মূলত রৌদ্রজ্জ্বল, তাপমাত্রা ২৭.২ °C
 
১৯ জানুয়ারী ২০১৭, ৬ মাঘ ১৪২৩, বৃহস্পতিবার, ঢাকা, বাংলাদেশ
শীর্ষ সংবাদ

আসছে বাজেটেও বিদ্যুত ও জ্বালানি খাতকে অগ্রাধিকার

প্রকাশিত : ১২ মে ২০১৬

অর্থনৈতিক রিপোর্টার ॥ আসছে বাজেটেও বিদ্যুত ও জ্বালানি খাতকে অগ্রাধিকার দেয়া হবে। নজর দেয়া হবে এ খাতের পুরনো প্রকল্প চালু রাখা এবং বিদ্যুতের নতুন সঞ্চালন লাইনের ওপর। তবে বিদ্যুত উৎপাদন বাড়ানোর পাশাপাশি টেকসই জ্বালানি নিরাপত্তা গড়ে তোলার ওপর গুরুত্ব দেয়ার পরামর্শ বিশ্লেষকদের। জাতিসংঘের দেয়া টেকসই উন্নয়ন লক্ষ্যমাত্রার ২০৩০ সালের মধ্যে সবাইকে বিদ্যুত সুবিধা পৌঁছে দিতে হবে। সে লক্ষ্যে সপ্তম পঞ্চবার্ষিকী পরিকল্পনায়ও বিদ্যুত জ্বালানি খাতকে বিশেষ গুরুত্ব দেয়া হয়েছে। গত কয়েক বাজেটে বরাদ্দের বেলায়ও তাই দেয়া হয়েছে অগ্রাধিকার।

ভারত থেকে আমদানি, তেলভিত্তিক অস্থায়ী বিদ্যুত কেন্দ্র নির্মাণ, নতুন বিদ্যুত কেন্দ্র নির্মাণ, পারমাণবিক বিদ্যুত কেন্দ্র প্রকল্প কিংবা কয়লাভিত্তিক কেন্দ্র এসবই দীর্ঘমেয়াদী চাহিদার ভিত্তিতে পরিকল্পনার অংশ। এরই মধ্যে দেশের বিদ্যুত উৎপাদন ১০ হাজার মেগাওয়াট ছাড়িয়েছে। ২০২১ সালে লক্ষ্য ২৪ হাজার মেগাওয়াট। তাই আগামী বাজেটেও বরাদ্দে অগ্রাধিকার থাকবে তা এক রকম নিশ্চিত করা হয়েছে পরিকল্পনা কমিশনের পক্ষ থেকে।

পরিকল্পনা কমিশন সদস্য ড. শামসুল আলম বলেন, ‘জ্বালানি নিরাপত্তার ক্ষেত্রে যে ব্যয়গুলো ধরা হয়েছে সেগুলো অব্যাহত থাকবে। বিশেষ করে ডিস্ট্রিবিউশন লাইন এবং ট্র্যান্সফরমেশনগুলোকে সময় উপযোগী করা আর যেসব বিদ্যুত জেনারেট করা হচ্ছে সেগুলো ঠিকমতো দেয়া যায় সেভাবে বিদ্যুত উপযোগীভাবে বাজেটে বিন্যাস করা হবে।

এপ্রিলে চীনে ভোক্তামূল্যসূচক বেড়েছে ২.৩ শতাংশ

এপ্রিলে চীনের মূল্যস্ফীতির মূল চালিকাশক্তি ভোক্তামূল্যসূচক বেড়ে দাঁড়িয়েছে ২ দশমিক ৩ শতাংশ। দেশটির জাতীয় পরিসংখ্যান ব্যুরোর তথ্য অনুযায়ী, গত মাসে বিভিন্ন খাদ্যপণ্যের দাম ৭ দশমিক ৪ শতাংশ পর্যন্ত বেড়েছে। খাদ্যবহির্ভূত মূল্যস্ফীতি বেড়েছে ১ দশমিক ১ শতাংশ। চলতি বছরের প্রথম প্রান্তিকে ভোক্তামূল্যসূচক গড়ে ২ দশমিক ২ শতাংশ ছিল বলে জানিয়েছে পরিসংখ্যান ব্যুরো। -অর্থনৈতিক রিপোর্টার

জ্বালানি তেলের উত্তোলন আরও বাড়াবে সৌদি আরব

চলতি বছর জ্বালানি তেলের উত্তোলন আরও বাড়াবে সৌদি আরব। সম্প্রতি এ তথ্য জানিয়েছে দেশটির রাষ্ট্রীয় তেল কোম্পানি সৌদি আরামকো। সৌদি আরামকোর প্রধান নির্বাহী গণমাধ্যমকে জানিয়েছেন, বিভিন্ন জ্বালানি কোম্পানির শেয়ারের বিক্রি বাড়ায় জ্বালানির উত্তোলন ২ ট্রিলিয়ন ডলার সমমান পর্যন্ত বাড়াবে দেশটি। অর্থনীতি যে গতিতে এগোচ্ছে, এ ধারা বজায় থাকলে ২০৩০ সাল নাগাদ মধ্যপ্রাচ্যের দেশটির অর্থনীতির আকার প্রায় দ্বিগুণ বেড়ে যাবে। পাশাপাশি তেল এবং গ্যাস রফতানির ওপর নির্ভরতা কমবে দেশটির। আগামী ১৪ বছর অবকাঠামো, পর্যটন, পেট্রোকেমিক্যাল এবং খনিজ খাতের উন্নয়নে অর্থ ব্যয় করবে সৌদি আরব। গত সপ্তাহে টানা ২০ বছর ক্ষমতায় থাকা তেলমন্ত্রীকে পদ থেকে সরিয়ে দেন সৌদি বাদশা সালমান। -অর্থনৈতিক রিপোর্টার

প্রকাশিত : ১২ মে ২০১৬

১২/০৫/২০১৬ তারিখের খবরের জন্য এখানে ক্লিক করুন


ব্রেকিং নিউজ: