সোমবার ২২ অগ্রহায়ণ ১৪২৮, ০৬ ডিসেম্বর ২০২১ ঢাকা, বাংলাদেশ
প্রচ্ছদ
অনলাইন
আজকের পত্রিকা
সর্বশেষ

শেখ হাসিনা ছাড়া বাংলাদেশকে নেতৃত্ব দেয়ার কেউ নেই ॥ খুলনায় হানিফ

স্টাফ রিপোর্টার, খুলনা অফিস ॥ আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক মাহবুব-উল আলম হানিফ এমপি বলেছেন, জননেত্রী শেখ হাসিনার ছাড়া বাংলাদেশকে নেতৃত্ব দেয়ার মতো কোন নেতা নেই। তিনিই দেশের মানুষের আশা-ভরসার প্রতীক। তার নেতৃত্বে বাংলাদেশ সকল ক্ষেত্রে উন্নতি করছে। এই উন্নয়ন ও অগ্রগতির ধারাকে বাধাগ্রস্ত করতে একটি অশুভ শক্তি তৎপর রয়েছে। তিনি বলেন, আওয়ামী লীগ একটি সুসংগঠিত দল। তাই কোন অশুভ তৎপরতা টিকবে না। বিএনপির সমালোচনা করে হানিফ বলেন, খালেদা জিয়া ও তারেক রহমানের অদক্ষতা, অযোগ্যতা ও দুর্নীতির কারণে বিএনপির এখন করুন অবস্থা হয়েছে। এটি এখন আর কোন রাজনৈতিক দল নয়। তাই বিএনপি আর কখনও ক্ষমতায় যেতে পারবে না। শনিবার বিকেলে স্থানীয় ইউনাইটেড ক্লাবে মহানগর আওয়ামী লীগের বিশেষ বর্ধিতসভায় বিশেষ অতিথির বক্তৃতায় তিনি এসব কথা বলেন। মাহবুব-উল আলম হানিফ আরও বলেন, আওয়ামী লীগকে আরও শক্তিশালী ও গতিশীল করতে আগামী অক্টোবরের মধ্যেই জাতীয় কাউন্সিলর অনুষ্ঠিত হবে। সেজন্য ওয়ার্ড-ইউনিয়ন থেকে থানা ও জেলার কাউন্সিলের কার্যক্রম শুরু হয়েছে। তিনি নেতা-কর্মীদের সতর্ক করে বলেন, যুদ্ধাপরাধী, স্বাধীনতাবিরোধী জামায়াত-শিবিরের কোন নেতাকর্মীকে আওয়ামী লীগে গ্রহণ করা হবে না। তবে অন্যদল থেকে যারা আওয়ামী লীগে যোগ দিতে চান তাদের বিরুদ্ধে সন্ত্রাস, মাদক ব্যবসা ও জঙ্গীবাদে সম্পৃক্ততাসহ কোন প্রকার অভিযোগ না থাকলে তাদের বিষয়ে বিবেচনা করা যেতে পারে। পাটকল শ্রমিকদের প্রসঙ্গে তিনি বলেন, আশা করি এই সমস্যার দ্রুত সমাধান হবে।

সভায় সভাপতিত্ব করেন মহানগর আওয়ামী লীগের সভাপতি ও খুলনা সিটি কর্পোরেশনের মেয়র তালুকদার আব্দুল খালেক। উদ্বোধক ছিলেন বঙ্গবন্ধুর ভ্রাতুষ্পুত্র শেখ হোলাল উদ্দিন এমপি। নগর আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক সাবেক এমপি মিজানুর রহমান মিজানের সঞ্চালনায় সভায় প্রধান অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন আওয়ামী লীগের সভাপতিমন্ডলীর সদস্য এ্যাডভোকেট পিযুষ কান্তি ভট্টাচার্য। সভায় বিশেষ অতিথি ছিলেন কেন্দ্রীয় কমিটির সাংগঠনিক সম্পাদক ও জাতীয় সংসদের হুইপ আবু সাঈদ আল মাহমুদ স্বপন, আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় নির্বাহী কমিটির সদস্য শ্রম ও কর্মসংস্থান প্রতিমন্ত্রী বেগম মন্নুজান সুফিয়ান এমপি, বঙ্গবন্ধুর ভ্রাতুষ্পুত্র খুলনা- আসনের সংসদ সদস্য শেখ সালাহউদ্দিন জুয়েল, কেন্দ্রীয় নির্বাহী কমিটির সদস্য এস এম কামাল হোসেন, পারভীন জামান কল্পনা, এ্যাডভোকেট আমিরুল আলম মিলন, জাতীয় কমিটির সদস্য এ্যাডভোকেট চিশতী সোহরাব হোসেন শিকদার, বিসিবি পরিচালক বঙ্গবন্ধুর ভ্রাতুষ্পুত্র শেখ সোহেল, খুলনা জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি ও জেলা পরিষদের চেয়ারম্যান শেখ হারুনুর রশিদ, ভারপ্রাপ্ত সাধারণ সম্পাদক এ্যাডভোকেট সুজিত অধিকারী।

বক্তব্য রাখেন মহানগর কমিটি, বিভিন্ন থানা কমিটি ও ওয়ার্ড কমিটির নেতা ও সহযোগী সংগঠনের নেতৃবৃন্দ। তারা বিভিন্ন অভিযোগ তুলে ধরেন কেন্দ্রীয় নেতাদের কাছে।

সভায় মাহবুব-উল আলম হানিফ বলেন, ১৯৭৫ সালে বঙ্গবন্ধুকে হত্যার পর যাদের বিরুদ্ধে যুদ্ধ করেছিলাম এই বাংলাদেশে তাদের ক্ষমতায় বসানো হলো। রাজাকার শাহ আজিজকে প্রধানমন্ত্রী করা হলো, আব্দুল আলীমকে করা হল রেলমন্ত্রী। সেই সময় বাংলাদেশের মানুষের মধ্যে এক দুর্বিষহ অবস্থার সৃষ্টি হয়েছিল। ১৯৮১ সালের ১৭ মে বঙ্গবন্ধু কন্যা শেখ হাসিনা দেশে ফিরে এসে সেই শ্বাসরুদ্ধকর অবস্থা থেকে দেশের মানুষকে মুক্তি দিয়েছেন। তিনি বলেন, বিএনপি-জামায়াত সৃষ্ট জঙ্গীবাদের বাংলাদেশ শেখ হাসিনার নেতৃত্বে ঘুরে দাঁড়িয়েছে। গত ১০ বছরে বাংলাদেশ বিশ্বের বুকে অর্থনৈতিকভাবে স্বাবলম্বী রাষ্ট্র হিসেবে মাথা উঁচু করে দাঁড়িয়েছে। এক সময়ের দুর্যোগ-দুর্নীতির বাংলাদেশ এখন উন্নয়নের রোলমডেল। আর এর সব অবদান বঙ্গবন্ধু কন্যা শেখ হাসিনার। এই উন্নয়নকে বাধাগ্রস্ত করতে একটি চক্র সক্রিয় রয়েছে। কিন্তু আওয়ামী লীগের নেতাকর্মীরা ঐক্যবদ্ধ থাকায় তারা কামিয়াব হতে পারেনি, পারবেও না।

শীর্ষ সংবাদ:
বৃষ্টি উপেক্ষিত, মুখে কালো কাপড় বেঁধে রাজপথে শিক্ষার্থীরা         ভারতের সঙ্গে আমাদের রক্তের সম্পর্ক ॥ পররাষ্ট্রমন্ত্রী         তথ্য প্রতিমন্ত্রীর বক্তব্য ব্যক্তিগত, দলের নয় ॥ কাদের         জাওয়াদ’র প্রভাবে ঢাকাসহ দেশের বিভিন্ন স্থানে বৃষ্টি         সু চির ৪ বছরের সাজা         শিশু তামীমকে তাৎক্ষণিক ৫ লাখ দেওয়ার নির্দেশ, ১০ কোটি দিতে রুল         স্কুলে ভর্তি ॥ বেসরকারীর তুলনায় সরকারী স্কুলে দ্বিগুণ আবেদন         বেড়িবাঁধ ভাঙ্গা স্থান দিয়ে ঢুকছে পানি ॥ রবিশস্যের ব্যাপক ক্ষতির শঙ্কা         চকরিয়ায় বন্দুকযুদ্ধে দুই ডাকাত নিহত         নাটোরে ট্রেন-ট্রাক সংঘর্ষ ॥ ৫ ঘন্টা পর ট্রেন চলাচল স্বাভাবিক         বরিশাল বিআরটিসি বাস ডিপো ॥ সচলের চেয়ে অচলের সংখ্যা বেশী         স্বৈরাচার পতন ও গণতন্ত্র মুক্তি দিবস আজ