আংশিক মেঘলা, তাপমাত্রা ২২.৮ °C
 
২৫ ফেব্রুয়ারী ২০১৭, ১৩ ফাল্গুন ১৪২৩, শনিবার, ঢাকা, বাংলাদেশ
শীর্ষ সংবাদ

নিরাপদ হেফাজত থেকেই দোআশার এসএসসিতে জিপিএ গোল্ডেন

প্রকাশিত : ১২ মে ২০১৬, ০৪:১৩ পি. এম.
নিরাপদ হেফাজত থেকেই দোআশার এসএসসিতে জিপিএ গোল্ডেন

নিজস্ব সংবাদদাতা, শেরপুর ॥ শেরপুরের সেই তাবাসসুম বিনতে বানিন দোআশা এবার কঠিন যুদ্ধজয়ী হয়েছে। নিরাপদ হেফাজতে থেকে এসএসসি পরীক্ষায় অংশ নিয়েও সে জিপিএ গোল্ডেন পেয়েছে। আনন্দের এ সন্ধিক্ষণে সে প্রেমিক-স্বামীর কাছে ফিরে যাওয়ার আকুতি ব্যক্ত করেছে।

জানা যায়, শেরপুর শহরের চিকিৎসক-অধ্যাপক দম্পতির অসম্ভব জেদী মেয়ে তাবাসসুম বিনতে বানিন দোআশা ২০১৫ সালের এসএসসি পরীক্ষায় অংশ নিয়েও সবগুলো পরীক্ষা শেষ না করে কলেজশিক্ষার্থী বন্ধু জিহানের সাথে সম্পর্কের সূত্রে চলে যায় ওই বছরের ১৪ মার্চ। পরদিন সে জিহানের সাথে বিবাহবন্ধনে আবদ্ধ হয়। কিন্তু বাধ সাধেন পিতা। ‘অপরিণত’ বয়সের অজুহাত তুলে তিনি (দোআশার বাবা) মামলা ঠুকে দেন জিহান, তার পিতা-মাতাসহ ৫ জনের বিরুদ্ধে। ওই অবস্থায় পুলিশি হয়রানীর ভয়ে দোআশাকে নিয়ে জিহান ২২ জুলাই শেরপুর সদর থানায় আত্মসমর্পণ করে। এরপর জিহানকে আদালতে সোপর্দ করা হলে সে যায় কারাগারে। আর দোআশা অপরিণত বয়স এবং অভিভাবকের জিম্মায় যেতে অস্বীকৃতি জানানোর কারণে তাকে যেতে হয় ফরিদপুরের ট্যাপাখোলা মহিলা ও কিশোরী নিরাপদ হেফাজত আবাসন কেন্দ্রে (সেইফ হোমে)। এরপর থেকে পিতা-মাতা ও অন্যান্য আসামীসহ জিহান পর্যায়ক্রমে জামিনে মুক্তি পেয়ে বেরিয়ে গেলেও দোআশাকে থাকতে হয়েছে নিরাপদ হেফাজতের চার দেয়ালে আবদ্ধ। তবে এরপরও সে থেমে থাকেনি। সেখানে থেকেই সে চলতি বছরের এসএসসি পরীক্ষায় বিজ্ঞান বিভাগ থেকে আফসর আলী বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়ের শিক্ষার্থী হিসেবে অংশ নেয়। আর এতে কাঙ্খিত ফলাফল পেয়ে সে যেমন উজ্জীবিত, ঠিক তেমনি ভবিষ্যতে আরও ভাল করতে আত্মপ্রত্যয়ী। এরপরও তার কষ্ট বন্দিত্ব জীবন; বন্ধু জিহান কাছে না থাকায় এবং সে জিহানের পাশে থাকতে না পারায়।

প্রকাশিত : ১২ মে ২০১৬, ০৪:১৩ পি. এম.

১২/০৫/২০১৬ তারিখের খবরের জন্য এখানে ক্লিক করুন

দেশের খবর



ব্রেকিং নিউজ: