পরিষ্কার, তাপমাত্রা ২০ °C
 
২১ জানুয়ারী ২০১৭, ৮ মাঘ ১৪২৩, শনিবার, ঢাকা, বাংলাদেশ
শীর্ষ সংবাদ

মামুনুল ও সোহেল রানা নিষেধাজ্ঞামুক্ত

প্রকাশিত : ১৩ মে ২০১৬
  • অপর দুই ফুটবলার ইয়াসিন ও জাহিদ ক্ষমা চেয়ে আবেদন করেননি

স্পোর্টস রিপোর্টার ॥ খারাপ সময় পার করে আবারও ভাল সময় কাটানোর দিন আসছে মামুনুল ইসলাম এবং সোহেল রানার ভাগ্যে। মাস দুয়েক আগে মাথার ওপর দুর্ভাগ্যের যে কালো মেঘ ভর করেছিল, অবশেষে সেই মেঘ কেটে গেছে। আর এই মেঘ কাটানোর ব্যবস্থা করেছে বাংলাদেশ ফুটবল ফেডারেশন (বাফুফে)। শৃঙ্খলা ভঙ্গের অভিযোগে এই দুই ফুটবলারকে নিষিদ্ধ করেছিল তারা। বৃহস্পতিবার তাদের ওপর আরোপিত সেই নিষেধাজ্ঞা প্রত্যাহার করেছে দেশীয় ফুটবলের নিয়ন্ত্রক সংস্থা।

বৃহস্পতিবার বাফুফে ভবনের কনফারেন্স রুমে এক সংবাদ সম্মেলনে বাফুফের সিনিয়র সহ-সভাপতি আব্দুস সালাম মুর্শেদী বলেন, ‘জাতীয় দলের প্রয়োজনীয়তা ও তাদের আবেদনের পরিপ্রেক্ষিতে মামুনুল ইসলাম ও সোহেল রানার নিষেধাজ্ঞা তুলে নেয়া হলো।’

তবে ছয় মাসের নিষেধাজ্ঞায় থাকা অপর দুই ফুটবলার ইয়াসিন খান এবং জাহিদ হোসেনের বিষয়ে এখনও কোন সিদ্ধান্ত নেয়নি বাফুফে। জানা গেছে, এই দুই ফুটবলার এখনও ক্ষমা চেয়ে বাফুফের কাছে আবেদনই করেননি।

শৃঙ্খলা ভঙ্গের অভিযোগে নিষিদ্ধ হওয়া মামুনুল, সোহেল রানা, ইয়াসিন ও জাহিদ হোসেন যদি বিনা শর্তে বাফুফের কাছে ক্ষমা চান তাহলে তাদের জাতীয় দলে ফেরানো হতে পারে বলে গত ৭ মে জানিয়েছিলেন বাফুফে সহ-সভাপতি কাজী নাবিল আহমেদ। এর পরদিনই বাফুফের কাছে ক্ষমা চান মামুনুল-রানা। এরই পরিপ্রেক্ষিতে তাদের ক্ষমা করে বাফুফে। ফলে জাতীয় দলে তাদের অন্তর্ভুক্তি অনেকটাই নিশ্চিত।

গত বছর সাফ ফুটবল চলাকালে দলীয় শৃঙ্খলা ভঙ্গের অভিযোগে চলতি বছর ২ মার্চ নিষিদ্ধ করা হয় জাতীয় দলের তৎকালীন অধিনায়ক মামুনুল ইসলামসহ ৪ ফুটবলারকে। যার মধ্যে মামুনুল ও জাহিদ হোসেনকে ১ বছরের জন্য নিষিদ্ধ করা হয়েছিল। অপর দুই ফুটবলার ইয়াসিন খান ও সোহেল রানাকে নিষিদ্ধ করা হয় ৬ মাসের জন্য। এছাড়া তদন্তের আওতায় থাকা বাকি ৩ ফুটবলার শহীদুল আলম সোহেল, আতিকুর রহমান মিশু ও ইয়ামিন আহমেদ চৌধুরী মুন্নাকে সতর্ক করা হয়েছিল।

প্রকাশিত : ১৩ মে ২০১৬

১৩/০৫/২০১৬ তারিখের খবরের জন্য এখানে ক্লিক করুন

খেলার খবর



ব্রেকিং নিউজ: