ঢাকা, বাংলাদেশ   মঙ্গলবার ২৮ মে ২০২৪, ১৩ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১

স্টুটগার্ট ওপেনে কোকো গফ ও এরিনা সাবালেঙ্কার জয়

কারবারকে বিদায় করলেন এমা রাদুকানু

স্পোর্টস রিপোর্টার

প্রকাশিত: ০০:৫৮, ১৯ এপ্রিল ২০২৪

কারবারকে বিদায় করলেন এমা রাদুকানু

ব্রিটিশ টেনিস তারকা এমা রাদুকানু

স্টুটগার্ট ওপেনে দাপুটে সূচনা করলেন এমা রাদুকানু। বৃহস্পতিবার প্রথম রাউন্ডের ম্যাচে অ্যাঞ্জেলিক কারবারকে হারিয়ে দেন তিনি। ইউএস ওপেনের সাবেক এই চ্যাম্পিয়ন এদিন ৬-১ এবং ৬-২ গেমে পরাজয়ের স্বাদ উপহার দেন টুর্নামেন্টের দুইবারের চ্যাম্পিয়ন অ্যাঞ্জেলিক কারবারকে। বিশ্ব টেনিস র‌্যাঙ্কিংয়ের সাবেক নাম্বার ওয়ান তারকাকে হারাতে এদিন রাদুকানুর লাগে মাত্র ১ ঘণ্টা ২৬ মিনিট।

এমন জয়ের পর দারুণ রোমাঞ্চিত এমা রাদুনাকু। তার মনে হচ্ছে জীবনেরই সেরা টেনিস খেলছেন ব্রিটিশ তরুণী। এ প্রসঙ্গে ম্যাচের শেষে তিনি বলেন, ‘মনে হচ্ছিল আমার ক্যারিয়ারের এমনকি আমার জীবনেরই সেরা খেলাটা খেলছি।’ রাদুকানু আরও বলেন, ‘অ্যাঞ্জির (অ্যাঞ্জেলিক) বিপক্ষে খেলাটা খুবই কঠিন ছিল। কারণ তার পেছনের ইতিহাস যথেষ্ট সমৃদ্ধ। তাই তার বিপক্ষে খেলার মানে আপনি এমন একজনের বিপক্ষে খেলছেন যে নাকি সুদীর্ঘ ক্যারিয়ারে চমৎকার কিছু ফলাফল অর্জন করে ফেলেছেন। যে কারণে আমি শুধু পরের পয়েন্টের জন্যই খেলেছি। আর এভাবে খেলে পরের রাউন্ডের টিকিট কাটতে পেরে আমি অনেক খুশি।’
ঠিক ১২ মাস আগে এই স্টুটগার্টেই শেষবারের মতো কোর্টে নেমেছিলেন এমা রাদুকানু। ওয়াইল্ডকার্ড নিয়ে জার্মানির এই টুর্নামেন্টে খেলতে নেমেছিলেন তিনি। কিন্তু দুর্ভাগ্য তার। প্রথম রাউন্ডের ম্যাচেই হেরে টুর্নামেন্ট থেকে ছিটকে গিয়েছিলেন এমা। লাটভিয়ার জেলেনা ওস্টাপেঙ্কোর কাছে সেবার ৬-২ এবং ৬-১ গেমে হেরেছিলেন তিনি। সেই পরাজয়ের পরই গত মৌসুমের সমাপ্তি টেনেছিলেন রাদুকানু। এরপর তিন তিনটি সার্জারি করেন ২০২১ সালে ইউএস ওপেনের চ্যাম্পিয়ন। যার দুটি দুই কব্জিতে।

আর অন্যটি ছিল গোড়ালিতে। তিনটি গুরুত্বপূর্ণ অস্ত্রোপচারের কারণে গত এক বছর কোর্টের বাইরে ছিটকে যান তিনি। ঠিক ১২ মাস পর সেই স্টুটগার্ট ওপেন দিয়েই পুনরায় কোর্টে ফিরলেন রাদুকানু। এবার ঠিক সেই একই ফলাফলে অ্যাঞ্জেলিক কারবারকে হারালেন ২১ বছরের এই তরুণী। ৩৬ বছর বয়সী কারবারকে হারানোর মুহূর্তটা তাই তার কাছে মাইলফলক। এ প্রসঙ্গে রাদুকানু বলেন, ‘আমার কাছে এই মুহূর্তটা ঠিক মাইলফলকের মতোই। আমার কাছে মনে হলো অনেক পথ পাড়ি দিয়েই আবার এখানে আসতে পেরেছি।’
ব্রিটিশ তরুণী ছাড়াও স্টুটগার্ট ওপেনে জয় দিয়ে মিশন শুরু করেছেন আমেরিকান তারকা কোকো গফ, তিউনিসিয়ার উনস জেবিয়ার, লিন্ডা নোসকোভা এবং বেলারুশ সুন্দরী এরিনা সাবালেঙ্কা। বর্তমান বিশ্ব টেনিস র‌্যাঙ্কিংয়ের তিন নম্বর তারকা কোকো গফ এদিন ৬-৩, ৪-৬ এবং ৭-৫ ব্যবধানে পরাজিত করেন কোয়ালিফায়ার সাচিয়া ভিকারিকে। জয়টা সহজে আসেনি তার।

দীর্ঘ ২ ঘণ্টা ২৭ মিনিট লড়াই শেষেই জয়ের হাসি হাসেন ইউএস ওপেনের বর্তমান চ্যাম্পিয়ন। জয়ের পর গফ বলেন, ‘ম্যাচে আমি ধৈর্য ধরার চেষ্টা করেছি। সেইসঙ্গে আক্রমণাত্মক খেলার চেষ্টা করেছি। এ কথা অস্বীকার করার উপায় নেই যে, সে যথেষ্ট ভালো খেলেছে। আমি মনে করি, ম্যাচে থাকতে পারাটাই আমার জন্য তখন গুরুত্বপূর্ণ ছিল।’
আরেক ম্যাচে এরিনা সাবালেঙ্কা মুখোমুখি হয়েছিলেন স্প্যানিশ টেনিস তারকা পাওলা বাদোসার। দুজনেই দাপুটে খেলেন শেষ ষোলোর ম্যাচে। যদিওবা শেষ পর্যন্ত ইনজুরির কারণে হাড্ডাহাড্ডি লড়াই চলা ম্যাচে ওয়াকওভার পেয়ে কোয়ার্টার ফাইনালে জায়গা করে নেন সাবালেঙ্কা। ম্যাচের ফলাফল ৭-৬ (৭/৪), ৪-৬ এবং ৩-৩। তবে ম্যাচে বাদোসা ইনজুরির কবলে পড়লে এক পর্যায়ে প্রায় কেঁদেই ফেলেছিলেন সাবালেঙ্কা। কেননা, তারা যে একে অপরের ভালো বন্ধু।

×