে রয়েছে জার্মানি। ইতালি, ফ্রান্স ও রাশিয়া রয়েছে যথাক্রমে তৃতীয়, চতুর্থ ও পঞ্চম স্থানে। মার্কিন সংবাদমাধ্যম ফোর্বস বলছে, ভারতের হাতে বর্তমানে স্বর্ণ মজুত রয়েছে ২ হাজার ১৯১ দশমিক ৫৩ টন, যার আর্থিক মূল্য ১ লাখ ৩১ হাজার ৭৯৫ মার্কিন ডলার।

এদিকে রাশিয়া বলেছে, তাদের হাতে যে হিমায়িত সোনা রয়েছে, তা উন্নয়নশীল দেশগুলোর সাহাযার্থে জলবায়ু ক্ষতি মোকাবিলার তহবিলে দেওয়া যায় কি না, তা ভাবা হচ্ছে। রয়টার্সের এক প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, স্বর্ণকে মূল্যের স্থিতিস্থাপক ভা-ার হিসেবে বিবেচনা করা হয় বলে বিশ্বের প্রায় সব দেশই স্বর্ণ মজুত রাখার চেষ্টা করে। কোনো দেশের মুদ্রার মান কেমন হবে, সেটি নির্ধারণেও এই মূল্যবান ধাতুর মজুতের পরিমাণ গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখে।

স্বর্ণের দাম মার্কিন ডলারের বিপরীতভাবে সমানুপাতিক। এ কারণে ডলারের দাম কমলে স্বর্ণের দাম বেড়ে যায়। কিছু দেশ তাদের বাণিজ্য ভারসাম্যহীনতা কাটানোর জন্য বা ঋণের জন্য জামানত হিসেবে স্বর্ণের মজুতকে ব্যবহার করে থাকে। অক্সফোর্ড গোল্ড গ্রুপের প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, বিশ্বের মোট মজুত সোনার ১১ শতাংশই রয়েছে ভারতীয় পরিবারগুলোর কাছে। এটি যুক্তরাষ্ট্র, জার্মানি, ইতালি এবং আন্তর্জাতিক মুদ্রা তহবিলের সম্মিলিতভাবে মজুত থাকা স্বর্ণের থেকেও বেশি।

×