ঢাকা, বাংলাদেশ   রোববার ০২ অক্টোবর ২০২২, ১৭ আশ্বিন ১৪২৯

শ্রম আইন লঙ্ঘন

ড. ইউনূসের বিরুদ্ধে মামলা চলবে

স্টাফ রিপোর্টার

প্রকাশিত: ০০:০৮, ১৮ আগস্ট ২০২২

ড. ইউনূসের বিরুদ্ধে মামলা চলবে

ড. মুহাম্মদ ইউনূস

গ্রামীণ টেলিকমের চেয়ারম্যান ড. মুহাম্মদ ইউনূসের নামে শ্রম আইন লঙ্ঘনের অভিযোগে করা মামলা বাতিলে জারি করা রুল খারিজ করে দিয়েছেন হাইকোর্টবিচারপতি এস এম কুদ্দুস জামান ও বিচারপতি ফাহমিদা কাদেরের হাইকোর্ট বেঞ্চ বুধবার এ রায় প্রদান করেছেনফলে নিম্ন আদালতে এ মামলা চলবেড. ইউনূসের পক্ষে ছিলেন আইনজীবী আব্দুল্লাহ আল মামুনকলকারখানা ও প্রতিষ্ঠান পরিদর্শন অধিদফতরের পক্ষে ছিলেন আইনজীবী খুরশীদ আলম খান

আইনজীবী আব্দুল্লাহ আল মামুন সাংবাদিকদের বলেন, ‘আদালত রুল ডিসচার্জ করেছেনতবে এ আদেশের বিরুদ্ধে আমরা আপীল বিভাগে যাব।  এর আগে কলকারখানা ও প্রতিষ্ঠান পরিদর্শন অধিদফতরের পক্ষে এ বিষয়ে পক্ষভুক্ত হওয়ার জন্য আদালতে আবেদন করা হয়পাশাপাশি দুই মাসের মধ্যে রুল নিষ্পত্তি করা সংক্রান্ত আপীল বিভাগের আদেশও উপস্থাপন করা হয়

পরে আইনজীবী খুরশীদ আলম খান জানান, প্রফেসর মুহাম্মদ ইউনূসের যে মামলাটি হাইকোর্ট স্থগিত করেছিলেন, সেটা সুপ্রীমকোর্টে  যাওয়ার পরে সুপ্রীমকোর্ট দুই মাসের মধ্যে বিচারপতি এস এম কুদ্দুস জামানের নেতৃত্বাধীন বেঞ্চকে নিষ্পত্তির জন্য নির্দেশ দিয়েছিলেনএখানে কলকারখানা অধিদফতরের পক্ষে যিনি মামলাটি দায়ের করেছিলেন সেই রুল থাকা অবস্থায় তিনি মারা গেছেন

এখন যিনি এই মামলার দায়িত্বে আছেন তার পক্ষে মামলাটি পরিচালনার জন্য একটি দরখাস্ত দাখিলের অনুমতি চেয়েছিলামআর আদালতের দৃষ্টি আকর্ষণ করেছি যেহেতু আপীল বিভাগের নির্দেশনা রয়েছে দুই মাসের মধ্যে মামলাটি নিষ্পত্তি করার জন্যসেই আদেশের অনুলিপি আমরা আদালতের কাছে দাখিল করলাম

ঢাকার তৃতীয় শ্রম আদালতে গত বছরের ৯ সেপ্টেম্বর ড. ইউনূসসহ চারজনের বিরুদ্ধে এ মামলা করেন কলকারখানা ও প্রতিষ্ঠান অধিদফতরের শ্রম পরিদর্শক আরিফুজ্জামানমামলায় শ্রমিক কল্যাণ ফাউন্ডেশনে নির্দিষ্ট লভ্যাংশ জমা না দেয়া, শ্রমিকদের চাকরি স্থায়ী না করা, গণছুটি নগদায়ন না করার অভিযোগ আনা হয়অন্য আসামিরা হলেন গ্রামীণ টেলিকমের এমডি আশরাফুল হাসান, পরিচালক নুর জাহান বেগম ও শাহজাহান

মামলায় বলা হয়, কলকারখানা ও প্রতিষ্ঠান অধিদফতরের কর্মকর্তারা ড. ইউনূসের গ্রামীণ টেলিকম পরিদর্শনে গিয়ে শ্রম আইন লঙ্ঘনের প্রমাণ পানএর মধ্যে ১০১ জন শ্রমিক-কর্মচারীকে স্থায়ী করার কথা থাকলেও তা করা হয়নিশ্রমিকদের অংশগ্রহণের তহবিল ও কল্যাণ তহবিল গঠন করা হয়নিএ ছাড়া কোম্পানির লভ্যাংশের ৫ শতাংশ শ্রমিকদের দেয়ার কথা থাকলেও তা মানা হয়নিমামলায় শ্রম আইনের ৪ এর ৭, , ১১৭ ও ২৩৪ ধারায় অভিযোগ আনা হয়পরে মামলা বাতিল চেয়ে ইউনূসের পক্ষে আবেদন করা হয় হাইকোর্টে

গত বছরের ১২ ডিসেম্বর হাইকোর্ট মামলার কার্যক্রম স্থগিত করে রুল দিয়েছিলেন।  এরপর রাষ্ট্রপক্ষ আপীল বিভাগে আবেদন করে।  ওই আবেদনের শুনানি নিয়ে মামলা বাতিলে জারি করা রুল ১৩ জুন দুই মাসের মধ্যে নিষ্পত্তির নির্দেশ দেয়া হয়।  এই সময় পর্যন্ত  মামলার কার্যক্রম স্থগিত থাকবে