বৃহস্পতিবার ২১ শ্রাবণ ১৪২৮, ০৫ আগস্ট ২০২১ ঢাকা, বাংলাদেশ
প্রচ্ছদ
অনলাইন
আজকের পত্রিকা
সর্বশেষ

দিনাজপুরে রাস্তায় পড়েছিল অবিক্রীত কয়েক হাজার ছাগলের চামড়া

দিনাজপুরে রাস্তায় পড়েছিল অবিক্রীত কয়েক হাজার ছাগলের চামড়া

স্টাফ রিপোর্টার, দিনাজপুর ॥ দিনাজপুরে ঈদের দিন পশুর চামড়া সংগ্রহ করেছিলেন মৌসুমি ব্যবসায়ীরা। কিন্তু ব্যাপারীরা ছাগলের চামড়া না নেয়ায় বিপাকে পড়েন তারা।

উপায় না পেয়ে রাস্তার ওপরই কয়েক হাজার ছাগলের চামড়া ফেলে চলে যান। ফলে প্রচন্ড রোদে চামড়াগুলোতে পচন ধরে দুর্গন্ধ ছড়াচ্ছে। বৃহস্পতিবার (২২ জুলাই) দুপুরে উত্তরবঙ্গের সবচেয়ে বড় চামড়ার আড়ত দিনাজপুরের রামনগর এলাকায় চামড়া ব্যবসায়ী মালিক গ্রপ অফিসের সামনে এমন দৃশ্য দেখা যায়।

পরে দুপুর ২টার দিকে দিনাজপুর পৌরসভার পরিচ্ছন্ন কর্মীরা ময়লা ফেলা গাড়ি নিয়ে গিয়ে রাস্তার ওপর পড়ে থাকা চামড়াগুলো তুলে নিয়ে যায়। পরিচ্ছন্ন কর্মীরা জানান, চামড়াগুলো মাতাসাগর ময়লা গাড্ডায় নিয়ে গিয়ে মাটিতে পুতে রাখার সিদ্ধন্ত হয়।

গত বারের তুলনায় দিনাজপুরে এবার গরুর চামড়া দ্বিগুণ দামে বিক্রি হয়েছে। গত বছর যে গরুর চামড়া ২শ’-৩শ’ টাকায় বিক্রি হয়েছে, এ বছর ৭শ’ টাকা পর্যন্ত হয়। কিন্তু এবার ছাগলের চামড়া কিনছেন না পাইকার ব্যবসায়ীরা। এমনকি বিনামূল্যেও ছাগলের চামড়া নিচ্ছে না তারা। যদিও বা বেছে বেছে কিছু ছাগলের চামড়া কিনেছেন তার মূল্য ৫ টাকা।

এ অবস্থা দেখে মৌসুমি ব্যবসায়ীরা কয়েক হাজার হাজার ছাগলের চামড়া রাস্তায় ফেলে দিয়ে চলে গেছেন। তবে অনেক মাদরাসায় ছাগলের চামড়া লবণ দিয়ে রাখা হচ্ছে, যদি পরে দাম পাওয়া যায় সেই আশায়।

রামনগর চামড়ার আড়তে গিয়ে দেখা হয় মেরাজ হোসেন নামে এক ব্যক্তির সঙ্গে। তিনি লালবাগ এলাকা থেকে একটি খাসির চামড়া বিক্রি করতে এসেছেন। এ সময় তাকে এক চামড়া ব্যবসায়ী বলছিলেন, ‘ভাই চামড়া দিবেন, সঙ্গে এক কেজি লবণের দাম দিবেন এবং চামড়ায় লবণ লাগানোর জন্য লেবার খরচ বাবদ ১০ টাকা দিবেন। তাহলে চামড়া নিতে পারি।’ এ কথা শুনে মেরাজ হোসেন চামড়া নিয়ে চলে যান।

মৌসুমী ব্যবসায়ী রমজান আলী জানান, তিনি কিছু গরু ও ছাগলের চামড়া কিনেছিলেন। ঈদের দিন রাতে তিনি রামনগর চামড়ার আড়তে গরুর চামড়া বিক্রি করতে পারলেও ছাগলের চামড়া বিক্রি করতে পারেননি। তাই তিনি চামড়াগুলো সেখানেই রাস্তার ওপর রেখে চলে এসেছেন।

এ ব্যাপারে জানতে চাইলে দিনাজপুর চামড়া ব্যবসায়ী মালিক গ্রুপের সহ-সাধারণ সম্পাদক মোহাম্মদ আলী বলেন, ‘ছাগলের চামড়া কিনে প্রক্রিয়াজাত করে ঢাকায় ট্যানারিতে পৌঁছানো পর্যন্ত বর্তমান অবস্থায় কমপক্ষে ৫০ থেকে ৬০ টাকা খরচ হয়।

আর সেই ছাগলের চামড়া ট্যানারিতে নিয়ে গিয়ে বিক্রি করতে হয় ১০-১৫ টাকায়। তাই ব্যবসায়ীরা ছাগলের চামড়া কিনছে না। তবে এবার গরুর চামড়া গত বারের চেয়ে ভালো দামে বিক্রি হয়েছে।’

শীর্ষ সংবাদ:
দেশে করোনায় এক দিনে রেকর্ড ২৬৪ জনের মৃত্যু         জুলাই মাসে করোনায় আক্রান্ত ৯৮ শতাংশের শরীরে ডেল্টা ভ্যারিয়েন্ট         ‘ক্রীড়া ও সাংস্কৃতিক জগতে শেখ কামালের গুরুত্বপূর্ণ অবদান রয়েছে ’         খুলনা বিভাগে করোনায় আরও ৩৪ জনের মৃত্যু         শেখ কামালের জন্মদিন ॥ স্মারক ডাকটিকিট অবমুক্ত করলেন প্রধানমন্ত্রী         ‘শেখ কামালের পদ-পদবি-ক্ষমতার প্রতি আকর্ষণ ছিল না’         পরীমনি ও রাজের বিরুদ্ধে একাধিক মামলা হচ্ছে         ‘শেখ কামাল সৃষ্টিশীল অনন্য প্রতিভার দৃষ্টান্ত হয়ে থাকবেন’         প্রজ্ঞাপন জারি ॥ লকডাউন বাড়ল ১০ আগস্ট পর্যন্ত         ১১ আগস্ট থেকে চলবে ট্রেন         রাজশাহীতে করোনায় একদিনে আরও ১৭ জনের মৃত্যু         শেখ কামালের কবরে প্রধানমন্ত্রী ও দলের শ্রদ্ধা         দিনাজপুরে করোনায় ৭ জনের মৃত্যু         শেখ কামালের জন্মবার্ষিকীতে ১০ প্রবীন ক্রীড়াবিদ ও বীরমুক্তিযোদ্ধাদের সম্মাননা প্রদান         আগামীকাল থেকে শিল্পকারখানা খোলা, চলবে বিমান         ৭ আগস্ট নয়, গণটিকা কার্যক্রম শুরু ১৪ আগস্ট         খুলনায় করোনায় চার জনের মৃত্যু         ঝিনাইদহে করোনা পজিটিভ ও উপসর্গে ৫ জনের মৃত্যু         ৫ বিভাগে বৃষ্টির সম্ভাবনা         কাকরাইল গ্যারেজের আগুন নিয়ন্ত্রণে