আংশিক মেঘলা, তাপমাত্রা ২২.৮ °C
 
২৫ ফেব্রুয়ারী ২০১৭, ১৩ ফাল্গুন ১৪২৩, শনিবার, ঢাকা, বাংলাদেশ
শীর্ষ সংবাদ

গুগলের সাইবার নিরাপত্তা দেখেন একজন হ্যাকার

প্রকাশিত : ১৩ মে ২০১৬, ১১:৩৪ এ. এম.
গুগলের সাইবার নিরাপত্তা দেখেন একজন হ্যাকার

অনলাইন ডেস্ক॥ দুনিয়ার সবচেয়ে বড় টেক জায়ান্ট কোম্পানি গুগলের সাইবার নিরাপত্তার দায়িত্বে আছেন একজন নারী হ্যাকার। নাম পারিসা তাবরিজ। তাঁকে বলা হয় গুগলের টপ সিক্রেট উইপন 'সিকিউরিটি প্রিন্সেস'।

হ্যাকার মানেই খারাপ তা কিন্তু নয়। যারা ব্ল্যাক হ্যাট হ্যাকার্স তারা নিজেদের স্বার্থ উদ্ধারের জন্যে অন্যের তথ্য চুরি করে আর হোয়াইট হ্যাট হ্যাকার্সরা ঠিক তার উল্টোটা, যারা নিজেদের মেধা ও দক্ষতা ইথিক্যাল হ্যাকিং বা নিরাপত্তা রক্ষায় ব্যবহার করেন।

গুগল ক্রোমের কোটি কোটি ব্যবহারকারীকে হ্যাকারদের আক্রমনের হাত থেকে রক্ষা করে চলেছেন প্রতিনিয়ত তাবরিজ। আজ তিনি দুনিয়ার কোটি ব্যবহারকারীর সিকিউরিটি নিশ্চিত করলেও কলেজে থাকা অবস্থায় তার নিজের ওয়েবসাইটটিও একবার হ্যাকিংয়ের কবলে পড়ে। এরপরেই যুক্ত হন ওয়েবসাইট সিকিউরিটি নিয়ে কাজ করে এমন স্টুডেন্ট ক্লাবের সাথে। আর এখান থেকেই ইন্টারনেট সিকিউরিটির পথে যাত্রা শুরু করেন তিনি।

২০০৭ সালে কলেজে পড়াশুনা করা অবস্থায় গুগলে চাকরিতে যোগদান করেন পারিসা তাবরিজ। একজন মেয়ে হিসেবে ৩১ বছর বয়সী পারিসা তাবরিজের পথ চলাটা মোটেও সহজ ছিল না। গুগলে যোগদানের পর তার কলেজের এক ছেলে বলেছিল, ''তুমি চাকরিটা পেয়েছো কারন তুমি একজন মেয়ে''। তারপরও তিনি থেমে যাননি। নিজের মেধা আর যোগ্যতায় ২০১২ সালে ফোর্বস সাময়িকীর ৩০ বছরের কম বয়সী ৩০ জন প্রভাবশালীর কাতারে তার নাম চলে আসে। যেখানে ফেসবুকের প্রতিষ্ঠাতা মার্ক জাকারবার্গের নামও ছিল।

গুগলের এই নিরাপত্তা রাজকন্যার জন্ম যুক্তরাষ্ট্রের শিকাগো শহরে। দুই ভাই আর এক বোনের মধ্যে সবার বড় পারিসা। বাবা একজন ইরানি ডাক্তার, মা পোলিশ-আমেরিকান নার্স। সেদিক দিয়ে তাকে ইরানি-আমেরিকান বলা যায়। পরিবারের বড় মেয়ে হবার সুবাদে দুই ভাইকে সবসময় শাসনের উপর রাখতেন আর সুযোগ পেলেই তাদের পেটাতেন। তারা আরেকটু বড় হবার পর শাসনের সুযোগ কমে আসে। তাই বিভিন্ন কৌশলে তাদের পেটাতে হতো। আর এই কারনেই ভাইয়েরাও তাকে হেনস্থা করার চেষ্টায় থাকতো। তাদের পেটানো এবং হেনস্থা থেকে বাঁচতেই নিত্য নতুন বিভিন্ন উপায় বের করতে হতো তাকে। আর ঠিক এটাই পরবর্তী জীবনে সবচেয়ে সুফল হয়ে দেখা দিল তার। হ্যাকারদের আক্রমণের বহুমুখী প্রচেষ্টা আগাম ভাবতে পারার সক্ষমতা তাকে দ্রুতই গুগলের এত বড় দায়িত্বে নিয়ে আসে।

পারিসা তাবরিজ পড়াশুনা করেছেন যুক্তরাষ্ট্রের ইলিনইস ইউনিভার্সিটিতে কম্পিউটার প্রকৌশল বিভাগে। মজার ব্যাপার হচ্ছে, পড়াশুনার প্রথম বছরের আগ পর্যন্ত তিনি কম্পিউটার হাত দিয়ে স্পর্শই করেননি। একই বিশ্ববিদ্যালয় থেকে ব্যাচেলর এবং মাস্টার্স ডিগ্রি অর্জন করেন এবং রিসার্চ করেন ওয়্যারলেস নেটওয়ার্কিং সিকিউরিটি নিয়ে।

নিরাপত্তা রাজকন্যার অবসর কাটে ছবি তুলে, পাহাড়ে চড়ে। পছন্দ করেন আইসক্রিম বানাতে। ক্যালিফোর্নিয়ার মাউন্টেন ভিউয়ে গুগল ক্যাম্পাসের কাছেই থাকেন তিনি। নির্ঘুম রাত আর কঠোর পরিশ্রম করে চলেছেন দুনিয়ার অধিকাংশ ইন্টারনেট ব্যবহারকারীর নিরাপত্তা নিশ্চিত করতে।

প্রকাশিত : ১৩ মে ২০১৬, ১১:৩৪ এ. এম.

১৩/০৫/২০১৬ তারিখের খবরের জন্য এখানে ক্লিক করুন

বিদেশের খবর



ব্রেকিং নিউজ: