মূলত রৌদ্রজ্জ্বল, তাপমাত্রা ২৫ °C
 
২৪ জানুয়ারী ২০১৭, ১১ মাঘ ১৪২৩, মঙ্গলবার, ঢাকা, বাংলাদেশ
শীর্ষ সংবাদ

ফের পাকিস্তানের ঔদ্ধত্য

প্রকাশিত : ১২ মে ২০১৬
ফের পাকিস্তানের ঔদ্ধত্য

কূটনৈতিক রিপোর্টার ॥ ১৯৭১ সালে যুদ্ধাপরাধের দায়ে জামায়াতে ইসলামীর আমির মতিউর রহমান নিজামীর ফাঁসির রায় কার্যকরের পর পাকিস্তানের রক্তক্ষরণ শুরু হয়েছে। নিজামীর ফাঁসির পর আবারও অবাঞ্ছিতভাবে বিবৃতি দিয়ে পাকিস্তান গভীর উদ্বেগ প্রকাশ করেছে। পাকিস্তান সরকার দাবি করেছে, পাকিস্তানের সংবিধান ও আইনের প্রতি শ্রদ্ধাশীল হওয়াটাই ছিল নিজামীর একমাত্র পাপ। বুধবার পাকিস্তানের পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় থেকে নিজামীর পক্ষে এভাবেই সাফাই গেয়ে বিবৃতি দেয় দেশটি। এছাড়া পাকিস্তানের জামায়াতে ইসলামী থেকেও নিজামীর পক্ষে দেশটির ‘ঘনিষ্ঠ বন্ধু’ হিসেবে প্রচারণা চালানো হচ্ছে।

নিজামীর ফাঁসির পর বুধবার পাকিস্তানের পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় থেকে এক বিবৃতিতে উল্লেখ করা হয়েছে, জামায়াতে ইসলামীর আমির মতিউর রহমান নিজামীকে ফাঁসি দেয়ায় পাকিস্তান গভীর শোকাহত। পাকিস্তানের সংবিধান ও আইনের প্রতি শ্রদ্ধাশীল থাকাটাই ছিল তার একমাত্র পাপ। তবে বাংলাদেশের বর্তমান সরকার গণতন্ত্রের বিরুদ্ধে অবস্থান নিয়ে বিরোধী পক্ষের নেতাদের দমনে আইন প্রণয়ন করে বিচার করছে। এই বিচার বাংলাদেশের জনগণের জন্য অত্যন্ত দুর্ভাগ্যজনক। নিজামী জাতীয় সংসদের প্রতিনিধি হিসেবে নির্বাচিত হয়েছিলেন বলেও উল্লেখ করা হয় বিবৃতিতে।

যুদ্ধাপরাধের বিচার নিয়ে আন্তর্জাতিক বিভিন্ন মহলের সমালোচনা থাকা সত্ত্বেও বাংলাদেশ এই বিচার কাজ চালিয়ে যাচ্ছে বলে বিবৃতিতে দাবি করেছে পাকিস্তান। এছাড়া ১৯৭৪ সালের ত্রিপক্ষীয় চুক্তি বাংলাদেশ লঙ্ঘন করছে বলেও দাবি করে দেশটি। বিবৃতিতে নিজামীর পরিবারের প্রতিও গভীর শোক প্রকাশ করেছে পাকিস্তান।

এদিকে নিজামীর জন্য জামায়াতে ইসলামী পাকিস্তানের অফিসিয়াল ফেসবুক পেজে রক্তক্ষরণ হয়েছে। মঙ্গলবার রাত ১২টা ১০ মিনিটে ঢাকা কেন্দ্রীয় কারাগারে মানবতাবিরোধী অপরাধের অভিযোগে অভিযুক্ত বাংলাদেশ জামায়াতে ইসলামের আমির মতিউর রহমান নিজামীর ফাঁসি কার্যকরের পরপরই বদলে যায় ‘জামায়াতে ইসলামী পাকিস্তানের ফেসবুক পেজ। তাদের ফেসবুক পেজের প্রোফাইল পিকচার ও কভার ফটোতে তারা ঝুঁলিয়ে দেয় নিজামীর ছবি। ছবির পাশেই শোভা পাচ্ছে ফোঁটা ফোঁটা রক্তের চিহ্ন।

‘উই আর নিজামী’ হ্যাশট্যাগ সংবলিত নিজামীর ছবি স্থান পাচ্ছে জামায়াতে ইসলাম পাকিস্তানের ফেসবুক পেজের প্রোফাইল পিকচারে। এছাড়াও তাদের কভার ফটোতেও একই ধরনের পরিবর্তন এনেছে তারা। সেখানে নিজামীকে ঘনিষ্ঠ বন্ধু হিসেবে প্রচারণা চালানো হচ্ছে। পাকিস্তানী গণমাধ্যমগুলোতে প্রচারিত নিজামীর ফাঁসি সংক্রান্ত যাবতীয় সংবাদের সূত্রও ঠাঁই পাচ্ছে তাদের অফিসিয়াল ফেসবুক পেজে। এছাড়া বুধবার বিকেল পাঁচটায় শুহাদামল মসজিদ রোডে নিজামীর গায়েবানা জানাজা পড়িয়েছে পাকিস্তানের জামায়াত। এ সময় জানাজা পড়ান পাকিস্তান জামায়াতের আমির মাওলানা সিরাজুল হক।

১৯৭১ সালের যুদ্ধাপরাধের দায়ে মৃত্যুদ-াদেশ পাওয়া জামায়াতে ইসলামীর নেতা মতিউর রহমান নিজামীর রায় পুনর্বিবেচনার আবেদন গত বৃহস্পতিবার সুপ্রীমকোর্টের আপীল বিভাগ খারিজ করে দেন। আপীল বিভাগের খারিজের পর নিজামীর মৃত্যুদ-াদেশ বহাল থাকে। তবে নিজামীর মৃত্যুদ-াদেশ বহালের পর পাকিস্তানের পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় থেকে এক বিবৃতিতে গভীর উদ্বেগ প্রকাশ করা হয়। গত শনিবার পাকিস্তানের ইংরেজী দৈনিক ডন দেশটির উদ্বেগের খবর প্রকাশ করে। এ প্রেক্ষিতে রবিবার পররাষ্ট্র দফতরে প্রতিমন্ত্রী শাহরিয়ার আলম সাংবাদিকদের এক প্রতিক্রিয়ায় বাংলাদেশের অভ্যন্তরীণ পরিস্থিতি নিয়ে পাকিস্তানকে নাক না গলানোর জন্য আহ্বান জানান। এছাড়া ঢাকায় নিযুক্ত পাকিস্তানের হাইকমিশনার সুজা আলমকে তলব করে বাংলাদেশের অভ্যন্তরীণ বিষয়ে নাক না গলানোর জন্য পাকিস্তানের প্রতি কড়া হুঁশিয়ারি দেয় বাংলাদেশ। তবে এত কিছুর পরও বুধবার পাকিস্তানের পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় থেকে আবারও বিবৃতি দিয়েছে পাকিস্তান।

১৯৭১ সালের মুক্তিযুদ্ধের সময় যুদ্ধাপরাধের বিচার ঘিরে বাংলাদেশ ও পাকিস্তানের মধ্যে মধ্যে কূটনৈতিক সম্পর্কের টানাপোড়েন শুরু হয়। এই প্রেক্ষিতে দুই দেশের কূটনীতিককে তলব পাল্টা তলব ও বহিষ্কার পাল্টা বহিষ্কারের ঘটনা ঘটেছে। তবে পাকিস্তানই দুই দেশের সম্পর্ক তিক্ত করে চলেছে। সর্বশেষ নিজামীর আপীল বিভাগের রায় বহাল থাকায় আবারও দুই দেশের মধ্যে টানাপোড়েন শুরু হয়। পাকিস্তানের পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় থেকে প্রথমে একবার নিজামীর পক্ষে বিবৃতি দেয়া হয়। আর মঙ্গলবার রাতে নিজামীর ফাঁসির পর বুধবার আবারও বিবৃতি দিল পাকিস্তান।

প্রকাশিত : ১২ মে ২০১৬

১২/০৫/২০১৬ তারিখের খবরের জন্য এখানে ক্লিক করুন

প্রথম পাতা



ব্রেকিং নিউজ: